November 21, 2018

‘গাড়ী কেনার টাকা আছে অথচ রাখার জায়গা নাই’

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড সংলগ্ন এবিসি স্কুলের শিক্ষার্থীদের বহনকারী ব্যাক্তিগত গাড়ির কারনে সড়কে দীর্ঘ যানজট তৈরী হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্কুলের নিজস্ব কার পার্কিং না থাকায় ছাত্রছাত্রীদের বহনকারী নামী মডেলের দামী গাড়িগুলো স্কুলের সামনের রাস্তায় পার্ক করে রাখায় এ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে বলে অভিমত ভুক্তভোগীদের।

রবিবার (১০ এপ্রিল) সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে জানা যায়, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড সংলগ্ন ৭৫ নং উত্তর চাষাঢ়ায় অবস্থিত ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল হচ্ছে এবিসি। যেখানে শহরের সব সম্ভ্রান্ত লোকের ছেলেমেয়েরা পড়ালেখা করে। এসব ছেলেমেয়েরা স্কুলে আসা যাওয়া করে দামী গাড়ি হাঁকিয়ে। এসব গাড়ি রাখার জন্য স্কুলের নিজস্ব কোন স্থান না থাকায় গাড়িগুলো স্কুল সংলগ্ন রাস্তায় এলোপাথারী রাখা হয়। প্রায় শতাধীক ব্যক্তিগত গাড়ির কারনে ব্যস্ত এই সড়কে শুরু হওয়া যানজট চলে দীর্ঘক্ষনব্যাপী। ঘন্টার পর ঘন্টা যানজটে আটকে থেকে নগরবাসীকে পরতে হয় চরম ভোগান্তিতে। অথচ এ ব্যাপারে স্কুল কতৃপক্ষ কিংবা প্রশাসনের কোন পদক্ষেপই চোখে পরেনি আজও পর্যন্ত।

যানজটে আটকে থাকা জনৈক পথচারী জানায়, গরীবে দোষ করলে শাস্তির খড়গ নেমে আসে। আর বড়লোকের অন্যায় কারো চোখে পড়ে না। ‘শক্তের ভক্ত নরমের জম’ এ প্রবাদটি যেন সত্যি হয়ে দেখা দিয়েছে এখানে।

যানজটের ভোগান্তিতে পরা অপর এক পথচারী ক্ষোভের সঙ্গে জানায়, যারা এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে, প্রশাসনের সেইসব কর্তাব্যক্তিদের সন্তানরাই এই স্কুলে পড়াশোনা করে। রাস্তার উপর পার্ক করে রাখা গাড়িগুলোর অনেকগুলো গাড়িই সরকারী। আর প্রশাসনের রাঘব বোয়ালদের পাওয়ারে স্কুল কতৃপক্ষ মানুষকে মানুষই মনে করছে না। তা নাহলে দিনের পর দিন, বছরের পর বছর এই অনিয়ম চলতে পারে না।

পথচারীর এই কথার সত্যতা মিললো স্কুলের ভিতরে প্রবেশ করে। স্কুলের অধ্যক্ষকে পাওয়া গেলো না। উপাধ্যক্ষ নিজের নামটা পর্যন্ত বলতে রাজি হলো না। রাস্তার উপর গাড়ি রেখে যানজট সৃষ্টির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যা খুশি লেখেন। আমাদের কিছু যায় আসে না। অতীতে কতজন কতবার লেখছে কিন্তু আমাদের কিছুই করতে পারে নাই। আপনিও পারবেন না।

এবিষয়ে সহকারী জেলা পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) বদরুল আলম মোল্লা বলেন, নারায়ণগঞ্জের মানুষের গাড়ী কেনার টাকা আছে, কিন্তু রাখার জায়গা নাই। লিংকরোডে যানজটের কারনে এবিসি স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে সমাধানে এর আগেও কথা বলেছি। এমনকি গাড়ীর মালিকদের সাথেও কথা বলেছি। তবে কোন সমাধান হয়নি। এব্যাপারে শীঘ্রই স্কুল কর্তৃপক্ষে সাথে আলাপ করে মহাসড়কে পার্কিং বন্ধে বিকল্প ব্যবস্থা করার আশ্বাস দেন এএসপি।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/১০ এপ্রিল ২০১৬/রিপন ডেরি

Related posts