September 19, 2018

কানে এক ফ্রেমে চলচ্চিত্র দুনিয়ার ১১৩ তারকা

fবিনোদন ডেস্ক ::এটি শুধু ছবি নয় এক দুর্লভ দৃশ্য। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান ছাড়া কোনো উৎসবে এমন ঘটনা বিরল। একসঙ্গে গাদাগাদি করে দাঁড়িয়েছেন চলচ্চিত্র দুনিয়ার শীর্ষ ১১৩ জন অভিনেতা, অভিনেত্রী ও পরিচালক। মঙ্গলবার সকালে কান উৎসবের মূলকেন্দ্র পালে দো ফেস্টিভাল ভবনের ছাদে দেখা গেলো এই অভূতপূর্ব ঘটনা।

শুধুমাত্র ছবি তোলার জন্য এই অনুষ্ঠানটির আয়োজন। ১১৩ তারকাকে জড়ো করা হয়েছে বিশেষ ফটোকলের জন্য। এর মধ্য দিয়ে কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭০ বছর পূর্তি উদযাপিত হলো আনুষ্ঠানিকভাবে। এখানেই বিভিন্ন প্রজন্মের তারকারা সমবেত হয়ে কান উৎসবের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করেন।

এই ঐতিহাসিক ফ্রেমের সামনের সারিতে ছিলেন মর্যাদাসম্পন্ন স্বর্ণপাম জয়ী পরিচালকদের অনেকে। তারা হলেন- মাইকেল হানেকি (দ্য হোয়াইট রিবন-২০০৯, আমুর-২০১২), কেন লোচ (দ্য উইন্ড দ্যাট শেকস দ্য বার্লি-২০০৬; আই, ড্যানিয়েল ব্লেক-২০১৬), লঁহা কন্তে (দ্য ক্লাস, ২০০৮), ক্রিশ্চিয়ান মুঙ্গিউ (ফোর মান্থস,  থ্রি উইকস অ্যান্ড টু ডেজ-২০০৭), জেরি শাৎজবার্গ (স্কেয়ারক্রো-১৯৭৩), ক্লদ লুলুশ (অ্যা ম্যান অ্যান্ড অ্যা ওম্যান-১৯৬৬), জেন ক্যাম্পিয়ন (দ্য পিয়ানো-১৯৯৩), ন্যানি মোরেত্তি (দ্য সান’স রুম-২০০১), কস্তা গাভরাস (মিসিং-১৯৮২), বিলি অগাস্ট (পেলে দ্য কনকুয়েরর-১৯৮৮, দ্য বেস্ট ইনটেনশন-১৯৯২), মোহাম্মদ লাকদার-হামিনা (ক্রনিকল অব দ্য ইয়ারস অব ফায়ার-১৯৭৫)। সম্মানজনক স্বর্ণপাম প্রাপ্তদের মধ্যে ছিলেন আনিয়েস ভাহদা (২০১৫) ও জ্যঁ-পিয়াহ লিও (২০১৬)।বিচারকদের সভাপতি ও বিচারক সদস্যদের মধ্যে এসেছিলেন ক্লডিয়া কার্ডিনালে (বিচারক, ১৯৯৩), ক্যাথরিন দ্যুনোভ (সভাপতি ১৯৯৪), ইজাবেল উপাহ (সভাপতি, ২০০৯), জর্জ মিলার (সভাপতি, ২০১৬), লিভ আলম্যান (সভাপতি, ২০০১), নিকোল কিডম্যান (বিচারক, ২০১৩) এবং আন্ড্রিয়া আরনল্ড (বিচারক, ২০১২)।

৭০তম আসরের বিভিন্ন বিভাগের বিচারকরাও ছিলেন এতে। প্রতিযোগিতা বিভাগের সভাপতি পেদ্রো আলমোদোভারের সঙ্গী হন বিচারক উইল স্মিথ, জেসিকা চ্যাস্টেইন, ফ্যান বিংবিং, মারেদ আদে, আনিয়েস জাউই, পার্ক চ্যান-উ, পাওলো সরেন্তিনো ও গ্যাব্রিয়েল জারেদ। আনসার্টেন রিগার্ড বিভাগ থেকে এসেছিলেন বিচারকদের সভাপতি উমা থারম্যান, বিচারক মোহাম্মদ দিয়াব, রিদা কাতেব ও জোয়াকিম লাফোস।

কানে এর আগে সেরা অভিনেতা ও অভিনেত্রী হয়েছেন এমন তারকাদের মধ্যে ছিলেন অনেকে। অভিনেতারা হলেন ভানসেন্ত লান্দন (২০১৫), ম্যাডস মিকেলসেন (২০০৮), ক্রিস্টফ ওয়াল্টজ (২০০৯) ও বেনিসিও দেল তোরো (২০০৮)।

সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কারজয়ীদের মধ্যে দেখা গেছে কার্স্টেন ডান্সট (২০১১), এলোদি বুশে (১৯৯৮), এমিলি দুকেন (১৯৯৯), ইমানুয়েল ব্যাকো (২০১৫), বেরেনিস বেসো (২০১৩), জুলিয়েট বিনোশ (২০১০) ও সেভেরিন ক্যানেলকে (১৯৯৯)।অতিথি হিসেবেও বিশেষ এই ফটোকলে ছিলেন অনেকে। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য এবারের আয়োজনের ‘মাস্টার অব সিরিমনিস’ মনিকা বেলুচ্চি, ডায়েন ক্রুজার (মাস্টার অব সিরিমনিস, ২০০৭), সালমা হায়েক, শার্লিজ থেরন, মারিয়ন কঁতিয়া, টিল্ডা সুইনটন, শু-কি ও অন্যান্য।

এছাড়াও ফটোকলে অন্যদের সঙ্গে একত্র হন অভিনেতা আন্তোনিও ব্যান্দেরাস, কলিন ফেরেল, আড্রিয়ান ব্রডি, গায়েল গার্সিয়া বার্নাল, পরিচালক অলিভার স্টোন, গুইলারমো দেল তোরো, আলেহান্দ্রো গঞ্জালেজ ইনারিতু, আলফনসো কুয়ারন, মিশেল আজানাভিসুস, সোফিয়া কপোলা প্রমুখ।

Related posts