November 21, 2018

এ ধরনের জঙ্গি হামলা নির্বাচনের অন্তরায়: কাদের

545জঙ্গিদের এই ধরনের হামলা আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে অন্তরায় হিসেবে কাজ করবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, এটি কোনো দলের বিষয় না, দেশের স্বার্থে-জাতীয় স্বার্থে আমাদের সবাইকে এর বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

শনিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের এলজিইডি মিলনায়তনে জাতীয় যক্ষা নিরোধ সমিতির (নাটাব) বার্ষিক সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, “যেহেতু দেড় বছর পর দেশে জাতীয় নির্বাচন। এই নির্বাচনের জন্য এই ধরনের হামলা অবশ্যই অন্তরায়।”

জঙ্গি দমনে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে এগিতে আসার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, “দেশ এভাবে উপর্যুপরি নাশকতার কবলে পড়লে আপনি-আমি কেউই নিরাপদ নই।”

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার ষড়যন্ত্র থেকে এই ধরনের হামলা হচ্ছে বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের।

“খণ্ডিত চিন্তা করে লাভ নেই, এটা এখন জাতীয় ইস্যু। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর মনোবল দুর্বল করতে তারা র‌্যাব-পুলিশের উপর হামলা চালাচ্ছে। তারা এবার স্বাধীনতার মাসকে বেছে নিয়েছে। টার্গেট করেছে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে।”

ওবায়দুল কাদের বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য, হলি আর্টিজানে উগ্রবাদী হামলায় মেট্রোরেলের সাতজন জাপানি পরামর্শকের রক্তাক্ত বিদায় হয়। এতে প্রায় পাঁচ মাস মেট্রোরেলের গতি ঝিমিয়ে পড়ে। এ ধরনের হামলায় আমাদের দেশের মানুষের উপর যতটা না প্রভাব পড়ে তার চেয়ে বেশি হয় বিদেশীরা। যে কারণে মেট্রোরেলের মতো একটা প্রকল্পের কর্মকাণ্ড বিলম্বিত হয়।

গত বছর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার পর র‌্যাব-পুলিশের টানা অভিযানে জঙ্গিদের প্রকাশ্য তৎপরতা স্তিমিত হয়ে পড়লেও গত এক মাসে কয়েকটি ঘটনায় তাদের মাথাচাড়া দিয়ে ওঠার ইঙ্গিত দেখছেন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা।

Related posts