September 26, 2018

এবার ঝালকাঠিতে প্রতিমা ভাংচুর: সংঘর্ষে এসআইসহ আহত ১০

রমজানুল মোরশেদ, ঝালকাঠি প্রতিনিধি: ঝালকাঠি শহরের কেন্দ্রীয় কালিবাড়ি মন্দিরে কার্ত্তিক ঠাকুরের একটি প্রতিমা ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়াগেছে। পার্শ্ববর্তী ব্যবসায়ীদের সাথে জমি নিয়ে দ্বন্দ্বের কারনে মন্দির পরিচালনা কমিটির সদস্যরা নিজেরাই এ হামলা চালিয়ে ব্যবসায়ীদের দোষারপ করছে বলে জানাগেছে। এতে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে পুলিশের এসআই শাহাদাত, চাল বিক্রেতা মানিক দেবনাথ, গোপাল দেবনাথ, আবুল বাশার হাওলাদার ও বাবুল হাওলাদারসহ কমপক্ষে ১০ আহত হয়েছেন।

গত বুধবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মন্দির কমিটি ও মন্দির সংলগ্ন বারচালার চাল ব্যবসায়ীদের মধ্যে জমি নিয়ে দীর্ঘ দিনের দ্বন্দ্ব চলছিল। কালীবাড়ি মন্দির কমিটি বারচালার ব্যবসা কেন্দ্রে টিনের বেড়া দিয়ে মন্দিরে প্রবেশ পথের মধ্যে দিয়ে ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের একটি যাতায়াতের পথ রাখে। কার্তিক পূজার শেষে সেই পথটিও টিনের বেড়া দিয়ে আটকিয়ে দেয়ার ফলে ব্যবসায়ীদের যাতায়াতের পথও বন্ধ হয়ে যায়। এসময় পুলিশের সহযোগিতায় ব্যবসায়ী দুলাল নাথ, দুলাল দেবনাথ, আব্দুল হকিম ও গোপাল টিনের বেড়া ভেঙে ফেলে। কার্তিক পূজারীরাও তাঁদের প্রতিহত করলে দু’গ্রুপের সংঘর্ষ বাধে। উভয় পক্ষের ইটপাটকেল নিক্ষেপে ৪ জন চাল ব্যবসায়ী ও সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে রাতে টহলে থাকা এসআই শাহাদাতসহ কমপক্ষে মোট ১০ আহত হয়। এক পর্যায়ে মন্দিরের সদস্যদের মধ্যে যে কেউ একজন কার্তিক প্রতিমার মুন্ডু ভেঙে ফেলে বলে চাল ব্যবসায়ীরা জানিয়েছে। আহতরা সদর হাসপাতাল ও স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে।

এদিকে মন্দিরে হামলা ও প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনায় দোষীদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর বিক্ষোভ মিছিল করেছে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন। ঘটনার খবর পেয়ে বরিশালের ভারপ্রাপ্ত ডিআইজি আকরাম হোসেন, ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক মো. মিজানুল হক চৌধুরী, পুলিশ সুপার মো. জোবায়েদুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তারা মন্দির কমিটির কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে বিচারের আশ্বাস দেন বরিশালের ডিআইজি (ভারপ্রাপ্ত) ডিআইজি আকরাম হোসেন ।

অন্যদিকে এ ঘটনায় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মকবুল হোসেনকে প্রধান করে এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। তদন্ত কমিটিকে সাত কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. মিজানুল হক চৌধুরী। এ ঘটনায় চাল ব্যবসায়ীরা ঝালকাঠি প্রেস ক্লাবে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেল করেছেন। এতে তারা অভিযোগ করেছেন, মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রনব কুমার নাথ ভানুর নেতৃত্বে মন্দির সংলগ্ন চালের দোকানে হামলা ও লুটপাট করা হয়। এসব দোকান থেকে নগদ এক লাখ ২৪ হাজার টাকা লুটে নেয় এবং মালামাল নষ্ট করে তারা। পরে নিজেরাই মন্দিরের প্রতিমা ভাংচুর করে, উল্টো চাল ব্যবসায়ীদের দোষারোপ করা হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান চাল ব্যবসায়ী দুলাল বেদনাথ। এ সময় চাল ব্যবসায়ী আব্দুল হাকিম হাওলাদার ও দুলাল চন্দ্র দেবনাথ। মন্দিরের হামলা ও প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির। তবে কালীবাড়ি মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রণব কুমার নাথ ভানুর দাবি, মন্দিরের পাশের দোকান মালিকদের সঙ্গে একটি মামলা চলছে, এ কারণে তারা এই হামলা চালাতে পারে।

 

Related posts