November 16, 2018

কষ্টের জয়ে শিরোপা লড়াইয়ে টিকে থাকল রিয়াল

স্পোর্টস ডেস্কঃ  ভালেন্সিয়াকে হারিয়ে শিরোপা লড়াইয়ে টিকে থাকতে নিজেদের কাজটা সেরে রাখলো রিয়াল মাদ্রিদ। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর জোড়া গোলে ঘরের মাঠে ৩-২ ব্যবধানে জিতেছে জিনেদিন জিদানের দল।

রোববার একই সঙ্গে হওয়া অন্য ম্যাচে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা বার্সেলোনা এসপানিওলকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে। তবে লেভান্তের মাঠে ২-১ গোলে হেরে শিরোপা লড়াই থেকে ছিটকে পড়েছে আতলেতিকো মাদ্রিদ।

৩৭ রাউন্ড শেষে বার্সেলোনার পয়েন্ট ৮৮। ১ পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রিয়াল। তিন নম্বর স্থানে নেমে যাওয়া আতলেতিকোর পয়েন্ট ৮৫। শেষ ম্যাচে গ্রানাদাকে হারালেই শিরোপা জিতবে বার্সেলোনা। জিনেদিন জিদানের দলের তাই নিজেদের শেষ ম্যাচে দেপোর্তিভো লা করুনাকে হারানোর পাশাপাশি অমঙ্গল কামনা করতে হবে প্রবল প্রতিপক্ষদের।

ঘরের মাঠে লিগে ভালেন্সিয়ার বিপক্ষে সবশেষ চারবারের মুখোমুখি লড়াইয়ে জিততে না পারায় বাড়তি সতর্ক ছিলেন কোচ জিদান। গত তিন ম্যাচে দলের জয়ের নায়ক গ্যারেথ বেল না থাকায় সমর্থকেরা হয়তো কিছুটা দুশ্চিন্তাতেও ছিল।

শুরু থেকেই প্রতিপক্ষের রক্ষণে চাপ বাড়ানো রিয়াল ২৪তম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারতো, কিন্তু গোলরক্ষককে একা পেয়েও লক্ষ্যভেদে ব্যর্থ হন রোনালদো।

দুই মিনিট পরেই অবশ্য দলকে এগিয়ে দেন পর্তুগিজ তারকা। মার্সেলোনার পাস পেয়ে ডি-বক্সের বাইরে কিছুটা আড়াআড়ি দৌড়ে কোনাকুনি শটে গোলটি করেন রোনালদো।

৩৬তম মিনিটে ব্যবধান বাড়াতে পারতেন লুকাস ভাসকেস, কিন্তু তার শটটি দারুণ নৈপুণ্যে ঠেকিয়ে দেন ভালেন্সিয়া গোলরক্ষক।

পরের মিনিটে পাল্টা আক্রমণে সমতায় ফিরতে পারতো অতিথিরা। গোলরক্ষককে একা পেয়ে গিয়েছিলেন স্পেনের স্ট্রাইকার পাসো আলকাসের; কিন্তু তিনি শট না নিয়ে স্বদেশি পারেহোকে পাস দেন। বলে ছোঁয়া লাগাতেই পারেননি এই মিডফিল্ডার।

৪২তম মিনিটে কাছ থেকে কোনাকুনি শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন চোট কাটিয়ে ফেরা করিম বেনজেমা। তবে গোলটি নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়; বেনজেমার প্রথম প্রচেষ্টা গোলরক্ষক ঠেকিয়ে দিলেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি, উপরে ওঠা বল হেডে প্রতিহত করতে গিয়ে সতীর্থদের সঙ্গে ধাক্কা লেগে পড়ে যান ভালেন্সিয়ার এক খেলোয়াড়। তাছাড়া গোলে শট নেওয়ার সময় অফসাইডে ছিলেন বেনজেমা, তাই খেলা বন্ধের আবেদন করে ভালেন্সিয়ার খেলোয়াড়েরা, কিন্তু রেফারি গোলের বাঁশি বাজান।

৫৪তম মিনিটে দূরপাল্লার শটে চেষ্টা করেছিলেন পারেহো, তবে তার জোরালো শট পোস্ট ঘেঁষে চলে গেলে সে যাত্রায় বেঁচে যায় রিয়াল। তবে পরের মিনিটেই প্রায় ১৫ গজ দূর থেকে জোরালো শটে ব্যবধান কমান স্পেনের ফরোয়ার্ড রদ্রিগো।

ভালেন্সিয়ার ব্যবধান কমানোর স্বস্তি অবশ্য বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি; ৫৯তম মিনিটে মাঝ মাঠের কাছ থেকে হামেস রদ্রিগেসের লম্বা পাস ধরে ডি বক্সে ঢুকে বাঁ-পায়ের কোনাকুনি শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন রোনালদো।

এবারের লিগে রোনালদোর এটি ৩৩তম গোল। ৩৭ গোল করে গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে আছেন বার্সেলোনার লুইস সুয়ারেস।

দুই গোলে পিছিয়ে থাকলেও রিয়ালের রক্ষণে একের পর এক আক্রমণ করতে থাকা ভালেন্সিয়া ম্যাচের উত্তেজনা ধরে রাখে। পরের ২০ মিনিটে পারেহো, আলকাসের ও আন্দ্রে গোমেসের দুর্দান্ত তিনটি শট দারুণ নৈপুণ্যে ঠেকিয়ে দেন কেইলর নাভসের বদলে খেলতে নামা স্পেনের গোলরক্ষক কিকো কাসিয়া।

কিন্তু ৮১তম মিনিটে আর ভালেন্সিয়ার সামনে বাধা হয়ে থাকতে পারেননি কাসিয়া; প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে দুর্দান্ত এক শটে স্কোরলাইন ৩-২ করেন পর্তুগালের মিডফিল্ডার গোমেস।

দুই মিনিট পরেই বড় ধাক্কাটি খায় ভালেন্সিয়া, অখেলোয়াড়সুলভ আচরণের দায়ে সরাসরি লাল কার্ড দেখেন দলটির প্রথম গোলদাতা রদ্রিগো। শেষ পর্যন্ত লড়াই করে গেলেও ১ জন কম নিয়ে তৃতীয় গোলের দেখা পায়নি তারা।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/৮ মে ২০১৬

Related posts