December 19, 2018

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস জয়ে প্রবাসীদের মিস্টি বিতরণ ও আনন্দ মিছিল

বিপিএলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় অভিনন্দন, মিস্টি বিতরণ ও আলোচনা সভা করেছে সৌদিআরব মদিনা কুমিল্লা প্রবাসীরা ও শারজাহ প্রবাসী বাংলাদেশী।।

গতকাল রাত ১০টাই মদিনা বাংগালী মার্কেটে মদিনা প্রবাসী কুমিল্লা ব্যবসায়ী ফোরামের উদ্যোগে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি উমর ফারুক।

প্রধান অতিথি ছিলেন বিসিষ্ট ব্যবসায়ী নাসেরুল্লাহ ফারুকী। টিটুর সন্চালনায় প্রধান বক্তা ছিলেন আনোয়ার হোসেন। বক্তব্য রাখেন জসিম ঈসমাইল লোকমান।

অনুষ্ঠানে কুমিল্লা প্রবাসীরা সবার মাঝে মিষ্টি বিতরণ করেন।এনটিভির অনলাইনের মাধ্যেমে ধন্যবাদ জানান মোস্তফা কামাল ও তার মেয়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস্ এর চেয়ারপার্সন নাফিসা কামালকে সকল খেলোয়াড় বৃন্ধ এবং জয়ের জন্য উৎসাহ দেওয়া কুমিল্লার সকল দর্শকদের।

রুদ্ধশ্বাস খেলায় চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস’” এর চেয়ে নাটকীয় বিপিএল ফাইনাল আর কল্পনা করা যেতো না।শেষ ১২ বলে ২৩ রান দরকার ছিল কুমিল্লার। শেষ ওভারে দরকার ১৩ রান; প্রথম বলেই আউট শুভাগত হোম। পরের বলে একটি মাত্র রান। মানে চার বলে চাই ১১ রান।

পরপর দু বলে দুটি বচার এলো কাপালির ব্যাট থেকে। এবার দুই বলে ৩ রান দরকার। এলো দুই রান। সেই নাটকীয় ক্ষণ এক বলে এক রান।ব্যাটে বল লাগলো কী, লাগলো না অলক কাপালি ছুট দিলেন। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স নাটকীয় জয় পেলো ৩ উইকেটের। টানা তৃতীয় বিপিএল ট্রফি হাতে তুললেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। জয় হলো টূর্নামেন্ট জুড়ে চলে আসা কুমিল্লা-রূপকথার। আগে ব্যাট করে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও শাহরিয়া নাফীসের পরিণত ব্যাটিংয়ে ১৫৬ রান তুলেছিলো বরিশাল। জবাবে একেবারে শেষ বলে এসে জয় নিশ্চিত করলো কুমিল্লা।

বক্তারা বলেন এটি একটি কুমিল্লায় ইতিহাস রচিত জয় যা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস অক্লান্ত পরিশ্রম এবং দলগত পারফরম্যান্সের পরিপ্রেক্ষিতে অর্জন হয়েছে।

ক্রিকেট বিপিএলএ কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস পারফরম্যান্স দেখে পুরো দেশ আতঙ্কে ছিলো।বক্তারা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের সামনের দিনগুলো আরও সুন্দর ও আনন্দময় হবার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। রুহম রানা আরো জানান এই বিজয়কে কেন্দ্র করে আজ সেখানে আরো বড় রেনের আনন্দ উসৎব উদযাপন করবেন।

এদিকে দুবায়ের শারজাহতে বিপিএলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় পালন করেন আনন্দ উদযাপন। জানা গেছে দুবায়ের শারজাহ নাব্বা এলাকায় প্রবাসী রহিম রানা ও তার বন্ধুবান্ধব মিলে আনন্দ উদযাপন করেন এবং রাতের বেলা নৈশভোজ করেন সেখানকার স্থানীয় এক আভিযাত হোটেলে। রহিম আরো জানান আজ রাতে তারা বড় আয়োজনে সেখানে আনন্দ উদযাপন করবেন।

Related posts