November 16, 2018

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বিষয়টি এখনও অনিশ্চিত: ফখরুল

tyrudu-8-450x237
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বিষয়টি এখনও অনিশ্চিত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরু ইসলাম আলমগীর। বুধবার দুপুরে জিয়া পরিষদের ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনের নেতাকর্মীদের নিয়ে শেরেবাংলানগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সরকার দেশের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে অন্যের স্বার্থ রক্ষার চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে তিস্তার পানি বন্টন চুক্তি না হলে অন্য সব চুক্তি হবে অর্থহীন। তিনি বলেন, আমরা দাবি আদায়ে প্রচেষ্টা চালাতে পারছি না এই জন্য যে, দেশে এখন যারা ক্ষমতায় আছেন, তারা আগেই নতজানু হয়ে আছেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর ফলপ্রসূ করতে হলে সবার আগে দুই দেশের অমীমাংসিত সমস্যাগুলোর সমাধান করতে হবে, যার অন্যতম হল তিস্তার পানি বণ্টন। তিনি বলেন, এ সরকার ক্ষমতায় আসার পর মানুষ আশা করেছিল, ভারতের সঙ্গে একটা সম্পর্ক তৈরি করে তিস্তার ন্যায্য হিস্যা আমরা পাব। কিন্তু শুধু তিস্তাই নয়, আমরা ৫৪টি নদীর কোনো ন্যায্য হিস্যা পাচ্ছি না। তাই দেশের প্রধানমন্ত্রী ভারত সফরে গিয়ে স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের স্বার্থ বিসর্জন দিয়ে কোনো চুক্তি করলে দেশের মানুষ মেনে নেবে না।

ফখরুল বলেন, আমরা তিস্তা চুক্তি নিয়ে দর কাষাকষি করতে পারছি না এজন্য যে, আমরা ভারতের কাছে নতজানু হয়ে আছি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরোধী দলকে ঘরে বন্দি রেখে নিজের দলীয় প্রতীক নৌকার পক্ষে একতরফা নির্বাচনী প্রচার চালাচ্ছেন। এটাই প্রমাণ করে, এ দেশে গণতন্ত্র নেই। একটি দল এবং তার সভাপতি রাষ্ট্রের পয়সায় হেলিকপ্টারে করে প্রত্যেকটি জনসভায় যাচ্ছেন, রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে জনসভা করছেন এবং দলের পক্ষে নির্বাচনী প্রচার করছেন।

এ সময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে ছিলেন জিয়া পরিষদের চেয়ারম্যান কবীর মুরাদ, সংগঠনের সহ-সভাপতি অধ্যাপক আবদুল কুদ্দুস, অধ্যাপক আবু তাহের, অধ্যাপক লুৎফুর রহমান, অধ্যাপক আবদুল লতিফ, অধ্যাপক আলী নুর রহমান ও অধ্যাপক মাইনুল ইসলাম প্রমুখ।

Related posts