September 24, 2018

এসপি বাবুলের হত্যাঃ খুনে অংশ নেওয়া তিন যুবক শনাক্ত

ঢাকাঃ  পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম খুনে অংশ নেওয়া মোটরসাইকেল আরোহী ৩ যুবককে শনাক্ত করার দাবি করেছে পুলিশ। মামলার তদন্তের স্বার্থে তাদের নাম-পরিচয় প্রকাশ করছে না পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত অন্যদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। কয়েক দিনের মধ্যে হত্যাকাণ্ডের পুরো রহস্য উদ্ঘাটন করা সম্ভব হবে বলে আশা করছেন তদন্তের সঙ্গে যুক্ত কর্মকর্তারা।

চট্টগ্রাম নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) দেবদাস ভট্টাচার্য শুক্রবার বিকালে সাংবাদিকের বলেন, ঘটনাস্থল থেকে সংগ্রহ করা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে মোটরসাইকেল আরোহী তিন যুবককে শনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে। তাদেরকে গ্রেফতারের চেস্টা চালানো হচ্ছে। কেন এবং কী কারণে ওই তিন যুবক হত্যাকাণ্ডে অংশ নিয়ে ছিলো তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কয়েক দিনের মধ্যে পুরো রহস্য উদ্ঘাটন করে গণমাধ্যমকে জানানো হবে।

গত ৫ জুন সকালে পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় চট্টগ্রামের জিইসি এলাকায় গুলি ও ছুরিকাঘাতে খুন হন তার স্ত্রী মাহমুদা খানম।

ঘটনার পর থেকেই পুলিশ বলে আসছে, জঙ্গি দমনে বাবুল আক্তারের সাহসী ভূমিকার কারণে জঙ্গিরা তার স্ত্রীকে খুন করে থাকতে পারে। হত্যাকান্ডের পর বাবুল আক্তার অজ্ঞাতপরিচয় তিন ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা করেন। পরে পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুজনকে গ্রেফতার করে। কিন্তু তার হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত কি না, তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশের সংগ্রহ করা ভিডিও ফুটেজে মাহমুদা খানম তার ছেলেকে নিয়ে ওআর নিজাম রোডের বাসা থেকে বের হয়ে জিইসি মোড়ের দিকে যাচ্ছেন। একই সময় রাস্তার অপর প্রান্তে জিন্স প্যান্ট ও চেক শার্ট পরা এক যুবককে মুঠোফোনে কথা বলতে দেখা যায়। তিনি রাস্তার সড়ক বিভাজক অতিক্রম করে মাহমুদার পিছু নেন এবং ঘটনাস্থলের (রাস্তার যে অংশে খুনের ঘটনা ঘটে) দিকে এগিয়ে যান।

ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, তিন যুবক প্রথমে মাহমুদা খানমকে মোটরসাইকেল দিয়ে ধাক্কা দেন। মোটরসাইকেলটিতে বসা (চালকসহ) তিন যুবকের মধ্যে দ্বিতীয়জন মাহমুদার বুকে, হাতে ও পিঠে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করেন। তৃতীয়জন পিস্তুল দিয়ে গুলি করেন। ৪০ থেকে ৫০ সেকেন্ডের মধ্যে এই হত্যাকাণ্ডটি ঘটানো হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার মো. কামরুজ্জামান বলেন, কেন, কী কারণে এসপির স্ত্রীকে খুন করা হয়েছে তা বের করা হচ্ছে। মোটরসাইকেল আরোহী তিন যুবকও শনাক্ত হয়েছে। হত্যার রহস্য উদ্ঘাটনের কাজ এখন শেষের দিকে।

Related posts