November 13, 2018

এক নজরে নারায়ণগঞ্জ

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  অভিভাবকদের অভিযোগ সম্পর্কে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা রেবেকা সুলতানার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, স্কুলের সকল শিক্ষার্থীর পোশাক এক না হলে দেখতে খুবই খারাপ লাগে। যখন স্কুলে এসেম্বলী চলে তখন এই ধরণের কয়েক রংয়ের পোশাকে শিক্ষার্থীদের দেখতে দৃষ্টিকটু লাগে। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম স্কুল থেকেই পোশাকের ব্যবস্থা করা হবে। সবাই এক রংয়ের পোশাক পড়লে দেখতেও ভালো লাগবে। একজন শিক্ষার্থী বাইরে থেকে পোশাক তৈরী এবং সোয়েটার কিনতে গেলে ৩ হাজার টাকার উপরে লাগবে। আমরা যদি ইসলামপুর থেকে একসাথে কাপড়ের থান কিনে এনে পোশাক তৈরীর কাজ করি তাহলে খরচ কম পড়বে।

পোশাক তৈরীর ব্যাপারে অভিভাবকদের অভিযোগ সর্ম্পকে তিনি বলেন, একটি ভালো কাজের উদ্যোগ নিয়েছিলাম। কিন্তু যখন দেখলাম এটা নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হচ্ছে তখন বন্ধ করে দিয়েছি। এখন কারো কাছ থেকে পোশাকের টাকা নেওয়া হচ্ছেনা। এবং যাদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হয়েছে তাদের টাকা ফেরত দেওয়া হবে।

এছাড়া স্কুলের কোচিং সর্ম্পকে তিনি বলেন, স্কুলের শিক্ষকদের কাছে কোচিং করলে সেটা মান সম্মত হয়। এবং বিষয় ভিত্তিক আলোচনায় শিক্ষার্থীদের বোঝতে সুবিধা হয়। তাছাড়া ২০১১ সালে এই স্কুল থেকে চাকরী ছেড়ে দেওয়া শিক্ষক হান্নান ছাত্রীদের পাশের নানা প্রলোভন দিয়ে তার নিজস্ব কোচিং সেন্টারে ছাত্রী নিয়ে যাচ্ছে। এবং স্কুল সর্ম্পকে নানা অপপ্রচার চালাচ্ছে। স্কুলের কয়েকজন অভিভাবককে বিনা পয়সায় পড়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে স্কুল সর্ম্পকে নেতিবাচক ধারণা দিচ্ছে।

এ ব্যাপারে জেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ আব্দুস সামাদের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, অভিযোগ পেয়ে আমি মঙ্গলবার স্কুলে গিয়েছিলাম। অভিযোগ সর্ম্পকে আমি প্রাথমিক তথ্য নিয়ে এসেছি। এখন তদন্ত কাজ চলছে। তদন্তের আগে এ ব্যাপারে কিছু বলা ঠিক হবে না। তবে এটা নিশ্চিত তদন্ত হবে সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ। অভিযোগ প্রমাণ হলে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জের বন্দও ওয়াসার পাম্প হাউজের বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার বিকল হয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের বন্দর উপজেলার ২৪ ও ২৫ নং ওয়ার্ডের তিনটি এলাকায় গত ৬ দিন ধরে পানি সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে ওই এলাকাগুলোতে তীব্র বিশুদ্ধ পানির সংকট সৃষ্টি হয়েছে। দুর্ভোগের মুখে পড়েছে লক্ষণখোলা, চৌরাপাড়া ও দাসেরগাঁ এলাকায় কয়েক হাজার মানুষ। এদিকে পানি সরবরাহের দাবিতে বুধবার বন্দর উপজেলার সোমবারিয়া বাজার এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী।

পানি সংকটের জন্য ওয়াসাও পল্লীবিদ্যুতের অবহেলাকে দায়ী করে বক্তারা বলেন, ৬ দিন আগে ট্রান্সফরমার বিকল হলেও মেরামতের কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। ওয়াসার পানি সরবরাহ বন্ধ থাকায় লক্ষণখোলা, চৌরাপাড়া ও দাসেরগাঁ এলাকায় বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। পানি জন্য এলাকাবাসীকে বিভিন্ন দিকে ছুটতে দেখা গেছে। অনেকে পুকুর বা অন্যকোন উৎস থেকে নোংরা আবর্জনা যুক্ত পানি সংগ্রহ করে পানসহ অন্যান্য কাজে ব্যবহার করছেন। পাম্পটি চালু করার দাবি জানান এলাকাবাসী। পানি সংকট নিরসনে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ওয়াসার প্রতি অনুরোধ জানান তারা।
বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, শাহজালাল মেম্বার, আক্তার হোসেন, হুমায়ুন কবির, আলতাফ হোসেন, শামীম সরদার, ডালিম সরদার প্রমুখ।

দাসেরগাঁ পাম্পের অপারেটর সাইদুর রহমান জানান, গত শনিবার হঠাৎ করে পাম্পের বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার(পিটি) বিকল হয়েযায়। এর ফলে পানি সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। পিটিবিকলহওয়ার বিষয়টি পলী বিদ্যূৎ কর্র্তৃপক্ষকে জানানো হলেও তা সংস্কার বা নতুন পিটি স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়নি।
বন্দর উপজেলা পল্লী বিদ্যুত অফিসের উপ-মহাব্যবস্থাপক মো: জাকির হোসেন জানান, গত তিন তারিখে সকালে ট্রান্সফরমারটি(পিটি) নষ্ট হয়েছে। ওইটা ওয়াসার নিজস্ব ট্রান্সফরমার। আমি ওয়াসাকে ওই দিনই চিঠি দিয়েছে, আপনারা(ওয়াসা) ট্রান্সফরমার সরবরাহ করতে হবে। আপনারা সরবরাহ করলে আমরা লাগিয়ে দেব। কিন্তু তারাই(ওয়াসা) ট্রান্সফরমার(পিটি) সরবরাহে দেরী করেছে। আমি যত দূর জেনেছি, ওয়াসা ট্রান্সফরমার কিনেছে, সেটি পরীক্ষা করা হয়ে গেছে। আমরা আশা করছি আজ বুধবার ট্রান্সফরমারটি লাগানো সম্ভব হবে। ওই দিনই পানি সরবরাহ করা সম্ভব হবে।

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জের নগরীর ডিআইটি বাণিজ্যিক এলাকায় অবস্থিত টুইন টাওয়ার হিসাবে পরিচিত ‘টোকিও প্লাজায়’ বিদ্যুৎ চুরি ও রাজস্ব ফাঁকির ঘটনায় সহযোগিতা করার অভিযোগে ডিপিডিসির নারায়ণগঞ্জ(পূর্ব অ ল) সহকারী প্রকৌশলী শরীফ উদ্দিন আহম্মেদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বুধবার বিকেলে ডিপিডিসির প্রশাসন তাকে বরখাস্ত করেন।

উল্লেখ্য, গত ৩১ ডিসেম্বর ও ৩ জানুয়ারী ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড(ডিপিডিসি)’র স্পেশাল টাস্কফোর্স নগরীর ডিআইটি বাণিজ্যিক এলাকায় অবস্থিত জাপান প্রবাসী মালিক ফজর আলীর মালিকানাধীন টুইন টাওয়ার হিসাবে পরিচিত ‘টোকিও প্লাজায়’ বিদ্যুৎ চুরি ও রাজস্ব ফাঁকির ঘটনা উদঘাটন করে। ২০১২ সালের শেষে নগরীর ডিআইডি বাণিজ্যিক এলাকায় বঙ্গবন্ধু সড়কের পাশে টোকিও প্লাজা-১, (২৪ তলা) ও ৫৫, নয়ামাটিতে টোকিও প্লাজা-২ (১৮ তলা), বাণিজ্যিক কাম আবাসিক ভবন নির্মাণ করা হয়। পাশাপাশি নির্মিত এ দু’টি ভবনে নির্মাণকাল থেকে শুরু করে মিটার টেম্পারিং করে, মিটারে বিপুল পরিমাণ ইউনিট জমা রেখে এবং অন্যান্য কারসাজি করে প্রায় অর্ধ কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার বিষয়টি উদঘাটন করেন ডিপিডিসি’র স্পেশাল টাস্কফোর্স প্রধান মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী’র নেতৃত্বে মিটারিং প্রকৌশলী ও টাস্কফোর্স সদস্যরা।

প্রসঙ্গত, গত তিন মাসে নারায়ণগঞ্জ পূর্ব অঞ্চলে কয়েক কোটি টাকার বিদ্যুৎ চুরির ঘটনা উদঘাটিত হয়েছে।

এ ব্যাপারে ডিপিডিসি’র টাস্কফোর্স প্রধান মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরীর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বরখাস্ত করার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts