November 20, 2018

গঙ্গাধরের ভাঙ্গনে দুটি গ্রাম বিলিন

অনীল চন্দ্র রায়,
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ
বর্ষার শুরতেই আগ্রাসী হয়ে উঠেছে কুড়িগ্রামের গঙ্গাধর নদী। গত এক সপ্তাহে বিলিন হয়েছে নাগেশ্বরী উপজেলার বল্লভের খাষ ইউনিয়নের কৃ পুর মৌজার মাঝিপাড়া ও কালাডাঙ্গা গ্রামের শতাধিক বসত বাড়ি। বিলিন হয়েছে হাজার একর আবাদী জমি। ভিটে মাটি হারিয়ে মানবেতর জীবন পার করছে সহায় সম্বলহীন এসব মানুষ।

উপজেলার বল্লভের খাষ ইউনিয়নের কৃ পুর মৌজার মাঝিপাড়া ও কালাডাঙ্গা গ্রামের শতাধীক বসত ভিটাসহ হাজারো একর আবাদী জমি। গত বছরের ধকল কাটিয়ে উঠতে না উঠতে এবারও পড়তে হয়েছে গঙ্গার ভাঙ্গনের কবলে। গত বছর নুতুন করে গড়া মাঝিপাড়া  এক সপ্তাহেই চলে গেছে গঙ্গার গর্ভে। সব কিছু হাড়িয়ে  নি:শ্ব হয়ে খোলা আকাশ ও রাস্তায় অবস্থান নিয়েছে অনেকে।

স্থানীয় সমাজকর্মী সাইদুল ইসলাম জানান, আবাদী জমি হারিয়ে ভিটে টুকু আকড়ে থাকার নিরন্তন আশা শেষ হয়েছে এখানকার মানুষগুলোর। নদীর তিব্র ভাঙ্গনে মসজিদ, মন্দির সবকিছুই বিলিন হয়েছে। বাকি বসত ভিটে টুকুর শেষ রক্ষা হচ্ছে না। ভেঙ্গে অনত্র নেয়ার সময় টুকু দিচ্ছে না নদী।সর্বহারা মানুষগুলোর জীবন এখন মানবেতর। বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন দপ্তরে গেলেও সারা মেলেনি কারো।

বল্লভের খাষ ইউপি চেয়াম্যান আব্দুল জলিল জানান, এসব নিঃশ্ব  মানুষদের স্থায়ী পূনর্বাসন করা দরকার। এ বিষয়ে সরকারে সুদৃষ্টি কামনা করেন তিনি। সেই সাথে তাদের সহযোগিতা করার আশ্বাসও দেন ।

নাগেশ্বরী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হায়াত মো. রহমতউল্লা জানান, গঙ্গাধর নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের সহযোগিতা করতে উপজেলা দূর্যোগ ব্যস্থাপনা কমিটিকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। নদী ভাঙ্গন রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের দৃষ্টি আকর্ষণ করবেন বলেও তিনি আশ্বাস দেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ৩০ জুন ২০১৬

Related posts