November 14, 2018

কলেজছাত্র সোহেলের খুনীদের ফাঁসির দাবিতে মামনববন্ধন

650

রহিম রেজা,ঝালকাঠি থেকেঃ   ঝালকাঠির রাজাপুরের বড়ইয়া ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি (বি.এম শাখার) ২য় বর্ষের ছাত্র সোহেল রানা (২০) কে নির্মমভাবে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যার ঘটনার মামলার আসামীদের পক্ষাবলম্বন ও বাদির মামলার সহায়তাকারী আ’লীগ কর্মী সাংবাদিক আলমগীর শরীফসহ মামলার স্বাক্ষীদের ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় জড়ানোর চেষ্টায় ওসি শেখ মুনীর উল গিয়াস ও মামলার আইও এসআই বিপ্লব মিস্ত্রীর অপসারনসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির প্রত্যাশায় এবং মামলায় উল্লেখিত প্রকৃত খুনিদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার চত্ত্বরের সামনের সড়কে উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সর্বস্তরের জনগনের ব্যানারে ঘণ্টাব্যাপি এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন কলেজছাত্র সোহেল রানার পিতা মামলার বাদি আমজাদ ফকির, মা রাজিয়া বেগম, ভাই বেল্লাল হোসেন ও স্ত্রী নুপুর বেগম প্রমুখ।

বক্তারা জানান, আসামীদের পক্ষাবলম্বন করে ওসি ও মামলার আইও মামলার সহায়তাকারী আলমগীর শরীফসহ মামলার স্বাক্ষীদের ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় জড়ানোর চেষ্টা করে মামলাটি নষ্ট করার চেষ্টা করছে। তাই তাদের অপসারনসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং মামলায় উল্লেখিত প্রকৃত খুনিদের ফাঁসির দাবি করেন। বর্তমানে পুলিশের সহায়তায় আসামীরা বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছে বলেও অভিযোগ করেন তারা। তবে ওসি শেখ মুনীর উল গিয়াস ও মামলার আইও এসআই বিপ্লব মিস্ত্রী এসব অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা দাবি করে জানান, পুলিশ সম্পূর্ণ নিরপেক্ষভাবে মামলার প্রকৃত রহস্য উদঘাটনে কাজ করে যাচ্ছে। গত ২৬ আগস্ট পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী বড়ইয়ার লঙ্করবাড়ি রাস্তার আজাহার আলীর ভিটা এলাকায় ওত পেঁতে থাকা খুনি আসামী শুভ ও মাহাবুবসহ অন্য আসামীরা সোহেলকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে।

এ ঘটনায় সোহেল রানার বাবা আমজেদ ফকির ২৬ আগস্ট রাতে শুভ ও তার পিতা আব্দুল্লাহ আল মাহবুবসহ ৭ জনের নাম উল্লেখপূর্বক ১২ জনের নামে রাজাপুর থানায় হত্যার ধারায় মামলা দায়ের করেন। উল্লেখ্য, জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে হুমকি ও চাঁদা দাবির ঘটনায় প্রতিপক্ষ বড়ইয়া গ্রামের আব্দুল্লাহ আল মাহবুরের নামে থানায় জিডি (নং-৫৫৫,১৬/০৮/২০১৫) ও ঝালকাঠি আদালতে ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগে আব্দুল্লাহ আল মাহবুব, লিটন হাওলাদার ও মিল্টন হাওলাদারের নামে এ কলেজ ছাত্রের পিতা আমজেদ আলী ফকির মামলা (নং-এমপি ১১৭/১৫ “রাজা”, তারিখ ২৩/০৮/২০১৫) করার পর ক্ষিপ্ত হয়ে স্থানীয় ওই প্রতিপক্ষরা তাকে ও তার ছেলেসহ পরিবারের সকলকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল। ওই প্রতিপক্ষরাই কলেজছাত্র সোহেল রানাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ তার পিতা আমজেদ ফকিরের।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts