September 22, 2018

ওসি কুনিও হত্যাঃ অব্যাহতি পাচ্ছেন বিপ্লবসহ ৪ যুবদল নেতা!

ঢাকাঃ  রংপুরে জাপানি নাগরিক ওসি কুনিও হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আগামী দু’একদিনের মধ্যে আদালতে চার্জশিট জমা দেবে পুলিশ। মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা এরই মধ্যে চার্জশিটটি তৈরি করে রংপুর জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে জমা দিয়েছেন।

রংপুর জেলা পুলিশের একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, এ মামলায় জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ ( জেএমরি)-র ৮ জঙ্গিকে আসামি দেখানো হয়েছে। আর এ মামলায় এর আগে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক রংপুর মহানগর বিএনপি নেতা রাশেদুন্নবী খান বিপ্লবসহ ৪ যুবদল নেতা এবং নিহত জাপানি নাগরিকের ব্যবসায়িক পার্টনার হীরাকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন জানাবে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া না যাওয়ায় পুলিশ তাদের অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করবে।

গত বছরের ৩ অক্টোবর রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার সারাই ইউনিয়নের আলুটারী গ্রামে নিজের খামারে রিকশা যোগে যাবার সময় জাপানি নাগরিক ওসি কুনিওকে গুলি করে নৃশংসভাবে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। তারা একটি মটর সাইকেলে চড়ে সেখানে এসে কুনিওকে গুলি ছুড়ে হত্যা করে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

এ ঘটনার পরপরই রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে নিহত জাপানি নাগরিকের ব্যবসায়িক পার্টনার হীরাকে আটক করে পুলিশ। এরপর রংপুর মহানগর বিএনপি নেতা বিপ্লব এবং পরবর্তীতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে রংপুরের যুবদল নেতা কালো রুবেল, ভরসা কাজল, মেরিল সুমনকে গ্রেফতার করে। তাদেরকেও এই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

হীরাকে ৩ দফায় ২৫ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেও তেমন কোনও তথ্য পায়নি পুলিশ। একই ভাবে বিএনপি নেতা বিপ্লবকে ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হলেও ৩ দিনের মাথায় রিমান্ড বাতিল করে তাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। অন্যদিকে ৩ যুবদল নেতাকেও রিমান্ডে এনে তদন্তে তেমন কোনও অগ্রগতি হয়নি।

প্রথম দিকে এ হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে সন্দেহের তীর বিএনপির দিকে থাকলেও পুরো দৃশ্যপট পাল্টে যায় রংপুরের পীরগাছা থেকে জেএমবির সামরিক শাখার নেতা মাসুদ রানাকে গ্রেফতার করার পর। তাকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করে প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করে পুলিশ। তারা নিশ্চিত হয় জেএমবির জঙ্গিরাই জাপানি নাগরিককে গুলি করে হত্যা করেছে।

জঙ্গি রানা আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে এ হত্যাকাণ্ডের পুরো বিবরণ দেন। এতে ওসি কুনিওকে নিজেই গুলি করেছেন বলে স্বীকার করেন তিনি। ফলে এ মামলার তদন্তের মোড় ঘুরে যায়। এরপরই এছাহাক নামে আরেক জেএমবি নেতা গ্রেফতার হন। তিনিও আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এর মাধ্যমে ওই ঘটনায় জড়িত অন্যদের নামও জানান তারা।

সার্বিক বিষয়ে জানতে বুধবার কাউনিয়া থানার ওসি ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কাদের জিলানীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, চার্জশিট তৈরি হয়েছে। যে কোনও সময় এটি আদালতে দাখিল করা হবে।

এদিকে, জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মামলাটির তদন্ত শেষ হয়েছে। যে কোনোদিন চার্জশিট দাখিল করা হবে। এ মুহূর্তে চার্জশিটটি পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হচ্ছে। তিনি ইঙ্গিত দেন, ৮ জেএমবির জঙ্গির নামে চার্জশিট দাখিল করা হবে।এর আগে রংপুর রেঞ্জের পুলিশের ডিআইজি গোলাম ফারুখ সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, ওসি কুনিওকে হত্যামামলার চার্জশিট চলতি মাসেই আদালতে দাখিল করা হবে।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ২৯ জুন ২০১৬

Related posts