September 19, 2018

কুষ্টিয়ায় পদ্মার চরে অ্যানাকোন্ডা সাপের বাচ্চা উদ্ধার

489
কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বারখাদা পদ্মা নদীর চর থেকে এলাকাবাসী একটি বিষাক্ত অ্যানাকোন্ডা (অজগর) সাপের বাচ্চা জীবন্ত উদ্ধার করেছে। সাপুড়েদের দাবি- বড় আকারের মা সাপ এবং আরো বাচ্চা সাপ আশপাশেই রয়েছে। এ সাপগুলো ধরতে সাপুড়েরা এলাকায় নজরদারি বৃদ্ধি করেছে বলে জানা যায়। উদ্ধারকৃত বাচ্চা সাপটি লম্বায় ৬০ ইঞ্চি হবে। ওজন তিন কেজির বেশি। সাপটি বর্তমানে এলাকার মকসেদ সাপুড়ের হেফাজতে আছে।

বারখাদা কলোনি পাড়ার বাসিন্দা প্রত্যেক্ষদর্শী কৃষক মজিবর জানান, বুধবার বিকেলে এলাকার কয়েকজন মহিলা বারখাদা চরের মাঠে একটি ছোট আকারের অ্যানাকোন্ডা (অজগর) সাপের বাচ্চা দেখতে পেয়ে এলাকাবাসীকে খবর দেন। লোকজন সেখানে পৌঁছার আগেই সাপটি গর্তে লুকিয়ে পড়ে। এলাকাবাসী এসে ওই গর্তের মুখ মাটি দিয়ে ভরাট করে দেয়। এলাকাবাসী চারুলিয়া হাটপাড়ার মকসেদ সাপুড়েকে খবর দেন। গতকাল সকালে সাপুড়ে মকসেদের নেতৃত্বে এলাকাবাসী মাটি খুড়ে সাপটিকে গর্তে দেখতে পায়। এ সময় সাপুড়ে মকসেদ হিংস্র সাপটির মাথা ধরে পুরো দেহটি নিজের কবজায় আনতে সক্ষম হন। পরে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় সাপটির বড় চারটি দাঁত তুলে ফেলেন মকসেদ সাপুড়ে। এ সময় অনেক বিষ নির্গত হয়। পরে সাপটি বস্তার মধ্যে পুরে রাখা হয়।

খবর পেয়ে এলাকার শত শত মানুষ অ্যানাকোন্ডা সাপ দেখতে সেখানে ভিড় জমায়। মকসেদ সাপুড়ে জানান, এলাকাবাসী কিছু দিন আগে আমাকে জানিয়েছিল এ মাঠে এবং পাশের ইটভাটা এলাকায় বিশাল আকারের অ্যানাকোন্ডা সাপের আনাগোনা অনেকের চোখে পড়েছে। কিন্তু কেউ তাদের কথা বিশ্বাস করেনি। গতকাল সাপের বাচ্চাটি উদ্ধার করতে পেরে বিশ্বাস হয়েছে। তিনি জানান, উদ্ধারকৃত সাপটি বাচ্চা হলেও এটি ধরতে বেগ পেতে হয়েছে। বাচ্চা সাপটির মা সাপ আশপাশেই রয়েছে। আমি মা সাপটির সন্ধান পেলে মা সাপটি ধরব। তবে এটি শক্তিশালী এবং ভয়ঙ্কর হবে। তিনি জানান, দীর্ঘ ৪০ বছরের সাপুড়ে পেশায় অনেক আগে একবার এ জাতীয় সাপ ধরছিলাম কিন্তু এ বাচ্চা সাপটি ধরতে অনেক শক্তি খাটাতে হয়েছে। অ্যানাকোন্ডার বাচ্চা ধরার পর থেকে এলাকার মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts