November 14, 2018

কি কারণে জঙ্গি আস্তানায় কালো পোশাক?

ঢাকাঃ  ঢাকাসহ সারাদেশে একাধিক জঙ্গি আস্তানা খুঁজে পেয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। অভিযান চালিয়ে সেসব আস্তানা থেকে জঙ্গি সদস্যদের ধরতে না পারলেও উদ্ধার করা হচ্ছে জঙ্গিদের ব্যবহৃত জিনিসপত্র। রবিবার রাজধানীর শেওড়াপাড়া এলাকার এক জঙ্গি আস্তানা থেকে একটি গ্রেনেডও উদ্ধার করা হয়েছে। পাশাপাশি উদ্ধার করা হয়েছে আইএসের নিজস্ব পোশাকের মতো কালো পোশাক। আর বসুবন্ধরা আবাসিক এলাকার আস্তানা থেকে একটি বালির কার্টন উদ্ধার করা হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের ধারণা, গ্রেনেড সংরক্ষিত রাখতেই কার্টন ভর্তি বালু রাখা হয়েছিল।

পুলিশ সূত্র জানায়, রাজধানীর শেওড়াপাড়ার জঙ্গি আস্তানা থেকে হ্যান্ড গ্রেনেড, তিন সেট কালো পোশাক, তোষক, বালিশ, কারেন্ট নিউজ পত্রিকার দুটি কপি, প্লাস্টিকের গ্লাস, কয়েক গজ তার, একটি বৈদ্যুতিক যন্ত্রসহ আরও বেশকিছু আলামত উদ্ধার করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, বসুন্ধরার ফ্ল্যাট থেকে বালু ভর্তি একটি কার্টন, কিছু পোশাকসহ কিছু মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে। এদিকে, শেওড়াপাড়ার বাসা থেকে যে তিন সেট কালো পোশাক উদ্ধার করা হয়েছে। যা আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আইএসের নিজস্ব মার্ক করা কালো পোশাকের মতোই বলে মন্তব্য করেন একজন পুলিশ কর্মকর্তা।

গোয়েন্দা কর্মকর্তরা জানান, জঙ্গিরা তাদের আস্তানায় ভারী মালামাল রাখে না। কারণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিতে তারা দ্রুত অবস্থান পরিবর্তন করে থাকে। এ কারণে খুব সাদাসিদে জীবনযাপন করা যায়, এমন মালামাল বা আসবাপত্র নিয়ে বাসা ভাড়া নেয়। গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, আস্তানা পরিবর্তন করার সময় জঙ্গিরা শুধু পারস্পারিক যোগাযোগের উপকরণ, অস্ত্র ও গোলা-বারুদ সঙ্গে নিয়ে যায়।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ কর্মকর্তারা বলেন, কয়েক মাস আগে তারা বাড্ডার সাঁতারকুল, মোহাম্মদপুর ও উত্তরার আশকোনা এলাকায় তিনটি জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পেয়েছি। এসব আস্তানায় বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক দ্রব্যসহ বোমা ও হ্যান্ড গ্রেনেড তৈরির নানা উপকরণও উদ্ধার করা হয়েছে। এসব আসলে জঙ্গিদের স্থায়ী বোমা তৈরির কারখানা হিসেবে ব্যবহৃত হতো। বিভিন্ন কৌশলে এসব কারখানা থেকে বোমা ও অন্যান্যভাবে সংগৃহীত অস্ত্র-গোলা-বারুদ জঙ্গিদের অস্থায়ী আস্তানায় পৌঁছে দেওয়া হতো। ঢাকা মহানগর পুলিশের গণমাধ্যম শাখার উপ-কমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমান জানান, জঙ্গি আস্তানা থেকে যেসব জিনিসপত্র উদ্ধার করা হয়েছে তা পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে।

Related posts