November 16, 2018

কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ও ছেলে রাহুল জেলে যাবেন!

জেলে যেতে হলে তাই যাবেন। তবু জামিন চাইবেন না ভারতের ঐতিহ্যবাহী দল কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ও তার ছেলে দলের ভাইস প্রেসিডেন্ট রাহুল গান্ধী। ন্যাশনাল হেরাল্ড পত্রিকা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে শনিবার তাদের আদালতে হাজির হওয়ার কথা রয়েছে। আদালত যদি তাদেরকে জেলে যাওয়ার নির্দেশ দেন তাহলে তারা তাই করবেন। এদিন বড় রকমের শো ডাউনের পরিকল্পনা নিয়েছে কংগ্রেস পার্টি। অনলাইন জি নিউজে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে।

দলীয় সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে রিপোর্টে বলা হয়েছে, শনিবার যে পাতিয়ালা হাউজ কোর্টে সোনিয়া ও রাহুলের হাজির হওয়ার কথা রয়েছে শোডাউন হবে সেখানে। যত বেশি নেতাকর্মী সম্ভব সেখানে জড়ো করবে দল। আদালতে সোনিয়া, রাহুলের প্রতিনিধিত্ব করবেন সিনিয়র আইনজীবী অভিষেক সিংভি। এদিন আদালতে তারা জামিন চাইবেন কিনা এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, আমরা আমাদের কৌশল নিয়ে কথা বলি না। এ বিষয় নিয়ে আমি কারো সঙ্গে কথা বলতে পারবো না।

উল্লেখ্য, নিয়ম অনুযায়ী অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আদালত যখন তলব করেন তখন তাকে আদালতে হাজির হতে হয় এবং জামিন আবেদন করতে হয়। আদালত চাইতে তা মঞ্জুর করতে পারেন। যদি তা না করেন তাহলে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে রাখা হয় বিচার বিভাগীয় হেফাজতে বা জেলে। যদি অভিযুক্ত ব্যক্তি জামিন আবেদন না করেন তাহলে তাদেরকে আদালত বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠাতে পারে। ওদিকে দিল্লি হাই কোর্ট ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলা থেকে সোনিয়া ও রাহুলকে বাদ রাখতে যে আবেদন করা হয়েছিল তা গ্রহণে অস্বীকৃতি জানায় দিল্লি হাই কোর্ট। এরপর পার্লামেন্টে তীব্র ক্ষোভ ঝাড়ে কংগ্রেস পার্টি।

তারা বলে, এ মামলাটি রাজনৈতিক প্রতিশোধ নেয়ার জন্য করা হয়েছে। গত ৭ই ডিসেম্বর আদালত সোনিয়া, রাহুলকে মামলা থেকে বাদ রাখার আবেদন খারিজ করে দিলে বড় ধরনের ধাক্কা খান শীর্ষ এই দু’রাজনীতিক। এ মামলায় সোনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধী ছাড়া অন্য ৫ অভিযুক্ত হলেন সুমন দুবে, মতিলাল ভোহরা, অস্কার ফার্নান্দেজ, শ্যাম পিট্রোড়া ও ইয়ং ইন্ডিয়া লিমিটেড। বিজেপি নেতা সুব্রমানিয়ান স্বামীর করা অভিযোগে আদালত তাদেরকে তলব করলে তারা তা চ্যালেঞ্জ করেন। ৮ই ডিসেম্বর সোনিয়া, রাহুল ও অন্যদের সশরীরে ১৯শে ডিসেম্বর আদালতে হাজির হতে নির্দেশ দেয়া হয়।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/মেহেদি/ডেরি

Related posts