September 19, 2018

কোচ থেকে নির্বাচক হাথুরুসিংহ

স্পোর্টস ডেস্কঃ  জাতীয় দল নির্বাচনে চন্দিকা হাথুরুসিংহের ভূমিকা এবার আনুষ্ঠানিক রূপ পেতে যাচ্ছে। নির্বাচক কমিটিতে জাতীয় দলের প্রধান কোচকে রাখা হবে বলে জানিয়েছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান।

সোমবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সাবেক ক্রিকেটারদের নিয়ে গড়া বিসিবির টেকনিক্যাল কমিটির সঙ্গে বসেন নাজমুল হাসান। শফিকুল হক হীরা, জাহাঙ্গীর শাহ বাদশা, আতহার আলী খানরা সেখানে জাতীয় বোলিং কোচ, টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের উন্নতি, ঘরোয়া ক্রিকেটে আম্পায়ারিংয়ের মান নিয়ে আলোচনা করেন। তবে আলোচনার একটা বড় অংশ জুড়ে ছিল নির্বাচক প্যানেল ইস্যু।

বিসিবি সভাপতি টেকনিক্যাল কমিটিকে জানিয়েছেন, কেন পরিবর্তন আনতে যাচ্ছেন তারা।

“যে সুপারিশগুলো এসেছে সেগুলো নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমার সাথে উনারা সবাই একমত হয়েছেন। উনাদের সময়েই কোচ নির্বাচক প্যানেলে অন্তর্ভূক্ত ছিলেন। কাজেই আমরা সকলেই মনে করি এটা থাকবে।”

এর আগে বাংলাদেশের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালনের সময় নির্বাচক কমিটিতে অন্তর্ভূক্ত ছিলেন ডেভ হোয়াটমোর। সে সময়ও প্রধান নির্বাচক ছিলেন ফারুক আহমেদ।

হাথুরুসিংহে কোচ হিসেবে আসার পর দল নির্বাচনে সময় নানা ভাবে মত রেখেছেন। নির্বাচকরাও কোচের চাহিদা জানতে চেয়েছেন ও মত নিয়েছেন। এখন আনুষ্ঠানিকভাবে কেন নির্বাচক কমিটিতে প্রধান কোচকে আনা হচ্ছে, তার ব্যাখ্যা দিলেন বিসিবি প্রধান।

“আমি চাচ্ছি, কোচও খেলা দেখুক। তার যখন সময় থাকে তখন বসে না থেকে সে খেলা দেখুক। আমি চাচ্ছি, ঘরোয়া সব খেলা কেউ না কেউ যেন দেখে। নতুন উদীয়মান যে খেলোয়াড় আছে তাদের কথা যেন সবাই জানে। হঠাৎ একটা নাম এলো কোচ তাকে চিনেই না-জানেই না এমন যেন না হয়।”

নাজমুল হাসান জানান, নির্বাচন প্রক্রিয়ায় প্রধান কোচ না থাকলে নির্বাচকরা দল দেওয়ার পর তার দ্বিমতের সুযোগ থাকে। তা এড়াতেই তাদের এই পরিকল্পনা।

“শুধু একটা জিনিস করা হয়েছে, চূড়ান্ত তালিকা পাঠানোর আগে কোচ এবং নির্বাচকরা একটা জায়গায় বসে যেন পাঠায়। পাঠানোর পর যেন কোনো দ্বিমত না থাকে। অনেক সময় পরিবর্তন করতে হয়, এসব যেন আর না হয়।”

আগামী বোর্ড সভায় নির্বাচক কমিটির নতুন কাঠামো চূড়ান্ত হতে পারে।

বিসিবি প্রধান জানিয়েছেন, দলের ম্যানেজারকে নির্বাচক কমিটিতে নেওয়ার কোনো প্রস্তাব তার কাছ আসেনি।

নতুন নির্বাচক কমিটিতে হেড অব প্যানেল হিসেবে থাকতে পারেন বিসিবি ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির প্রধান, যিনি বিসিবির একজন পরিচালকও। তবে নাজমুল হাসানের দাবি, নির্বাচকদের বৈঠকে থাকলেও দল নির্বাচনে কোনো ভূমিকা থাকবে না সেই বিসিবি পরিচালকের।

“হেড অব প্যানেল তো সিলেকশনে না। সিলেকশনে তো আর ক্রিকেট পরিচালনা কমিটি থাকছে না। নির্বাচকরা যার যার মতো দেখে এসে দল তৈরি করবে। বোর্ডে বা আমার কাছে আসার আগে তারা এক জায়গায় মিলিত হবে। তখন সেখানে ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান থাকবেন। কিন্তু দল নির্বাচনে ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের সরাসরি কোনো সম্পর্ক নেই।”

সিলেকশন কমিটিতে কোনো চেয়ারম্যান পদ থাকছে কি না সেই বিষয়ে বিসিবি এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি বলে জানান নাজমুল হাসান। বর্তমানে তিন সদস্যের নির্বাচক কমিটিতে প্রধান হিসেবে আছেন সাবেক অধিনায়ক ফারুক।

বিসিবির স্ট্যান্ডিং কমিটি নির্বাচক কমিটি নিয়ে বোর্ডকে একটি প্রস্তাব দিয়েছে। বিসিবি সভাপতি জানান, এমন আরও কয়েকটি প্রস্তাব তাদের কাছে আছে। টেকনিক্যাল কমিটির সঙ্গে আলোচনায় যেটা সবচেয়ে ভালো মনে সেটাই বোর্ডে উত্থাপিত হবে।

“এমন না যে নির্বাচক কমিটি ভালো করছে না। বাংলাদেশের ভালো করায় তাদেরও বড় অবদান রয়েছে। তবে আমরা এটাকে আরও সুন্দর এবং মসৃণ করতে চাচ্ছি। কিভাবে আরও ভালো করা যায় এটা তারই একটা পদক্ষেপ।”

নতুন নির্বাচক কমিটি কত সদস্যের হবে সে বিষয়ে পরিষ্কার করে কিছু বলেননি নাজমুল। বর্তমান কমিটিতে ফারুকের সঙ্গে আছেন আরও দুই সাবেক অধিনায়ক মিনহাজুল আবেদীন ও হাবিবুল বাশার।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ৩০ মে ২০১৬

Related posts