September 20, 2018

কি কারণে একাডেমির ‘বিপক্ষে’ সালাউদ্দিন?

স্পোর্টস ডেস্কঃ   যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব কাজী আখতার উদ্দিন আহমেদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। মঙ্গলবার ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে সিলেটের ফুটবল একাডেমি এবং আসন্ন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) ও বাংলাদেশ সুপার লিগ (বিএসএল) নিয়ে আলোচনা হয়।

২০১৪ সালের নভেম্বরে আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করে সিলেট ফুটবল একাডেমি। কিন্তু নানা অসঙ্গতির কারণে ২০১৫ সালের আগস্টেই বন্ধ হয়ে যায় একাডেমি। এখন সেই একাডেমি আবারো চালু করা যায় কি না তা নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা।

বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন অবশ্য আশাবাদী হতে পারছেন না সিলেটের এই একাডেমি নিয়ে। তার ভাষায় বিকেএসপি ও সিলেট একাডেমির কার্যক্রম একসঙ্গে চালানো সম্ভব নয়। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি জানালেন, ‘বিকেএসপি আর ফুটবল একাডেমি তো এক সঙ্গে চালানো যায় না। এটা নিয়ে আমি বিস্তারিত কিছু বলতে চাইছি না। ফুটবলকে যেকোনো খেলার সঙ্গে মেলানো যায় না।’

এছাড়া মঙ্গলবারের বৈঠকে আলোচিত হয়েছে বিপিএল ও বিএসএলের জন্য ভেন্যুর সংস্কার ও ভেন্যু পাওয়া নিয়ে। মোট ১০টি স্টেডিয়ামে খেলা আয়োজনের ও সংস্কারের আশ্বাস পাওয়ার কথা জানিয়েছেন সালাউদ্দিন। এই দশটি স্টেডিয়াম হলো- ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়াম, সিলেট জেলা স্টেডিয়াম, রংপুর জেলা স্টেডিয়াম, রাজশাহীর মুক্তিযুদ্ধ জেলা স্টেডিয়াম, ময়মনসিংহ জেলা স্টেডিয়াম, বরিশাল জেলা স্টেডিয়াম, খুলনা জেলা স্টেডিয়াম, গোপালগঞ্জ জেলা স্টেডিয়াম ও কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম।

সালাউদ্দিন জানালেন, ‘আমরা ছয় বছর ধরে ভেন্যু নিয়ে চেষ্টা করছি। আমি খুব আশাবাদী। কয়েকটা স্টেডিয়ামে কিছু সংস্কারের দরকার ছিল। তারাও সম্মত হয়েছেন। এছাড়া প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন কাজগুলো তারা দ্রুত করে দেবেন।’

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/২৪ মে ২০১৬

Related posts