September 19, 2018

ইয়োগা বা যোগব্যায়াম এর কথা বলে বিতর্কিত হলেন মেয়র সাঈদ খোকন?

ঢাকার বাসিন্দাদের শারীরিক এবং মানসিক সুস্থতার জন্য ‌‘ইয়োগা’ এবং ‘মেডিটেশন’ বা ধ্যান উৎসাহিত করার কর্মসূচি নিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাইদ খোকন।বুধবার খোকন বলেছেন, মানসিক সুস্থতার জন্য মাসে বা তিন মাসে অন্তত একদিন নগরবাসীকে সাদা-জামা পরতে উৎসাহিত করা হবে। তিনি বলেন, সাদা রং পরিচ্ছন্নতার প্রতীক, আমরা হোয়াইট শার্ট ডে ঘোষণা করবো।

আসন্ন ২০১৬ সালকে পরিচ্ছন্নতা বছর ঘোষণা করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন। তারই অংশ হিসাবে ইয়োগা’সহ অভিনব এসব কর্মসূচি বাস্তবায়নের পরিকল্পনা করা হয়েছে।

প্রাচীন হিন্দু রীতিতে পরিচালিত ইয়োগা বা যোগব্যায়াম নিয়ে ইতোমধ্যে বিশ্বব্যাপী জোরালো বিতর্ক উঠেছে। ইয়োগার জন্মস্থান খোদ ভারতে মুসলিম এবং খ্রিস্টানরা এটিকে প্রত্যাখ্যান করেছেন।শারিরীক ব্যায়ামের দিক থেকে ইয়োগা অন্যান্য সাধারণ শরীর চর্চার মত হলেও ধর্মীয় দিক থেকে এ পদ্ধতিতে পুরোপুরি হিন্দুয়ানী রীতি অনুসরণ করা হয়। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, সূর্য-পূজা।

যোগাসন শুরু করার আগে কয়েকটি আসনের মাধ্যমে সূর্যকে প্রণাম করতে হয়, যা বাধ্যতামূলক। কিন্তু কোনো মুসলিম আল্লাহ ছাড়া অন্য কাউকে প্রণাম করতে বা উপাসনা করতে পারে না। এমনকি খ্রিস্টানদের মধ্যে যারা ধর্ম অনুসরণ করেন তারাও এই সুর্য-পূজাক প্রত্যাখ্যান করেন।

ভারতের বর্তমান বিজেপি সরকার দেশটিতে ইয়োগাকে জনপ্রিয় করার বহু চেষ্টা করে যাচ্ছে। আন্তর্জাতিকভাবে এটি ছড়িয়ে তারা চেষ্টা চালাচ্ছে। তদবির করে ইতোমধ্যে ২১ জুনকে বিশ্ব ইয়োগা দিবস হিসেবে জাতিসংঘ থেকে স্বীকৃতি আদায় করেছে ভারত।কিন্তু দেশটির আলেমরা এটিকে প্রত্যাখ্যান করেছেন। তবে সুর্য-পূজাসহ কিছু নিয়মনীতি পরিবর্তন করা হলে ইয়োগা প্রাক্টিস করতে মুসলমানদের কোনো সমস্যা নেই বলে আলেমরা মত প্রকাশ করেন।
তবে ভারত সরকার মুসলিমদের এমন মতামতকে মোটেও পাত্তা দেয়নি। হিন্দুয়ানী রীতি বহাল রেখেই তারা চাচ্ছে সেদেশের মুসলমানদের ওপর এটি জোর করে চাপিয়ে দিতে।

হায়দ্রাবাদের প্রভাবশালী মুসলিম এমপি আসাদুদ্দিন ওয়াইসি সম্প্রতি বলেছেন, সূর্য-নমষ্কার পুরোপুরি ইসলাম-বিরোধী। সরকার যোগাসন বাধ্যতামূলক করতে চাইছে, কিন্তু অন্য মার্শাল আর্ট নিয়ে নীরব কেন জানতে চান তিনি।

অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ডের সদস্য খালিদ রশিদ বলেন, ‘হিন্দুদের মন্ত্রোচ্চারণ করতে হয়, এমন কোনও শরীরচর্চা মুসলমানদের করার প্রশ্নই ওঠে না!’টাইমস অব ইন্ডিয়ার গত ১৩ জুনের এক প্রতিবেদনে (Muslim bodies see ‘political agenda’ behind yoga move) ইয়োগা নিয়ে ভারতীয় আলেমদের মতামত তুলে ধরা হয়।সেখানে বলা হয়েছে, “মুসলিম বিভিন্ন সংস্থা ভারতে ইয়োগা বাধ্যতামূলক করার চেষ্টার পেছনে ক্ষমতাসীন বিজেপির রাজনৈতিক এজেন্ডা রয়েছে বলে মনে করছেন।”

জমিয়তে উলামা-এ-হিন্দ এর নেতা মাওলানা মাহমুদ মাদানী বলেছেন, ইয়োগাকে একটা বিশেষ রঙে রঙ্গিন করার পরিকল্পিত চেষ্টাই এটিকে মুসলমানদের জন্য সমস্যার কারণ হিসেবে উপস্থাপন করেছে।
শুধু ভারতে নয়, মুসলিম বিশ্বেও ইয়োগা প্রত্যাখ্যাত হয়েছে। গত বছরের ডিসেম্বরে যখন ভারতের প্রস্তাব মেনে জাতিসংঘ ২১শে জুনকে আন্তর্জাতিক ইয়োগা দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছিল, সেটা ভারতের জন্য বড় একটা কূটনৈতিক জয় হলেও বিশ্বের সব মুসলিম দেশ কিন্তু সেই উদ্যোগে সাড়া দেয়নি।

অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কান্ট্রি বা ওআইসি এর সদস্য ৫৭টি দেশের মধ্যে অন্তত বহু দেশ জাতিসংঘে সেই প্রস্তাব সমর্থন করেনি, আর সেই তালিকায় ছিল পাকিস্তান বা সৌদি আরবের মতো দেশও।

ভারতসহ সারা বিশ্বে যখন মুসলমানদের কাছে ধর্মীয় কারণে ইয়োগা প্রত্যাখ্যাত, তখন অত্যন্ত ধার্মিক রাজনীতিবিদ হিসেবে সুপরিচিত ঢাকার সাবেক মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ছেলে সাইদ খোকন হিন্দুয়ানী এই রীতি নিয়ে এত মাতলেন কেন?

অনেকে প্রশ্ন তুলছেন, ৯০ ভাগ মুসলমানের দেশে ধর্মের সাথে সরাসরি সাংঘর্ষিক বিষয়াদিকে সরকারি খরচে বাংলাদেশে আয়োজন করার মাধ্যমে কি ঢাকা দক্ষিণের মেয়র ভারতীয় হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপি এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চান?

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/মেহেদি/ডেরি

Related posts