September 23, 2018

এবার কালীগঞ্জে সাদা পোশাকে মসজিদের ইমামকে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ!


জাহিদুর রহমান
ঝিনাইদহ থেকেঃ
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে সাদা পোশাকে আইনশৃংখলা বাহিনীর পরিচয়ে আব্দুল হাই (৩৫) নামে মসজিদের এক ইমামকে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। কালীগঞ্জ উপজেলার ষাটবাড়িয়া গ্রাম থেকে দু’টি মটরসাইকেলে ৪ জন তাকে তুলে নিয়ে যায়।

এ ঘটনার পর বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তার খোঁজ মেলেনি। এদিকে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ এ নামের কাউকে আটক না করলেও ঘটনাটি মৌখিক শুনেছেন বলে জানান। ষাটবাড়িয়া মসজিদের ইমাম ও পেশায় হোমিও চিকিৎসক আব্দুল হাই ওই গ্রামের মৃতঃ আশরাফ মহুরির ছেলে।

আব্দুল হাইয়ের পরিবার ও এলাকাবাসীরা জানায়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ পাশ মেধাবী ছাত্র আব্দুল হাই ষাটবাড়িয়া গ্রামের মসজিদে ইমামতি ও বাচ্চাদের আরবি পড়াতেন। বুধবার দুপুর ১ টার দিকে দুই মটরসাইকেলে করে ৪ জন সাদা পোশাকের লোক এসে তাকে তুলে নিয়ে যায়। এ সময়ে উপস্থিত প্রতিবেশিরা ঘটনা জানতে চাইলে তারা আইনশৃংখলা বাহিনীর পরিচয় দেয়।

এলাকবাসীরা আরো জানায়, হাইকে তুলে নিয়ে যাবার প্রায় ১ ঘন্টা পর সেখানে র‌্যাব ও ডিবি পুলিশের দুটি টিম উপস্থিত হয়ে কয়েকটি বাড়িতে তল্লাশী চালায়। এ সময়ে র‌্যাব স্থানীয় এক ইউপি সদস্যকে তাদের গাড়ীতে তোলার কিছু সময় পর আবার তাকে ছেড়ে দিয়ে চলে যায়। পরে বিকালে হাই এর পরিবারের পক্ষ থেকে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ ও বিভিন্ন দপ্তরে যোগাযোগ করেও তার কোন খোঁজ পায়নি।

এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) জানান, তার থানার কোন পুলিশ উক্ত গ্রামে অভিযান চালায়নি। আর হাই নামের কাউকে আটক না করলেও ঘটনাটি মৌখিক তিনি শুনেছেন বলে জানান।

আরও খবর…………
            
হরিণাকুন্ডু সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারের এলাহী!

ছুটি না নিয়েই একাধারে দীর্ঘদিন কর্মস্থলে অনুপস্থিত রয়েছেন ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু সহকারী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার। এতে অফিসের কাজকর্ম চরমভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে।

সূত্রে জানা গেছে, সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার হিসেবে প্রায় তিন বছর আগে হরিণাকুন্ডুতে যোগদান করেন এস এম নূর-এ এলাহী।

যোগদানের পর থেকেই তিনি নানা বিতর্কের জন্ম দিয়ে আলোচনায় উঠে আসেন। শিক্ষকদের সাথে খারাপ আচরন, অহেতুক শিক্ষকদের শোকচ করা, শিক্ষকদের হুমকি দেয়া, শিক্ষকদের নামে ডিডি করা ও ক্লাষ্টার মিটিংয়ে শিক্ষকদের জন্য বরাদ্ধকৃত টাকা কম দেয়াসহ নানাবিধ অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে এ শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।

একজন সহকারী শিক্ষককে বিনা কারনে বদলী করে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে আসেন তিনি।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলার একাধিক শিক্ষক জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তা আমাদের সাথে কারনে অকারনে খারাপ আচরন করে থাকেন। শিক্ষকদের মধ্যে গ্রুপিং সৃষ্টি করে ফায়দা লুটে থাকেন এ কর্মকর্তা।

উপজেলার শিক্ষকদের নিয়ে রাজনীতিও করে থাকেন তিনি। একমাস অর্জিত ছুটি নেয়ার পরও কিভাবে ওই কর্মকর্তা একধারে কর্মস্থলে অনুপস্থিত রয়েছেন তা নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন।
এক নাগাড়ে অফিসে অনুপস্থিত থাকায় অফিসের কাজকর্ম চরম ভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে। একজন শিক্ষককে দিয়ে অফিসের তার কাজগুলো করানো হচ্ছে। ওই কর্মকর্তাকে নিয়ে অনেক গুজবও শোনা যাচ্ছে। শিক্ষকরা ওই কর্মকর্তার খুটোর জোর নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। সম্প্রতি একজন সহকারী শিক্ষককে কারন ছাড়াই তিনি শোকচ করেছেন।

নুর-এ এলাহী শিক্ষকদের প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও বিভাগীয় উপ-পরিচালকের ভয় দেখান। তিনি কেন এ দু’জন কর্মকর্তার ভয়  দেখান এটি এখন সাধারন শিক্ষকদের কাছে প্রশ্ন হয়ে দাড়িয়েছে।

এছাড়া ২০১৫ সালের বার্ষিক পরীক্ষার সহ-পাঠ্যক্রমিক প্রশ্নে ২০১৬ সালের ১ম সাময়িক পরীক্ষা নেন সহকারী শিক্ষা অফিসার এস এম নুর-এ এলাহী। হাতে লেখে এবং ফটোকপি করে পরীক্ষা নেয়া হয়। প্রায়ই শিক্ষকদের রান্না করে খাবার নিয়ে আসতে বলেন তিনি।

দীর্ঘদিন ধরে একই কর্মস্থলে থাকায় পূর্বেও এ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নানা প্রকার অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। এক নাগাড়ে এক উপজেলায় চাকরী করার সুবাদে তিনি কোন কিছুকেই তোয়াক্কা করেন না। এসব বিষয়ে সহকারী শিক্ষা অফিসার এসএম নুর-এ এলাহীর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকার বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মনোয়ার হোসেন রঞ্জু বলেন, ২৯ জুন নূর-এ এলাহী মৌখিক ভাবে আমাকে জানিয়েছেন। তবে তিনি কোন লিখিত আবেদন দেন নি অফিসে। কবে অফিসে আসবেন তাও তিনি বলতে পারছেন না।

তবে এ বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আতাউর রহমান জানান, লিখিতভাবে ছুটি না নিয়ে কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকলে ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে শোকজ করাসহ প্রয়াজনীয় আাইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিষয়টি বদলীসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন হরিণাকুন্ডুর শিক্ষকবৃন্দ।
দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ১৫/০৭/২০১৬

Related posts