September 25, 2018

কমার্স ব্যাংকে ডাকাতি<<জঙ্গিসহ ৬ জনের ফাঁসি

ঢাকাঃ   রাজধানী ঢাকার আশুলিয়ার কাঠগড়া বাজারের কমার্স ব্যাংকে ডাকাতিকালে ৮ জনকে হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলার রায়ে ৬ জনের ফাঁসি, একজনের যাবজ্জীবন ও দুজনকে তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ১১ আসামির মধ্যে দুজনকে খালাস দেয়া হয়েছে। কড়া নিরাপত্তার মধ্যে ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ এসএম কুদ্দুস জামান গতকাল বেলা সাড়ে ১১টায় এ রায় ঘোষণা করেন। রায় প্রদানের সময় জেলহাজত থেকে আসামিদের আদালতে হাজির করা হয়।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- বোরহানউদ্দিন, সাইফুল আলামিন, মিন্টু প্রধান, মো. জসিমউদ্দিন, উকিল হাসান এবং সাইফুল ইসলাম। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে, পলাশ ওরফে সোহেল রানাকে। তিনি পলাতক রয়েছেন। বাকি আসামিদের মধ্যে শাজাহান জমাদ্দার ও আব্দুল বাতেনকে তিন বছর এবং বাকি দুই আসামি বাবুল সরদার এবং মোজাম্মেল হককে খালাস দেয়া হয়েছে। মামলায় ৯৭ জন সাক্ষীর মধ্যে তদন্ত কর্মকর্তাসহ ৬৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করে আদালত। গত ২৫শে মে মামলাটিতে রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের আইনজীবীদের যুক্তি-তর্ক শুনে ৩১শে মে রায় প্রদানের দিন ধার্য করে আদালত। গত ২১শে জানুয়ারি ১১ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করে মামলার বিচার শুরু হয়।

আসামিরা আদালতের জিজ্ঞাসায় নির্দোষ বলে দাবি করেন।

গত ১লা ডিসেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আশুলিয়া থানা পুলিশ জামা’আতুল   মুজাহিদীন  বাংলাদেশের (জেএমবি) সাত সদস্যসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। আসামিদের মধ্যে বাবুল সরদার, মিন্টু প্রধান, উকিল হাসান ও শাজাহান জমাদ্দার ছাড়া অন্য সবাই জেএমবি’র সদস্য। এদের মধ্যে পলাতক আছে পলাশ। আসামিদের মধ্যে ৭ জন ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১৫ সালের ২১শে এপ্রিল আশুলিয়ার কাঠগড়া বাজার এলাকায় বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের শাখায় ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

আসামিরা ডাকাতিকালে ব্যাংকের কর্মচারী ও গ্রাহকরা বাধা দিলে আটজনকে ছুরিকাঘাত ও গুলিতে হত্যা করে। আসামিরা ব্যাংক থেকে ৬ লাখ ৮৭ হাজার ১৯৬ টাকা ডাকাতি করে নিয়ে যায়। পরে আসামিদের কাছ থেকে ডাকাতির ছয় লাখ সাত হাজার ২৫৫ টাকা উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর ব্যাংক কর্মকর্তা মো. বদরুদ্দোজা বাদী হয়ে এ মামলাটি করেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ১ জুন ২০১৬

Related posts