September 21, 2018

ঈদের কেনাকাটায় জামার সাথে নতুন জুতা!


এ কে আজাদ,
চাঁদপুর প্রতিনিধিঃ
ঈদকে সামনে রেখে চাঁদপুরে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বিভিন্ন শপিংমল,ছোট বড় মার্কেট থেকে শুরু করে ফুটপাতসহ সর্বত্রই চলছে ঈদের কেনাকাটার ব্যাস্ততার ধুম। এদিকে ক্রেতাদের নিরবিগ্নে কেনাকাটার জন্য চুরি ছিনতাইসহ আইনশৃন্মলা নিয়ন্ত্রনে শহরের প্রতিটি বিপনিবিতানের সামনে ব্যাপক পরিমান পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ঈদের কেনাকাটায় বিপনী বিতান আর পোশাকের শোরুমগুলো সেজে উঠেছে ঈদ পোশাক আর অনুসঙ্গের সম্ভারে। পরিবারের ছোট-বড় সবাই মিলে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন কেনাকাটায়। তরুণ-তরুণী আর শিশুদের পোশাকের দোকানগুলোতেই ভিড় বেশি লক্ষনিয়। পরিবারের সকলের পছন্দ অনুযায়ী কেনাকাটা করতে অনেকেই আসছেন মার্কেটগুলোতে পরিবারের সদস্যদের সাথে নিয়ে।ঈদে নতুন জামা- আর জুতার জন্য সবচেয়ে বেশি বায়না থাকে শিশুদের । তাই বাবা-মায়ের হাত ধরে ঘুরে ঘুরে সব দেখছে পরিবারের ছোট সদস্যরা। কেনাকাটাও করছে নিজের পছন্দ মতো।

এ বছরও দেশীয় কাপড়ের সাথে বরাবরের মতো বাড়তি আকর্ষন বিভিন্ন টেলিভিশনে প্রচারিত চিরিয়ালের নাম ও নায়ক নাইকাদের নাম করনের সাথে পোশাখের নাম বিশেষ করে ভারতীয় সিরিয়ালের -পাখী থ্রীপিচ, বুঝেনা সে বুঝেনা, অবুঝমন, ভালোবাসা ডট কম, এ ধরনের বাহারী নামের থ্রিপিছ উটতি বয়সী তরুনিদের পছন্দ বেশী। বিক্রেতারাও বলছেন, এসব পোশাকের চাহিদা অনেক বেশি।

শহরের শপিংমলগুলোর মধ্যে হাকিম প্লাজা, মীর শাপিং,পৌর সুপার মার্কেট,চাঁদপুর টাওয়ার,পূরবী মার্কেট, মধ্যবিত্ত ও নিন্ম মধ্যবিত্তদের জন্য রয়েছে বিশাল আকারের রেলওয়ে হকার্স মার্কেট। পাশাপাশি ফুটপাতের দোকানগুলোতে হরেক রকম ডিজাইনের কাপড় সাজিয়ে বসেছেন হকাররা। নিম্ন আয়ের মানুষরা ভীড় জমাচ্ছেন ফুটপাতের এসব দোকানগুলোতে।

এদিকে ঈদকে সামনে রেখে অযৌক্তিকভাবে কাপড়ের মূল্যবৃদ্ধির অভিযোগ করেছেন বেশীরভাগ ক্রেতারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জৈনকা কলেজ ছাত্রী বলেন, ভারতীয় পোষাকে বাজার সয়লাব হওয়ায় দেশীয় কাপড়ের দাম অনেক বেশি। দেশীয় আনরেডি থ্রিপিছ, রেডিমেড থ্রিপিছ গুলো সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাহিরে। ঈদের বাজার ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন- দোকান গুলোতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন বিক্রেতারা।

ঈদ উৎসবে পোষাকের সঙ্গে নারীদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে কসমেটিকস,ইমিটেশন জুয়েলারীর গয়না ও মেহেদী। সে দিকে লক্ষ্য রেখে শহরের জুয়েলারী দোকানগুলোকে সাজানো হয়েছে নতুন সাজে। পোষাকের দোকানের পাশাপাশি শহরের জুয়েলারী দোকানগুলোতেও উপছে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে।

রঙ-বেরঙের বাহারি পোশাকের পাশাপাশি বিশেষত মেয়েদের নজর এখন বিদেশি ব্রান্ডের দামি প্রসাধনীর দিকে। কড়া রঙের বাহারি মোড়কওয়ালা এইসব প্রসাধনী দূর থেকে দেখলে পলকেই চোখ জুড়িয়ে যায়

কিন্তু ঈদের কেনাকাটার ব্যস্ততার রঙচঙে মোড়ানো বিভিন্ন নকল  প্রসাধনী ছেয়েগেছে দোকানগুলোতে এসব প্রসাধনি দেখে মুহূর্তেই এর গুণগত মান বোঝার কোনো উপায় নেই। ধরা যাচ্ছে না কোনটা আসল কোনটা নকল।

আর তাতে করে সুবিধা মতো দাম হাকিয়ে নিচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। ঈদকে সামনে রেখে শহরের বিভিন্ন মার্কেটগুলোতেও বিদেশি ব্রান্ডের এইসব নকল প্রসাধনী বিক্রির ধুম লেগেছে।

আর তরুণীদের পোশাকের মধ্যে রয়েছে লং কামিজ, লং গাউন, সারারা, লেহেঙ্গা ও আরো বিভিন্ন ডিজাইন।

চাহিদা বেশি থাকায় এ ধরণের পোশাকই বেশি আনা হচ্ছে, জানালেন ব্যবসায়ীরা।

আর শিশু-কিশোরদের পোশাকে বিভিন্ন কার্টুন চরিত্র আর ক্রিকেট টিমের আধিপত্য।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ৩০ জুন ২০১৬

Related posts