September 20, 2018

এলজিবিটিদের রূপবান নিষিদ্ধ হচ্ছে

ঢাকাঃ  বাংলাদেশে এজিবিটিদের কোন অধিকার নেই। তারা যদি এই ব্যাপারে কেউ আগ্রাসীভাবে কাজ করে ও সমাজের উপর এই ধরনের কাজের জন্য কোন ধরনের নেতিবাচক প্রভাব ফেলার চেষ্টা করে তাহলে সরকার তা মেনে নিবে না। সরকারের লক্ষ্য হচ্ছে যারা এই ধরনের কাজে লিপ্ত তাদের ব্যাপারে কোন ধরনের ছাড় দেওয়া হবে না। এই কারণে এলজিবিটিদের বিশেষ কর্মকান্ড যেগুলো চলছে সেগুলো বন্ধ করে দেওয়ার জন্য সরকার সব ধরনের ব্যবস্থা নিচ্ছে।

সূত্র জানায়, সমকামী ও এই ধরনের সংগঠনের সঙ্গে যারা জড়িত তারা যাতে কোন ভাবেই এই দেশে কাজ করতে না পারে সেই ব্যাপারে সব ধরনের উদ্যোগ নিচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ও গোয়েন্দারা সমকামীদের সিন্ডিকেট খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে। তারা কোথায় কোথায় কি ধরনের সংগঠন করেছেন, তাদের কর্ম তৎপরতা কত খানি বেড়েছে, তারা সমাজের কোন কোন শ্রেনীর মধ্যে এই ধরনের প্রবণতা তৈরি করার চেষ্টা করছে তাও বের করার চেষ্টা করছে। সরকারের অবস্থান যে কোন মূল্যে বাংলাদেশে সমকামীতা নিষিদ্ধ করা।

একটি বিশেষ সূত্র জানায়, বাংলাদেশে সমকামীরা বেশ জোরালোভাবে গোপনে কাজ করছিল। এখন গতি কমিয়েছে। বেছে নিচ্ছে এখন আন্দোলন করার পথ। এই জন্য তারা নানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমও ব্যবহার করছে। এগুলো তারা করতে পারবে না। এই কারণে এখন গোয়েন্দা নেটওয়ার্কও তাদেরকে ধরার জন্য তৎপর হয়ে উঠছে। যে সব সমকামীরা ঘরের বাইরে এসে সামাজিকভাবে অন্যদের মধ্যে সমকামীতা ছড়ানোর চেষ্টা করছে তা মানা হবে না।

সূত্র জানায়, সমকামীদের অধিকার আদায়ের জন্য কাজ করা জুলহাজ হত্যাকান্ডের শিকার হওয়ার পর সাময়িক সময়ের জন্য তারা কর্মকান্ড প্রকাশ্যে বন্ধ করার উদোগ নিয়েছে। গোয়েন্দারাও ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা এমনভাবে তাদেরকে গোয়েন্দা জালে আটকাতে চাইছে যাতে করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, সমকামিতা নিয়ে যে আন্দোলন করার চেষ্টা করা হচ্ছে, সেটা আমাদের ধর্মে, সমাজে নিষিদ্ধ। পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশেই এটা নিষিদ্ধ। আমাদের দেশের সমস্ত ধর্মের প্রধানরা এটা নিষেধ করেছেন। এটাও একটা অপরাধ। কাজেই এদেশে এটার প্রচার প্রচারণা করা যাবে না। যারা এটা করবে তা মেনে নেওয়া হবে না। এই ধরনের প্রচারণা বন্ধ করার ও এই ব্যাপারে সংযত হওয়া উচিত বলেও মত দেন।

যুক্তরাষ্ট্র মনে করছে, সরকারের এমন মনোভাবে এসব ব্যক্তিদের হত্যায় উৎসাহী হবে অন্যরা। একের পর এক হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটলেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সহকারী পররাষ্ট্র মন্ত্রী নিশা দেশাইকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, আমরা সবাইকে সুরক্ষা দিচ্ছি। সবাইকে রক্ষার দায়িত্ব সরকারের। এ ধরনের হত্যা যাতে না হয় সে চেষ্টা করছি। আবার ধর্মবিরোধী লেখা যাতে কেউ না লেখেন, সে আহবানও জানাচ্ছি।

এদিকে সরকার সমকামিদের অধিকারের ব্যাপারে ও সমকামিতা বাংলাদেশের সমাজে নিষিদ্ধ। এই কারণে সরকার এরপক্ষে কোন ধরনের প্রচারণাও চালাতে দিবে না। এই কারণে সরকার ২০১৪ সাল থেকে বের হওয়া রপবান বন্ধ করে দিচ্ছে।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, রূপবান পত্রিকা যখন বের হয়, তখন তারা বলেনি, এ ধরনের লেখা বের হবে। তারা বিষয়টি গোপনে করেই অনুমতি নেয়। পরে যখন দেখা গেল তারা এলজিবির পক্ষে লিখছে, আমরা দেখছি, আমরা বন্ধ করবো। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই ধরনের লেখা নিষিদ্ধ দাবি করে বলেছেন, এ ধরনের কর্মকান্ড বা প্রকাশনা যখনই নজরে পড়ছে, তখনই তা বন্ধ করা হয়েছে। ও করা হচ্ছে। আরও হবে।

তিনি জানান, পহেলা বৈশাখে সমকামীরা মিছিল করেছে। তাদের ওই মিছিলের কথাও নিশা দেশাইকে জানিয়েছেন। বলেছেন, পহেলা বৈশাখে পুলিশ সেটা প্রতিহত করে বলে বড় ধরনের কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি। বইমেলাতেও ইসলাম বিতর্ক নামে একটা বই বের হওয়ার কথা ছিল, পুলিশ তা বন্ধ করে। ২০১৪ সাল থেকে প্রকাশিত সমকামী অধিকার বিষয়ক ম্যাগাজিন রূপবান প্রথম এই পহেলা বৈশাখে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নজরে আসে। এর পরেই তা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

একটি বিশেষ সূত্র আভাস দিয়ে বলেছে, বাংলাদেশে পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করার চেষ্টা চলছে। সেই সব ঘটনা যাতে না ঘটে সেই জন্য সব ধরনের সতর্কতা মূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।আস

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/৮ মে ২০১৬

Related posts