November 20, 2018

এক নজরে নারায়ণগঞ্জ

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  দীর্ঘ ২ বছর ৩ মাস পর নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হয়েছে। এদিকে জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি নেই ১৩ বছর ধরে। তবে এবার নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের কমিটিও হচ্ছে অচিরেই তার আভাস দিয়েছে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ যেসব জেলায় দলের সম্মেলন হয়েছে, সেসব জেলার কমিটিগুলো শিগগিরই পূর্ণাঙ্গ করতে নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন নিয়ে যখন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে চাঙ্গাভাব তৈরি হয়েছে ঠিক তেমনি জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি না থাকায় অনেকটা আক্ষেপও রয়েছে পদ প্রত্যাশী নেতাদের। তবে জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি অনেক আগেই হয়ে যেতো। কিন্তু আওয়ামীলীগের মধ্যে গ্রুপিং এর কারণে জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি আটকে আছে। দীর্ঘ বিরোধের পর মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা একমত হয়ে কেন্দ্রে কমিটি জমা দেয়ার পর এ পূর্নাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেন প্রধানমন্ত্রী।

তবে এদিকে অনেক আগেই নেতাকর্মীদের মধ্যে গুঞ্জন শুরু হয়ে যায় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি করা হচ্ছে জেলা পরিষদের প্রশাসক আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক করা হচ্ছে জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপুকে। তবে ওই কমিটির গঠনের প্রক্রিয়া অনেকটা এগিয়েছিল বলেও জানা গেছে। কিন্তু সেখানে বাধা হয়ে দাড়ায় এমপি নজরুল ইসলাম বাবু। এদিকে আনিসুর রহমান দিপু হয়েছেন আইনজীবী সমিতির সভাপতি পাশাপাশি তাকে মহানগর আওয়ামীলীগের দ্বিতীয় নম্বর সদস্য করা হয়েছে। ফলে তার সম্ভাবনা অনেকটাই ফিকে হওয়ার পথে। তবে প্রধানমন্ত্রী অনেক আগেই বলেছেন যারা সংসদ সদস্য তারা যেনো দলীয় পদ বহনে আগ্রহী না হয়। যে কারনে এমপি নজরুল ইসলাম বাবু, এমপি গাজী গোলাম দস্তগীর, সাবেক এমপি কায়সার হাসনাত ও নারায়ণগঞ্জ সিটিকর্পোরেশনের মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভী জেলা আওয়ামীলীগের গুরুত্বপূূর্ন পদে আসতে কাজ করছেন। যেখানে মেয়র আইভীকে সামনে রাখার চেষ্টা করা হবে। যদিও এর মধ্যে মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠনে আইভীর নাম ছিল না।

জানা গেছে, দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটি। ২০০২ সালের ২৭ মার্চ ঢাকার সোহাগ কমিউনিটি সেন্টারে ৬৩ সদস্য বিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এরপর আভ্যন্তরীন কোন্দলে জর্জরিত থাকা আওয়ামীলীগে দু’টি ধারা বিরাজমান ছিল। একটি অংশের নেতৃত্বে ছিলেন সাবেক এমপি ও জেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক এসএম আকরাম। অপর অংশের নেতৃত্বে ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামীম ওসমান।

২০১১ সালের নভেম্বর মাসে জেলা আওয়ামীলীগের আহবায়কের পদ থেকে পদত্যাগ করে সাবেক এমপি এসএম আকরাম যোগ দেন নাগরিক ঐক্যে। এরপর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে সাবেক এমপি শামীম ওসমানের সঙ্গে সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর বিরোধ দেখা দেয়। যা পরবর্তীতে ত্বকী হত্যাকান্ড নিয়ে উত্তাপ ছড়ায়। তবে মেয়র আইভী রাজনীতিতে নিস্ক্রিয় হয়ে পড়ায় এবং ওসমান পরিবারের পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর অবস্থানের কারনে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের উপ নির্বাচনে সেলিম ওসমানের পক্ষেই অবস্থান নেয় মেয়র আইভীপন্থী আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা। উপ নির্বাচনে সেলিম ওসমান সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পরই মূলত পাল্টে গেছে জেলা আওয়ামীলীগের রাজনীতির হালচাল। বর্তমানে আওয়ামীলীগ একাট্টা হয়েই দলীয় কর্মসূচী পালন করে আসছে।

এদিকে জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি পুর্নগঠনের খবরে নড়েচড়ে বসতে শুরু করেছে পদ প্রত্যাশীরা। ইতিমধ্যে জেলা আওয়ামীলীগের শীর্ষ পদের প্রত্যাশী হিসেবে জেলা পরিষদের প্রশাসক আব্দুল হাই, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ জুট এসোসিয়েশনের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান আরজু রহমান ভূইয়া, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিছুর রহমান দিপুর নাম শোনা যাচ্ছে। ২০১৩ সালের ১১ সেপ্টেম্বর আনোয়ার হোসেনকে সভাপতি ও অ্যাডভোকেট খোকন সাহাকে সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করে মহানগর আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন করার পর ২৬ নভেম্বর পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  ২০১৫ সালের বছরের শুরুতেই সারাদেশে সংঘর্ষ বোমাবাজি, হতাহত ও গ্রেফতারের ঘটনা। এসব ঘটনা ঘটেছে নারায়ণগঞ্জেও। ৫জানুয়ারী থেকে ঘটে যাওয়া এসব ঘটনার পরই আত্মগোপনে চলে যায় নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা। আর গ্রেফতার হয়ে কারাগারে যায় কয়েকশ বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা। জেল খেটেছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম, শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ ও জেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মাসুকুল ইসলাম রাজীব সহ কয়েকশ নেতাকর্মীরা কারাভোগ করেছেন।

৫ জানুয়ারী সারাদেশে দিনটিকে কালো দিবস আখ্যা দিয়ে বিএনপির চেয়ারপাসন বেগম খালেদা জিয়া কালো পতাকা মিছিল ঘোষণা করেছিলেন। ওই দিন বন্দরে পুলিশের সাথে বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। যেখানে নেতৃত্ব দিয়েছেন সাবেক এমপি আবুল কালাম ও বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মুকুল। ওই ঘটনায় ব্যাপক ভাংচুর গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বন্দর থানায় অ্যাডভোকেট আবুল কালাম, আতাউর রহমান মুকুল সহ কয়েকশ বিএনপি জামাতের নেতাকর্মীদের আসামী করে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়। যার মধ্যে একটি দ্রুত বিচার আইনের মামলাও রয়েছে।

ওইদিন শহরের চাষাঢ়ায় জেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। যেখানে যুবলীগের এক নেতা ছাত্রদলের মিছিলে গুলিও করেছিলেন। ওইদিন ১০ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছিল। ওই ঘটনায় সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়। এছাড়াও ওইদিন বিভিন্ন থানা এলাকায় পুলিশের সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার করা হয় অর্ধশত নেতাকর্মীদের। এর পর ৬ জানুয়ারী খানপুর এলাকায় জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমূর আলম খন্দকারের নেতৃত্বে মিছিল নিয়ে বের হলে পুলিশের সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে দশ জন আহত হয়েছিল। ওই ঘটনায়ও সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়।
এছাড়াও ৯ জানুয়ারী শহরের নিতাইগঞ্জ এলাকায় তৈমুর আলম খন্দকার মিছিল নিয়ে বের হলে সেখানেও পুলিশের সাথে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় সদর মডেল থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়। যেখানে বিএনপির কয়েকশ নেতাকর্মীদের আসামী করা হয়। যার একটি দ্রুত বিচার আইনের মামলা।

এখনো আত্মগোপনে রয়েছে জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের আহ্বায়ক জাহিদ হাসান রোজেল, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক শাহ ফতেহ মোহাম্মদ রেজা রিপন, মশিউর রহমান রনি, মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক সাহেদ আহম্মেদ, শেখ মোহাম্মদ অপু সহ কয়েকশ নেতাকর্মীরা আত্মগোপনে রয়েছেন। যদিও জেলা বিএনপির সভাপতি কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার নিজেকে আত্মগোপনে দাবি করলেও যা নিয়ে নানা কথা রয়েছে। কারণ তাকে নিয়মিতই নারায়ণগঞ্জ জেলার বিভিন্ন এলাকায় দেখা যায়।

চলতি বছরের ২৫ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ আদালতে আত্মসমর্পন করে শহর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান আহম্মেদ, যুগ্ম সম্পাদক নুরুল হক চৌধূরী দিপু, মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, যুগ্ম আহ্বায়ক মাসুদ রানা, রানা মুজিব, মহানগর ছাত্রদলের আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম সজল, যুগ্ম আহ্বায়ক রশিদুর রহমান রশু, যুবদল নেতা মাহাবুব হাসান জুলহাস, শ্রমিকদল নেতা রাফিউদ্দীন রিয়াদ। ইতিমধ্যে তারা প্রায় দু মাস কারাভোগ করে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। এর কদিন পর আত্মসমর্পন করেছিলেন শহর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম যিনি জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।

এর আগে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়ে কারাভোগ করেছেন শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, সহ-সভাপতি সুরুজ্জামান, হাজী শাহিন, দপ্তর সম্পাদক আক্তার হোসেন খোকন শাহ, আড়াইহাজার থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবু, বন্দর থানা বিএনপি নেতা কাউন্সিলর হান্নান সরকার, কাউন্সিলর সুলতান আহম্মেদ, ফতুল্লা থানা স্বেচ্ছাসেবকদলের যুগ্ম আহ্বায়ক রুহুল আমিন প্রধান, শ্রমিকদল নেতা তুষার আহম্মেদ মিঠু, ছাত্রদল নেতা সাগর সিদ্দিকী. সিদ্ধিরগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ইমাম হোসেন বাদল, জেলা ছাত্রদলের সাবেক দপ্তর সম্পাদক দিদার খন্দকার, যুবদল নেতা আল আমিন খান সহ কয়েকশ নেতাকর্মীরা কারাভোগ করেছেন। তবে মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের পিএস রাজু আহম্মেদ জেল খেটেছেন দশ মাস। এখনও বেশকজন নেতা কারাগারে রয়েছেন। অনেক নেতাদের আদালতে নিয়মিত হাজিরা দিতে যেতে হচ্ছে।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জ শহরের যানজট নিরসনে সহযোগিতার যে কথা বলেছেন তাতে করে সিটি করপোরেশন এর মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভীর ‘থ্যাংক ইউ’ প্রত্যাশা করেছিলেন এমপি শামীম ওসমান। তিনি বলেছেন, ‘আমরা যানজট মুক্ত করে সিটি করপোরেশনকে একটি পথ দেখিয়ে দিতে চাচ্ছি যে পথে এগুলে শহরের যানজট নিরসন সম্ভব। আমি শুক্রবার সে প্রস্তাব দিয়েছিলাম। এর প্রেক্ষিতে আমি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভীর কাছে অন্তত একটি ‘থ্যাক ইউ’ প্রত্যাশা করেছিলাম। আমরা এমপি আমরা সব এলাকার কাজ করতে পারি। কিন্তু মেয়র সেটা না করে উল্টো আমাদের বিরুদ্ধে বলেছে আমরা নাকি ফুটপাত থেকে চাঁদাবাজী করি। এসব অবান্তর। ফুটপাত অবশ্যই উচ্ছেদ প্রয়োজন তবে সেটা কখনই কোন উৎসবের আগে না। বরং ফুটপাত উচ্ছেদ করে নির্দিষ্ট জায়গা নির্ধারণ করে দিতে হবে।’
রোববার সকালে নারায়ণগঞ্জ শহরের রাইফেল ক্লাবে ‘দৈনিক কালের কণ্ঠ’ এর ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে কেক কাটার আগে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

কালের কণ্ঠের পাঠক সংগঠন শুভসংঘ এর জেলা কমিটির সভাপতি চন্দন শীলের সভাপতিত্ব ও জেলা প্রতিনিধি দিলীপ কুমার মন্ডলের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) গাউছুল আজম, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি সাইফউল্লাহ বাদল, সেক্রেটারী এম শওকত আলী, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান পরিষদের সভাপতি গোপীনাথ দাস, মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাফায়েত আলম সানি, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান (নারী) ফাতেমা মনির, সদর মডেল থানার ওসি আব্দুল মালেক, নারায়ণগঞ্জ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন জেলা কমিটির সভাপতি তাপস সাহা, নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডট কমের নির্বাহী সম্পাদক তানভীর হোসেন, আলোকিত বাংলাদেশ এর নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি শরীফ সুমন, যুগান্তর সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি হোসাইন চিশতী শিপলু, ফতুল্লা প্রতিনিধি আল আমিন প্রধান, বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিনিধি এম এ শাহীন, কালের কণ্ঠের রূপগঞ্জ প্রতিনিধি শাহাদাৎ হোসেন, ফতুল্লা রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি রঞ্জিত মোদক, সাংবাদিক জাহাঙ্গীর হোসেন, নাসিরউদ্দিন, সনদ সাহা সানি, শাহাদাৎ হোসেন, মামুন হোসেন, পারভেজ, বাংলা নিউজ টুয়েন্টি ফোর ডট কমের রূপগঞ্জ প্রতিনিধি সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদ নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সভাপতি লিটন কুমার পাল, সাধারণ সম্পাদক নিমাই দে, সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রঞ্জিত ম-ল, কালের কণ্ঠ শুভ সংঘের জেলা সাধারণ সম্পাদক ইমতিয়াজ ওমর সুমন, সহ সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার দাস, প্রচার সম্পাদক অমিত মন্ডল, মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক উত্তম সাহা, কোষাধ্যক্ষ সুশীল দাস, কমলেশ সাহা, ফতুল্লা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু মো. শরীফুল হক প্রমুখ।

শামীম ওসমান বলেন, ‘গুটি কয়েক মিডিয়া এখন নিউজ তৈরি করে যা ভালো কাজ না। নিউজ তৈরি না করে যা ঘটনা সেটাই তুলে ধরা উচিত।’

কালেরকণ্ঠ পত্রিকা সম্পর্কে বলেন, বাংলাদেশের অন্যন্য পত্রিকার চেয়ে কালের কণ্ঠ পত্রিকা অবশ্যই ভিন্ন।  এ পত্রিকার সম্পাদক যিনি একজন লেখক, সাহিত্যিক ও স্বাধীনতার পক্ষের এবং শ্রদ্ধার প্রাপ্য ইমদাদুল হক মিলন। ওনার শক্ত মানসিকতায় তিনি এ পত্রিকার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।

‘সাংবাদিকতা করপোরেট হাউজের অধীনে চলে গেলেও আত্ম স্বকীয়তা বিসর্জন না দেওয়াটাই একজন সৎ সাংবাদিকের কাজ’ বক্তব্যে যোগ করেন এ এমপি যিনি বক্তব্যের এক পর্যায়ে বলেন, ‘কিছু কিছু সাংবাদিক এখনও থানায় কোর্টে গিয়ে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। অনেক স্থানীয় পত্রিকা সুষ্ঠু সংবাদ করে না। আমরা ইচ্ছে করলেই ব্যবস্থা নিতে পারি। এক চিঠিতে অনেক কঠোর হওয়া যেতে পারে। কিন্তু আমরা সেটা করি না কারণ সেটা আমাদের কাজ না।’

‘মাদক, সন্ত্রাস, ইভটিজিং, ভূমিদস্যুতা, সন্ত্রাস’ এ ৫টি অপরাধকে গুরুতর উল্লেখ করে এসব রোধে সকলের সহযোগিতা চান শামীম ওসমান যিনি প্রথমবার ১৯৯৬ হতে ২০০১ সালেও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি ছিলেন। তিনি বলেন, ‘১২ জানুয়ারী আমরা শহরের চার পয়েন্টে যানজট নিরসনে মাঠে নামবো। আমরা চাচ্ছি উন্নত একটি নারায়ণগঞ্জ গড়ে তুলতে। আগামী ৩ বছর ক্ষমতার সময়ে বেঁচে থাকলে সেটা সম্ভব মনে করছি।’

শামীম ওসমান বলেন, আমি স্পষ্ট ভাষী কথা বলতে চাই এজন্য আমার সমালোচনাও বেশি, আমার শত্রু বেশি, বদনাম বেশি। যারা সত্য কথা বলে তাদের শত্রুর সংখ্যা নির্দিষ্ট থাকে, তাদের বন্ধুর সংখ্যাও নির্দিষ্ট থাকে। বাংলাদেশের একটি পত্রিকা বাংলাদেশের অনেক ঘটনার নেপথ্যের কাজ করেছে। সেই পত্রিকাটি ওয়ান এলিভেন থেকে শুরু করে বিভিন্ন ঘটনার নেপথ্যের নায়ক। সেই পত্রিকারই সাংবাদিক আমার বড় ভাইয়ের নির্বাচনের রেজাল্ট বের হয়ে গেছে তারা অন্য পরিচয়ে আমার সঙ্গে কথা বলেছিল তার অন্যান্য কথার প্রেক্ষিতে ওই কথাটা আলোচনা করেছিলাম। সাংবাদিকের দ্বায়িত্বটা কি। সাংবাদিকের দ্বায়িত হচ্ছে নিউজ লেখা নিউজ তৈরি করা না।

কিন্তু দেশের কয়েকটা পত্রিকা এটাকে এমন ভাবে উপস্থাপন করছে নিউজ তৈরি করে নিউজ লিখে না। এ নিয়ে একটা চক্রান্ত সৃষ্টি করেছে। তবে চকচক করলে যেমন সোনা হয় না তেমনি। মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে এক পর্যায় পর্যন্ত যাওয়া যায় কিন্তু তা দীর্ঘ স্থায়ী হয় না। নেগেটিভ কিছু দিয়ে বাংলাদেশের মানুষকে আকৃষ্ট করার চেষ্টা করছে। বিভিন্ন দেশে ২০০১ এর পর বসবাস করেছি। ওই সব দেশে পত্রিকার গুলোর সম্পাদকেরা চায় না যে তাদের পত্রিকার লিড নিউজ দেখে তাদের তরুণ প্রজন্ম নতুন প্রজন্ম নেগেটিভে আকৃষ্ট হয়। কারণ কিশোর বয়সের নেগেটিভের দিকে বেশি আকৃষ্ট থাকে। নেগেটিভিটির মধ্যে মানুষের মধ্যে আকৃষণ জন্মগত ভাবে আসা।

প্রথম আলো পত্রিকার সমালোচনা করে শামীম ওসমান বলেন, বাকস্বাধীনতার নামে বাংলাদেশে অনেক পত্রিকা বের হয়েছে। নারায়ণগঞ্জেই এত পত্রিকা যে পৃথিবীর আর কোথাও নেই হয়তো। তবে এসব পত্রিকার গুলোর মধ্যে কালের কষ্ঠ সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করছে। তবে ১০০ ভাগ সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করছে বলে সেটা বলবো না। কারণ এখন বর্তমানের মানুষকে নেগেটিভে অব্যস্ত করিয়েছে। মানুষের স্বাদটা বদলিয়ে দেয়া হচ্ছে ‘আই ওয়ান্ট নেগেটিভ’। এসব কারণে প্রথম আলো মতো পত্রিকার মানদ- নেই। মানুষের কাছে মান কমে গেছে।

করপোরেট হাউজ সম্পর্কে বলেন, সারা বিশ্বের পত্রিকা অফিস এখন করপোরেট হাউজ। বিলিয়নারা বিভিন্ন দেশের সমস্যা সৃষ্টি করতে কাজ করে।  এ ক্ষেত্রে নিজেকে পরিবর্তন করা উচিত। তা না হলে একজন খারাপ মানুষের সঙ্গে আপনার কোন পার্থক্য থাকবে না। যে কাজের নিজের ইমানকে বিক্রি করে দেয়া হচ্ছে নিজের সক্রিয়তাকে বিক্রি করে দিতে হয়। যে কাজ করলে মানের শান্তি না আসে, নিজের সম্মান না থাকে আমার মনে হয় সেই কাজ না করে অন্য কাজ করা উ”ত। এ পৃথিবীতে কেউ পারফেক্ট না। আমরা কেউ পারফেক্ট না সবার মাঝোই ভুল ত্রুটি আছে।

শামীম ওসমান আরো বলেন, ১৫ বছর আগে আমার চিন্তা চেতনা যেমন ছিল এখনকার চিন্তা চেতনা এক না। অনেক পরিবর্তন এসেছে। এখন গঠন মূলক সমালোচনা করেন। কিন্তু কিছু পত্রিকা তাদের কার্ড বানিয়ে থানার দালালী করে। পত্রিকার কার্ড দিয়ে প্রশাসন থেকে সুবিধা আদায় করার চেষ্টা করে।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  আগামী ১২ তারিখে দুপুরে আমি মাঠে নামবো নারায়ণগঞ্জ সরকারি তোলারাম কলেজের বিএনসিসি, সরকারি মহিলা কলেজের বিএনসিসি, মহিলালীগ, ছাত্রলীগের, যুবলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ সহ সকল কর্মীদের নিয়ে। কোন নেতাকমীদের নিয়ে না। নারায়ণগঞ্জের চারটি পয়েন্টে কাজ করবে।
ফুটপাতের দোকান আমরা বসাই না। ফুটপাতের দোকানের কঠোর বিরোধী আমিও। তবে সেটা কেন বছরের চারটা সময়ে হবে। দুই ঈদের ১৫ দিন আগে, পূজার ১৫ দিন আগে, নর্ববর্ষের ১৫ দিন আগে ফুটপাত উচ্ছেদ করেন। এটা বন্ধ করে আসেন আগামী মার্চের ১০ তারিখ ফুটপাতে কোন দোকান থাকবে না। কিন্তু সিটি করপোরেশনের কয়েকজন লোক তাদের ওই সময় উচ্ছেদের নামে দোকানপ্রতি ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা নেয়।

হাকারদের ফুটপাত থেকে উচ্ছেদ করে শহেরর ৫টি স্থানের ৭ দিনের জন্য বিনামূলে ব্যবসা করার জন্য দেয়া হবে। শনিবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত শহরের বিভিন্ন স্থানের বসবে একদিন খানপুর হাসপাতালের সামনে, জীমখান মাঠ, পৌর স্টেডিয়ামসহ বেশ কয়েকটি জায়গা তারা ব্যবসা করবে।  তারা বিনামূল্যে ব্যবসা করতে পারলে কেউ ফুটপাতে বাসতে পারবে না।

নেগেটিভ নিউজ করতে হলে করপোরেট হাউজ লাগে না নেগেটিভ চিন্তা করতে হয়। যার মাথায় নেগেটিভ চিন্তা সেই নেগেটিভ নিউজ করতে পারে। লোকাল পত্রিকা কি আছে না কি লিখে এটা আমরা জানি। এক একেক জনের চরিত্র সম্পর্কে বলতে গেল শেষ হবে না। আমরা এসব মাথায় নেই না। যদি আমরা হাত দেই তাহলে নারায়ণগঞ্জের অর্ধেক পত্রিকা বন্ধ হয়ে যাবে। কোথায় প্রেস, কার কত শিক্ষাগত যোগ্যতা, এসব কিছু সংবাদ পত্রের জন্য লাগে। আমরা একটা ডিউ লেটার দিবো সব পত্রিকা বন্ধ হয়ে যাবে। কিন্তু আমরা সেটা করি না। চলেন আমরা একে অপরের সাহায্য করি। কি হয়েগেছে তা নিয়ে না ভেবে নতুন ভাবে কাজ করি।

নারায়ণগঞ্জ সারা বাংলাদেশের মধ্যে শান্তিপূর্ণ এলাকা দাবি করে শামীম ওসমান বলেন, নারায়ণগঞ্জ সন্ত্রাসী নারায়ণগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ সন্ত্রাসের নারায়ণগঞ্জ। আমাদের নারায়ণগঞ্জটাকে এ নারায়ণগঞ্জকে সাংবাদিকরা লিখে সন্ত্রাসী নারায়ণগঞ্জ বানিয়ে দিচ্ছে। যারা লিখছেন তারাও নারায়ণগঞ্জে বসবাস করেন। দুইএকজন ছাড়া বাকি সবাই। নারায়ণগঞ্জে দুইটি নির্বাচন হয়েছে সারা বাংলাদেশের মধ্যে নিরপেক্ষ নির্বাচন। আমি মনে করি নারায়ণগঞ্জ শান্তিপূর্ণ এলাকা। ক্ষমতা দেখবেন নারায়ণগঞ্জের আশে পাশের কয়েকটা এলাকায় খবর নিয়ে দেখেন  সেখান শুধু মাত্র ছাত্রলীগের ঠেলায় থানার ওসিরা চেয়ার বসে থাকতে পারে না।

সাংবাদিক বসে থাকবে তো দূরের কথা। বিরুদ্ধে লিখবেন দিনের বেলায় লিখবেন রাতের ঠেং ভঙে দিবে রাতের অন্ধকারে চিনতেও পারবেন না। এদের থেকে আমাদের নারায়ণগঞ্জ অনেক ভালো। আমরা ছত্রলীগের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ দিতে পারবেন না। আজ পর্যন্ত কোন অভিযোগ উঠে নাই। তাই বলি যদি কারো কোন অভিযোগ থাকে সেক্ষেত্রে তথ্যগত ভাবে নিউজ দেন। আমরা ব্যবস্থা নিবো। এক মণ দুধে এক ফুট চনা দিতে দিবো না।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  জাতীয়তাবাদী কেন্দ্রীয় যুবদলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ বলেছেন, বাকশালী এই সরকারকে পতনের জন্য আগামী আন্দোলনে প্রধান শক্তি হবে ছাত্রদল। তাই বিরোধ না করে এখনই ঐক্যবদ্ধ হয়ে শক্তিশালী সংগঠন হওয়ায় আহবান জানান। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া সরকার পতনের আন্দোলন সংগ্রামের পুলিশী নির্যাতন ও দীর্ঘ জেলে বন্দী হওয়া নেতাকর্মীদের অবশ্যই সম্মান করবে।

সদ্য কারামুক্ত নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের আহবায়ক মনিরুল ইসলাম সজল ও রাফিউদ্দিন রিয়াদ রোববার দুপুরে তার বাসভবনে দেখা করতে গেলে তিনি একথাগুলো বলেন। ওই সময়ে তারা শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

এ সময় সদ্য কারামুক্ত মনিরুল ইসলাম সজল বলেন, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া আগামীতে সরকার পতন আন্দোলনে মহানগর ছাত্রদলকে সর্বত্র মাঠে পাওয়ার অঙ্গীকার করেন। পূর্বে সরকার বিরোধী আন্দোলন মাঠ পর্যায় থাকায় তার ও তাদের নেতা-কর্মীদের উপর বহু মামলা-হামলা শিকার হয়েছে। পরিশেষে জেলে দীর্ঘ দিন সময় কাটাতে হয়েছে।

সদ্য কারামুক্ত নারায়ণগঞ্জ সদর ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি রাফিউদ্দিন রিয়াদ, নূরে এলাহী সোহাগ, সাইফুল ইসলাম আপন, মিন্টু, সুমন, সজীব ও হৃদয় উপস্থিত ছিলেন।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় জাতীয়তাবাদী যুব আইনজীবী ফোরাম আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছে। রোববার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সামনে থেকে এ মিছিল বের হয়। মিছিলটি ঘুরে আইনজীবী সমিতির সামনে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য শেষে সকল আইনজীবীদের মধ্যে মিষ্টি বিতরন করা হয়। এর আগে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবির যুব আইনজীবী ফোরাম কমিটির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট আনজুম আহম্মেদ রিফাত ও সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট রাসেল মিয়াকে পরিচয় করিয়ে দেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন,আইনজীবী সমিতির আপ্যায়ন সম্পাদক অ্যাডভোকেট এইচএম আনোয়ার প্রধান, অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান মোল্লা, অ্যাডভোকেট টুটুল চৌধুরী, অ্যাডভোকেট মাসুদা বেগম শম্পা, অ্যাডভোকেট তারিকুল ইসলাম বুলবুল, অ্যাডভোকেট আবুল বাশার সহ অন্যান্য আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্যযে, নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়তবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবির ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ভুইয়া পাল্টাপাল্টি এ কমিটি ঘোষণা করেন। গত বৃহস্পতিবার মিডিয়াতে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ৭১সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটির প্রচার করা কমিটির অনুমোদন দেন অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবির। এ কমিটিতে অ্যাডভোকেট আনজুম আহম্মেদকে আহ্বায়ক ও অ্যাডভোকেট রাসেল মিয়াকে সদস্য সচিব করা হয়।

অন্যদিকে শুক্রবার অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ খান ভাষানীর অনুমোদনে আরেকটি ৮১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির আত্মপ্রকাশ করা হয়। এখানে সভাপতি করা হয় অ্যাডভোকেট শহীদ সারোয়ার, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোস্তাক আহম্মেদ ও সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয় অ্যাডভোকেট মামুন মাহামুদ মিয়াকে। এটাও একই কায়দায় প্রকাশ করা হয়। আব্দুল হামিদ খান ভাষানীর দেয়া কমিটি ৭মাস পূর্বে আর সরকার হুমায়ুন কবিরের দেয়া কমিটি ৪ মাস পূর্বে গোপনে গঠন করে গোপন রাখা হয়েছিল বলে তারা দাবি করেছেন। যা নিয়ে আওয়ামী পন্থী আইনজীবীদের মধ্যে চলছে হাস্যরসাত্মক আলোচনা ও বিএনপি পন্থী আইনজীবীদের মধ্যে চলছে ব্যাপক সমালোচনা।

অন্যদিকে জাতীয়তাবাদী যুব আইনজীবী ফোরামের কমিটি গঠনের নিয়মের বিষয়ে জেলা বিএনপির সভাপতি কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার বলেছেন,“জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সংবিধানে যুব আইনজীবী ফোরাম বলতে কোন সংগঠনের নাম নেই। আর এর আগে কেন্দ্রে যুব আইনজীবী ফোরাম গঠনের চেষ্টা করা হলেও সেটা পরবর্তীতে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া অনুমোদন করেননি। আর যেহেতু কেন্দ্রেই এ কমিটি নেই সেহেতু জেলায় যুব আইনজীবী ফোরামের কমিটি হওয়ার কোন নিয়ম দেখি না।”

অন্যদিকে জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সাংগঠনিক অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম মোল্লা বলেন, “আসলে মিডিয়াতে কিছু বলতে গেলে আরো সমস্যা সৃষ্টি হবে। আর আমাদের আইনজীবীদের মধ্যে দুজন ব্যক্তির কারনে এসব কর্মকান্ড সৃষ্টি হচ্ছে। এ সমস্যা থাকবে না। আমরা অচিরেই সকল আইনজীবীদের নিয়ে আলোচনায় বসব তখণ এসব সমস্যার সমাধান করব।”

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিনারা নাজমীনকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বদলীর দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে সরকারী কর্মচারীরা।
রোববার সকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন তারা। এর আগে তারা সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত কর্মবিরতি পালন করেন।

স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ কালেক্টরেট কর্মচারী সংস্থা (কাকস) এর সভাপতি মোঃ আব্দুস সামাদ, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার ফিরোজ হোসেন, বাংলাদেশ কালেক্টরেট সহকারী সমিতি নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি প্রাণকৃষ্ণ চন্দ্র, সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন সিকদার, বাংলাদেশ সাট মুদ্রাক্ষরিক এসোসিয়েশন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ফাহিম উদ্দিন, বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ডিপ্লোমা সার্ভেয়ারস সমিতি নারায়ণগঞ্জ শাখার সভাপতি শফিউল আলম, সাধারণ সম্পাদক মোঃ বিলিয়ান, বাংলাদেশ ভূমি অফিসার্স কল্যাণ সমিতির নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি ইলিয়াছ সিকদার, সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ, বন্দর উপজেলা কর্মচারী কল্যাণ সমিতির সভাপতি আব্দুর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম, বাংলাদেশ সরকারী কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার অর্থ সম্পাদক আক্কাস আলী প্রধান, বাংলাদেশ সাট লিপিকার এসোসিয়েশন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি মোঃ দেলোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আনোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ ৪র্থ শ্রেনী সরকারী কর্মচারী সমিতি নারায়ণগঞ্জ শাখার সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন, সাউদ নূর, আউয়াল, সুলতান, তাহের, রাজকুমার,  ইকবাল হোসেন, নির্যাতিত প্রতাপ সিং প্রমুখ।

বিক্ষোভে অংশ নেয়া কর্মচারীরা জানান, বন্দর উপজেলা পরিষদে ইউএনও মিনারা নাজমীনের সরকারি বাসভবনে গত ৬ জানুয়ারী রাতে চুরির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উপজেলা পরিষদের ১০ জন সরকারি কর্মচারীকে পুলিশ দিয়ে ২৪ ঘন্টা আটক করে থানায় নিয়ে অমানুষিক নির্যাতন চালানো হয়। আটকদের মধ্যে দুইজনের বুকে পুলিশ লাথি দিয়ে আঘাত সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ইলেকট্রিক শক দেয়া হয়। এছাড়া প্লাস দিয়ে হাতের নখের আঙ্গুল থেতলে দেয়ার চেষ্টা করা হয়। এর প্রতিবাদে গত ৯ জানুয়ারী কাকস এর সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ইউএনও মিনারা নাজমীনকে অপসারণ করা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের কর্মসূচী দেয়া হবে। একইসঙ্গে তারা ইউএনও মিনারা নাজমীনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

স্মারকলিপি গ্রহণকালে জেলা প্রশাসক আনিছুর রহমান মিঞা কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি আপনাদের স্মারকলিপি উর্ধ্বতনের কাছে পাঠিয়ে দিব। তারা তদন্ত শেষে আইনানুগ পদক্ষেপ নিবেন। তিনি সবাইকে শান্ত হয়ে কাজে যোগদানের আহবান জানান। পরে সরকারী কর্মচারীরা স্ব স্ব কর্মস্থলে যোগ দেন।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় পূর্ব নোটিশ ছাড়াই একটি স্টিল মিল বন্ধ করার প্রতিবাদে রোববার দুপুর ১টায়  শ্রমিকরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে থানা ঘেরাও কর্মসূচি পালন করেছে।

বিক্ষোভের নেতৃত্বদানকারী রি রোলিং স্টিল মিলস শ্রমিক ফ্রন্ট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এস এম কাদির জানান, ফতুল্লার হরিহরপাড়ায় ‘মিনান স্টিল মিল’ কারখানাটি গত ৭ জানুয়ারী কোন নোটিশ ছাড়া বন্ধ ঘোষণা করা হয়। তারই প্রতিবাদে শ্রমিকরা রাজপথে নেমে আসতে বাধ্য হয়েছে। দ্রুত বন্ধ কারাখানা খুলে না দিলে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে।

তিনি আরো  জানান, কারখানার বর্তমান শ্রমিকদের অনৈতিক ভাবে বাদ দিয়ে মালিকপক্ষ বহিরাগতদের দিয়ে কারাখানাটি পুনরায় চালু করার পায়তারা চালাচ্ছে।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসাদুজ্জামান জানান, মিনান স্টিল মিলের শ্রমিকরা একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। ঘটনার তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আড়াইহাজারে ৫৫ ক্যান বিয়ারসহ এক মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে আড়াইহাজার থানা পুলিশ। পুলিশ সুত্রে জানাগেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রবিবার ভোরে উপজেলার আড়াইহাজার পৌরসভাধীন গাজিপুরা এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ। সেখানে বিয়ার বিক্রির সময় সাহাবুদ্দিন (২৫) নামে এক মাদক বিক্রেতাকে আটক করে পুলিশ। পরে তার স্বীকারোক্তি মতে তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তার ঘরে লুকানো অবস্থায় মোট ৫৫ ক্যান বিয়ার উদ্ধার করে পুলিশ। এ ব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়ে আড়াইহাজার থানায় মাদক আইনে একটি মামলা দায়ের করে।

আড়াইহাজার থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন বিয়ার উদ্ধারে ঘটনা স্বীকার করে জানান, গ্রেফতারকৃত সাহাবুদ্দিনের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মাদকের মামলা রয়েছে এবং সে একজন মাদক বিক্রেতা হিসেবে এলাকায় অভিযোগ রয়েছে। সে গাজিপুরা এলাকার ইউসুফ আলীর ছেলে।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  বিভিন্ন স্কুলে ভর্তি ফি, সেশন ফি, কোচিং এর নামে অতিরিক্ত অর্থ আদায় ও শিক্ষা বাণিজ্য বন্ধের দাবিতে রোববার সকাল ১১টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের নেতারা।

এসময় বক্তারা বলেন, দেশের গোটা শিক্ষা ব্যবস্থা এখন হুমকির মুখে। সরকারী স্কুলগুলোতে একদিকে যেমন বাড়ছে ভয়াবহ শিক্ষক সংকট, জরাজীর্ণ ক্লাস রুম ও ক্লাসরুমের সংকট তেমনি ধ্বংস হচ্ছে শিক্ষার মান। এই সংকটকে কাজে লাগিয়ে একদল অর্থলিপ্সু ব্যবসায়ীরা শিক্ষার মান উন্নয়নের নামে সাধারণ মানুষের পকেট থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার কোটি টাকা। সরকারও তার দায়িত্ব থেকে সরে গিয়ে শিক্ষাকে বাণিজ্যিক পণ্যে পরিণত করার পথ সুগম করে দিচ্ছে।

একদিকে সরকার মুখে বলছে শিক্ষার অধিকার সবার, সবার কাছে শিক্ষা পৌছে দেওয়ার কথা, অন্যদিকে পিপিপি, হেকাব এর নামে করছে বাজারী পণ্য। নারায়ণগঞ্জেও এমন অনেক স্কুল আছে নামে সরকারী হলেও বাণিজ্যই তাদের মূল লক্ষ্য। আমলাপাড়া আদর্শ শিশু সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, আমলাপড়া আই.ই.টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, আই.ই.টি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, নারায়ণগঞ্জ হাইস্কুল এন্ড কলেজ, মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন স্কুলের চিত্র একইরকম। প্রতিবছরই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ে ভর্তি ফি, সেশন ফি, কোচিং ফি ইত্যাদি।

আমলাপাড়া শিশু সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় নার্সারি শ্রেণীতে ভর্তির জন্য ৬,৬০০/- টাকা নেয়া হচ্ছে এবং ক্ষেত্র বিশেষে কোটা বরাদ্দ ও দেন দরবারের মাধ্যমে ২০,০০০/- টাকা থেকে ৫০,০০০/- টাকা পর্যন্ত আদায় করে ছাত্র ছাত্রী ভর্তি করা হচ্ছে, যা সরকারী সকল নিয়ম বহির্ভূত। নেতৃবৃন্দ এই ভর্তি বাণিজ্যের বিরুদ্ধে ছাত্র শিক্ষক অভিভাবকদের গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান ও আগামী ২৬ জানুয়ারি শিক্ষার  বাণিজ্যিকীকরণ ও সাম্প্রদায়িকীকরণের বিরুদ্ধে ৭ম জেলা সম্মেলন চাষাড়াস্থ কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে অনুষ্ঠিত হবে, সম্মেলনকে সফল করার আহ্বান জানিয়ে কর্মসূচী সমাপ্ত করেন।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার আহ্বায়ক সজল বাড়ৈ এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের জেলার সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আক্তার, সরকারী তোলারাম কলেজ শাখার সভাপতি বেলাল হোসাইন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মুন্নি সরদার, ছাত্র ফ্রন্ট জেলা সংগঠক পলাশ চন্দ্র রায় প্রমুখ।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুরে সরকারী কোয়াটার ছাদ থেকে পড়ে পীর্থ (৯) নামে এক শিশুর  নিহত হয়েছে। রোববার বিকেলে কোয়াটারের ছাদে খেলতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত পীর্থ নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর ৩০০ শষ্যা হাসপাতালের শিশু চিকিসক বিধান চন্দ্র পোদ্দারের ছেলে।

হাসপাতালের সুপারের পিএ মোঃ সিদ্দিকুর রহমান জানান, বিকেলে কোয়াটারের ছাদে খেলে গিয়ে পড়ে পীর্থ পড়ে তাকে গুরুতর অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলে নেয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা এলাকা থেকে অপহৃত ব্যবসায়ী মনির হোসেনকে খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি দম দম এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (৯ জানুয়ারী) রাত ১১টার দিকে ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করা হয়। ব্যবসায়ী মনির হোসেন রূপগঞ্জ উপজেলার কলাতলি এলাকার মৃত আফফর আলীর ছেলে। এসময় শাহীন মিয়া (১৮) নামে এক অপহরণকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত শাহীন মিয়া খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি এলাকার মোহাম্মদ আলীর ছেলে।

রূপগঞ্জ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) জাহিদ হোসেন জানান, গত তিন দিন আগে রূপগঞ্জ উপজেলার কলাতলী এলাকা থেকে ভুলতা এলাকায় আসার পথে অপহরণের শিকার হন ব্যবসায়ী মনির হোসেন। এরপর অপহরণকারীরা মনির হোসেনের পরিবারের কাছে ৩ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। দাবিকৃত ৩ লাখ টাকার মধ্যে বিকাশ যোগে ১৫ হাজার টাকা পরিশোধ করা হয়। এর পর থেকে আরো টাকা বিকাশের মাধ্যমে পাঠানোর জন্য চাপ প্রয়োগ করে আসছিলো।

টাকা না পাঠালে ওই ব্যবসায়ীকে হত্যা করা হবে বলেও হুমকি দেয়া হতো। শুক্রবার সকালে অপহৃত মনির হোসেনের পরিবারের পক্ষ থেকে অপহরণের বিষয়টি রূপগঞ্জ থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়। পরে পুলিশ মোবাইল ফোনে সুত্র ধরে খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি এলাকায় অভিযান পরিচালনা শুরু করে। রাত শণিবার ১১টার দিকে অপহৃত ব্যবসায়ী মনির হোসেনকে উদ্ধার করা হয়। এছাড়া অপহরণের সঙ্গে জড়িত শাহীন মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। বাকি অপহরণকারীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার গন্ধর্বপুর এলাকার গন্ধর্বপুর বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮শ’ শিক্ষার্থীর মাঝে অত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি গোলাম মর্তুজা পাপ্পা গাজীর নিজস্ব তহবিল থেকে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরন করা হয়। রোববার সকাল সাড়ে ১১টায় বিদ্যালয়ের মাঠে শীত বস্ত্র বিতরন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গন্ধর্বপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাবু নারায়ণ চন্দ্র সাহার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তারাবো পৌরসভার নব নির্বাচিত মেয়র ও রূপগঞ্জ উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হাছিনা গাজী। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বাংলাদেশ শিক্ষাসহ সর্বক্ষেত্রে এগিয়ে গেছে। দেশে নারীরা এখন আর পিছিয়ে নেই। দেশ গঠনে নারীদের ভূমিকা অনেক। বাংলাদেশ শিক্ষাসহ সর্বক্ষেত্রে এগিয়ে গেছে বলে এ মন্তব্য করেন। এসময় তিনি আরো বলেন,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারনে শিক্ষার্থীরা পহেলা জানুয়ারী নতুন বই হাতে পেয়েছে। শিক্ষার্থীদেরকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করার আহব্বানও জানান তিান।

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, তারাবো পৌরসভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম, প্রধান প্রকৌশলী জেড এম আনোয়ার,সহকারী প্রকৌশলী জহিরুল ইসলাম,উপজেলা মহিলালীগের সাধারন সম্পাদক শিলা রানী পাল,মিনারা বেগম,খোদেজা বেগম,ইলা বেগম পৌরসভার  কাউন্সিলর হোসেন আহম্মেদ রাজিব প্রমুখ।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts