September 25, 2018

খুনীরা বঙ্গবন্ধুর রক্তকে ভয় পেয়ে পরিবারের সদস্যদেরকেও হত্যা করে : ডা. দীপু মনি

IIIII
এ কে আজাদ, চাঁদপুর : সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ডা. দীপু মনি এমপি বলেছেন, ১৫ আগস্ট রাতে খুনীরা শুধু বঙ্গবন্ধুকে একা হত্যা করার উদ্যেশ্যে আসেনি কারন খুনীরা বঙ্গবন্ধুর রক্তকে ভয় পায় তাই তারা সেদিন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের হত্যা করেছিল। তারা ভেবেছিল বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের হত্যা করলেই এদেশ থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে চিরতরে মুছে ফেলতে পারবে, তার হত্যার মধ্যেদিয়ে ইতিহাসকে বদলে দিতে চেয়েছিল কিন্তু তারা তা পারেনি। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর ২৩বছরের আন্দোলন সংগ্রামের চালিকা শক্তিই ছিল ছাত্রলীগ, আওয়ামীলীগ গঠনের পূর্বেই ছাত্রলীগের জন্ম, এই ছাত্রলীগ স্বাধীন বাংলাদেশের সাথে ওতোপ্রোতো ভাবে জড়িত, এই ছাত্রলীগ এ দেশের সকল গনতান্ত্রীক আন্দোলনের সাথে জড়িত। বাংলাদেশের যতো সোনালী অর্জন ছাত্রলীগের হাত ধরে এসেছে। আর প্রতিটি অর্জনের জন্য ছাত্রলীগ তাদের বুকের রক্ত ঢেলে দিয়েছে। অথচ কেউ কেউ এখন ছাত্রলীগের বিশাল এই অর্জন বা সাফল্য নিয়ে কথা বলে তাদরে নামে মিথ্যা অপবাদ রটাচ্ছে। তাই ছাত্রলীগের ভাইদের প্রতি আমার অনুরোধ থাকবে এসব বিষয়ে তোমাদের সতর্ক থাকতে হবে। ছাত্রলীগের ইতিহাস/ঐতিহ্যকে জেনে সামনে অগ্রসর হবে এবং দেশ ও মানুষের কল্যানে কাজ করতে হবে। তবে স্বাধীনতা বিরুদীরা আজও ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। কাজেই এ ব্যাপারে সকলকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। বুধবার (২৯ আগষ্ট) দুপুরে চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে চাঁদপুর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। সদর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি এবিএম রেজওয়ানের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক নাছির গাজীর পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুর হক ভুঁইয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আতাউর রহমান পারভেজ।

a11

সভাশেষে সদর উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদকের হাতে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী ও ভাষাবিদ এম এ ওয়াদুদের জীবনীর বই দুটি তুলেদেন প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্ধ। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আলম মিল্টন, শিক্ষা ও মানব বিষয়ক সম্পাদক জিল্লুর রহমান জুয়েল, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী আরশাদ মিয়াজী, সাংগঠনিক সম্পাদক আইয়ুব আলী বেপারী, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুল, যুগ্ম আহŸায়ক মোহাম্মদ আলী মাঝি, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান জেলা শাখার সভাপতি জাফর ইকবাল মুন্না, বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম মিয়াজীসহ জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।

Related posts