November 13, 2018

‘এবার মাদারীপুরে হিন্দু কলেজ প্রভাষককে কুপিয়ে জখম’

Madaripur 15-06-16 (The college lecturer stabbed in Madaripur)অজয় কুন্ডু, মাদারীপুর প্রতিনিধি: মাদারীপুর সরকারী নাজিমউদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের শিক্ষক রিপন চক্রবর্তীকে বুধবার সারে ৫বিকালে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে জখম করেছে। এঘটনায় প্রিন্স ফাইজুল্লাহ নামে এক কলেজ ছাত্রকে আটক করেছে পুলিশ।
জানা গেছে, সরকারী নাজিমউদ্দিন বিশ^বিদ্যালয় কলেজের গণিত বিভাগের শিক্ষক রিপন চক্রবর্তী শহরের কলেজের পেছনে সেবাবাহান মুন্সির বাড়িতে ভাড়া থাকেন। বুধবার বিকেল ঐ বাড়ির দরজায় নক করে। এসময় ঐ শিক্ষক দরজা খোলা মাত্রই ৩ জন সন্ত্রাসী এলোপাথারীভাবে কোপাতে থাকে।
শিক্ষকের চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। তবে স্থানীয়রা একজনকে ধাওয়া করে আটক করা হয়।
এ সময় স্থানীয়রা ঐ শিক্ষককে উদ্ধার করে প্রথমে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ ব্যাপারে সরকারী নাজিমউদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ হিতেন চন্দ্র মন্ডল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঐ শিক্ষকের অবস্থা গুরুতর। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এরা জঙ্গি সংগঠনের সদস্য। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে আটক কলেজ ছাত্র নিজেকে প্রিন্স ফাইজুল্লাহ পরিচয় দিয়েছে। আটক কলেজ ছাত্র ঢাকার উত্তরার একটি কলেজের দ্বাদশ শ্রেনির ছাত্র। তার পিতা গোলাম ফায়জুল্লাহ একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে কর্মরত। পরিবারসহ সে ঢাকার উত্তরাতে থাকে। গ্রামের বাড়ি চাপাইনবাবগঞ্জ।
সর্বশেষ সংবাদ লেখা পর্যন্ত আটক যুবকের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

জিজ্ঞাবাদ কালে মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম কুমার পাল, এএসপি মনিরুজ্জামান ফকির, ওসি জিয়াউল মোর্শেদ উপস্থিত ছিলেন। তবে সাংবাদিকদের কাছে তৎক্ষনাত কিছু কলতে রাজি হয়নি।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসরা মো. আবু সফর জানান, প্রভাষক রিপন চক্রবর্তীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে প্রাথমিক চিকিৎকসা শেষে বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আহত প্রভাষকের মাথার পিছনে গুরুতর জখম রয়েছে।

Related posts