November 19, 2018

একটি বাড়ি একটি খামার বাস্তবায়নে মূলধন প্রদান করলেন সেলিম ওসমান

সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জ: মধ্যম আয়ের দেশ গড়ার স্বপ্নদ্রষ্টা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প বাস্তবায়নে নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টির লক্ষ্যে শিক্ষিত ও বেকার ২১০ জন যুবকের প্রত্যেককে চলতি মূলধন প্রদান করা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ-৫(শহর-বন্দর) আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের উদ্যোগে উদ্যোক্তাদের প্রত্যেককে তাদের ব্যাংক হিসাবে ২৫ হাজার টাকা করে প্রদান করেন।

শনিবার ৯ এপ্রিল বেলা দুপুর ১২টায় নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের শীতলক্ষ্যা কমিউনিটি সেন্টারে মূলধন প্রদান ও মত বিনিময় সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। উদ্যোক্তা তৈরির ব্যবস্থাপনায় ছিলো ৮টি জাতীয় ভিত্তিক ও ৩৩ টি জেলা ভিত্তিক ব্যবসায়ীক সংগঠন নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ডাস্ট্রি।

এর আগে ১৩ ফেব্রুয়ারী ৫’শ জন নারীকে একটি করে সেলাই মেশিন ও নগদ ৫ হাজার টাকা করে চলতি মূলধন প্রদান করা হয়েছিল। ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প বাস্তবায়নে সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জ সদর, বন্দর, ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এলাকায় ২০ হাজার নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টি করার ঘোষণা দিয়েছেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে মুক্তিযুদ্ধের সময় সেলিম ওসমানের ভূমিকা নিয়ে ‘চ্যানেল লাইন’ টেলিভিশনে ‘অহংকারের আলো’ অনুষ্ঠানের ১০ মিনিটের একটি ভিডিও চিত্র ও এনটিভিতে প্রচারিত বিজনেস আইকন অনুষ্ঠানে সেলিম ওসমানকে নিয়ে প্রচারিত ২৮ মিনিটের একটি ভিডিও চিত্র এবং ‘কৃষক সেলিম ওসমান নামের একটি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়।

নতুন উদ্যোক্তাদের উদ্দেশ্যে সেলিম ওসমান বলেন, যুব সমাজ শক্ত হলেই নারায়ণগঞ্জ ঘুরে দাড়াবে। হবে আধুনিক নারায়ণগঞ্জ। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার একটি টুকরো হয়ে গড়ে উঠবে নারায়ণগঞ্জ। আমি তোমাদের হাতে শুধু যুদ্ধের অস্ত্র( চলতি মূলধন) তুলে দিলাম। পরিশ্রমটা তোমাদের করতে হবে। জীবনের একটি মুহুর্ত সময়ও নষ্ট করা যাবে না। সময়কে ব্যবসার মূলধন হিসেবে নিতে হবে। তাহলেই জীবনে সাফল্য আসবে। আমি চলে যাবো। কিন্তু আমি তোমাদের মাঝে বেঁচে থাকতে চাই। তোমরাই আমাকে বাঁচিয়ে রাখবে।

তিনি আরও বলেন, যে ২৫ হাজার টাকা তোমাদের ব্যাংক হিসাবে দেওয়া হয়েছে সেই টাকায় কারো কোন অধিকার নেই। এমনকি আমার নিজেরও কোন অধিকার নেই। এটা কোন ব্যাংক লোন নয়। ব্যবসায়ীদের সহযোগীতায় নতুন উদ্যোক্তা তৈরি করতে আমাদের প্রচেষ্টা। ২৫ হাজার টাকা থেকে তোমারা ৫০০ টাকা দিয়ে নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাস এর সদস্য হবে। ২০ হাজার টাকা তোমাদের একাউন্টে ৩ মাসের জন্য এফডিআর হিসেবে জমা থাকবে। আর বাকি ৪হাজার৫’শ টাকা প্রতি মাসে ১৫’শ টাকা করে তুলতে পারবে। যেটা দিয়ে তোমার বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অথবা মিল কারখানা ঘুরে অভিজ্ঞতা অর্জন করবে।

তোমরা চোখ দিয়ে দেখবে, কান দিয়ে শুনবে তারপর সেটা মগজে ঢুকিয়ে নতুন কিছু বের করে আনবে। তোমাদের মেধা অনুযায়ী তোমরা ব্যবসায় করবে সেটা ছোট বড় যে ধরনেরই হোক না কেন। আগামীতে যেন তোমাদের মাধ্যমে আরও অনেক মানুষের কর্মসংস্থান করার সুযোগ হয়।

সেলিম ওসমান আর আগে নতুন উদ্যোক্তাদের ১ হাজার টাকায় নারায়ণগঞ্জ চেম্বারের সদস্য হওয়ার কথা বললেও শনিবার তার বক্তব্যে সদস্য পদ গ্রহন করতে ৫’শ টাকা জমা দেওয়ার কথা বলেন।

নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ডাস্ট্রি এর সিনিয়র সহ সভাপতি মঞ্জুরুল হক এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আবুল জাহের, বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম এ রশিদ।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বিকেএমইএ এর সিও সুলভ চৌধুরী। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিকেএমইএ এর সহ সভাপতি(অর্থ) জিএম ফারুক, পরিচালক হুমায়ন কবির খান শিল্পী, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ডাস্ট্রি এর পরিচালক ফারুক বিন ইউসুফ পাপ্পু, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকু, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্না, ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জমশেদ আলী জন্টু, ২৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন, নারী কাউন্সিলর ইসরাত জাহান খান স্মৃতি, রেজওয়ানা হক সুমি, ইফাত জাহান মায়া, খোদেজা খানম নাসরিন, বন্দর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন, কলাগাছিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন প্রধান, মদনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম এ সালাম, মুছাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাকসুদ হোসেন প্রমখু।

প্রসঙ্গত সেলিম ওসমান তার নির্বাচনী এলাকার ৭টি ইউনিয়ন ও সিটি করপোরেশনের ১৭টি ওয়ার্ডের জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে ৩০০ জন শিক্ষিত যুবকের নামের তালিকা তৈরি করে ছিলেন। পরবর্তীতে ৫ মার্চ প্রথমধাপে তাদের সাথে মতবিনিময় করে তাদেরকে দিক নিদের্শনা ও চলতি মূলধন প্রদানের জন্য আবেদন জমা দিতে বলেন। তাদের মধ্য থেকে ২১০জন যুবককে আগামী শনিবার চলতি মূলধনের টাকা প্রদান করা হবে। ৩০০ জনের মধ্যে বাকি ৯০ জন্য তাদের আবেদন জমা দেন নি।

উল্লেখ্য সেলিম ওসমান তিনি তার নির্বাচনী এলাকার নারীদের সাবলম্বী করে গড়ে তুলতে গত ১৩ ফেব্রুয়ারী ৫’শ নারী উদ্যোক্তা সৃষ্টির লক্ষ্যে তাদের প্রত্যেককে ১টি করে সেলাই মেশিন ও চলতি মূলধন হিসেবে ৫হাজার করে টাকা প্রদান করেছেন। এই ধারাবাহিকতায় তিনি সদর , বন্দর, সিদ্ধিরগঞ্জ, ও বন্দর থানা এলাকায় ২০ হাজার উদ্যোক্তা সৃষ্টি করার ঘোষণা দিয়েছেন। সেই ধারাবাহিকতায় ৫ মার্চ যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ও আই এফ আই সি ব্যাংক লিমিটেড এর সাথে ওই ৫’শ নারী ও ৩’শ যুবকের সাথে মত বিনিময় সভা করেছিলেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/০৯ এপ্রিল ২০১৬/রিপন ডেরি

Related posts