September 24, 2018

কমিটিই নয়, দল থেকেই পদত্যাগ করতে পারেন নোমান!

ঢাকাঃ সদ্য ঘোষিত বিএনপির নতুন কমিটিতে ভাইস চেয়ারম্যান পদে না থাকার ঘোষণা দিয়েছেন আবদুল্লাহ আল নোমান। এমনকি দল থেকেও পদত্যাগ করতে পারেন তিনি। আর দল থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্তের বিষয়টি আগামী দু’একদিনের মধ্যেই জানানো হবে বলে সোমবার গণমাধ্যমকে বলেন নোমান।

বিএনপির এই প্রবীণ নেতা বলেন, ‘কর্মীদের চাপ আছে। এমন কি তারা বলে রাজনীতি থেকে রিজাইন করেন। এসব নেতাকর্মীরা বলছে এটা তাদের ইমোশন, তাদের বক্তব্য।’

সোমবার (০৮ আগস্ট) বিকেলে এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে নোমান এমনটাই জানান।

পদত্যাগের ব্যাপারে আপনার ব্যক্তিগত মতামত কী জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে এখানো সিদ্ধান্ত নেইনি। আমি যে পদে আছি এই পদে আর থাকতে চাই না। দেখি কি হয়?’

দলীয় প্রধানের সঙ্গে সাক্ষাৎ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কমিটি ঘোষণার আগে চেয়ারপারসনের গুলশানের বাসায় একটি মিটিংয়ে দেখা হয়েছে। কমিটি ঘোষণার পর কোনো আলোচনা হয়নি।’

নিজস্ব উদ্যোগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার পরিকল্পনাও নেই বলে জানান বিএনপির এই শীর্ষ নেতা।

এদিকে নোমানের ঘনিষ্টজনেরা জানিয়েছেন, দীর্ঘ দিনের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা থেকে আবদুল্লাহ আল নোমান স্থায়ী কমিটির সদস্য পদে আসবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্ত প্রত্যাশা পূরণ না হওয়ায় তিনি ক্ষুদ্ধ হলে তাতে দোষের তো কিছু নেই।

বিএনপির স্থায়ী কমিটিতে নতুন মুখ হিসেবে জায়গা পেয়েছেন চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সাবেক সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও বিলুপ্ত কমিটির যুগ্ম মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ। তারা দুজনই বৃহত্তর চট্টগ্রামের বাসিন্দা। নোমানও চট্টগ্রামের বাসিন্দা।

শনিবার বিএনপির কমিটি ঘোষণার সাড়ে চার ঘণ্টার মাথায় শারীরিক অসুস্থতা ও ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে ভাইস চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন মোসাদ্দেক আলী ফালু। একই দিন নিজের নাম প্রত্যাহার করার আবেদন জানিয়ে চিঠি দেন সহ-প্রচার সম্পাদকের পদ পাওয়া শামীমুর রহমান শামীম। এ ছাড়াও পদ নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে দলের আরো কিছু নেতা পদত্যাগ করতে পারেন- এমন গুঞ্জনও শোনা যাচ্ছে।

Related posts