September 21, 2018

ইসলামবিরোধী নাস্তিক্যবাদ কোনোটাই সহ্য করা হবে না – জুনায়েদ বাবুনগরী

ঢাকাঃ হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় মহাসচিব আল্লামা হাফেজ মুহাম্মদ জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন, আমরা সন্ত্রাসবাদ ও ইসলামবিরোধী নাস্তিক্যবাদ কোনোটাই সহ্য করব না। আমরা সন্ত্রাসবাদকে যেমন ঘৃণা করি, প্রত্যাখ্যান করি, প্রতিরোধের ও উৎখাতের আহবান জানাই, আমাদের একই অবস্থান ইসলাম বিদ্বেষী নাস্তিক্যবাদিদের বিরুদ্ধেও।

আজ বৃহস্পতিবার দারুল উলূম হাটহাজারী মাদরাসার উদ্যোগে সন্ত্রাসবিরোধী বিক্ষোভ মিছিলপূর্ব সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

বিদেশী, অমুসলিম ও ধর্মীয় ব্যক্তিত্বদের টার্গেট করে ইসলামের নামে গুলশান, শোলাকিয়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে একের পর এক নৃশংস হত্যাকাণ্ড এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক জুমার খুতবায় অবৈধ হস্তক্ষেপসহ সব ধরনের খুন, গুম, অপহরণ ও দুর্নীতির প্রতিবাদে দারুল উলূম হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফীর নির্দেশে প্রতিষ্ঠানটির ছাত্র-শিক্ষদের অংশগ্রহণে এ প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

বাদ আছর অনুষ্ঠিত সন্ত্রাসবিরোধী এ কর্মসূচিতে শরীক ছিলেন হাটহাজারী মাদরাসার কয়েক হাজার ছাত্রসহ প্রায় শতাধিক মুহাদ্দিস, মুফতি ও শিক্ষকবৃন্দ।

এক ঘণ্টার প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে এক বিশাল সন্ত্রাসবিরোধী বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি ডাক বাংলো চত্বর থেকে বের হয়ে চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি সড়ক, হাটহাজারী বাসস্ট্যান্ড, চট্টগ্রাম-রাঙ্গামাটি সড়ক ও কাচারী সড়ক হয়ে হাটহাজারি মাদরাসার গেটে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে সন্ত্রাস, বোমাবাজি, জুমার খুতবায় হস্তক্ষেপ, ইসলাম বিরোধী শিক্ষা নীতি ও খুন-গুম-অপহরণের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দেয়া হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মুহাদ্দিস মাওলানা মুহাম্মদ ফোরকান আহমদ, মাওলানা আশরাফ আলী নিজামপুরী, শিক্ষক মাওলানা নূরুল ইসলাম, মাওলানা আবু আহমদ, মুফতি আবু সাঈদ, মুফতি রাশেদুল ইসলাম, সাবেক ছাত্র মাওলানা মির মুহাম্মদ ইদরিস, ছাত্র প্রতিনিধি মাওলানা আবুল হাসান প্রমুখ।

সমাবেশ পরিচালনা করেন হেফাজত আমিরের প্রেসসচিব ও মাসিক মুঈনুল ইসলামের নির্বাহী সম্পাদক মাওলানা মুনির আহমদ।

আল্লামা বাবু নগরী আরো বলেন, আমরা বোমাবাজি, খুন, গুম, অপহরণ, সন্ত্রাসী হামলা, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, দুর্নীতি এবং বেছে বেছে বিদেশী, অমুসলিম, ইমাম-খতীবসহ অন্যান্য ধর্মীয় ব্যক্তিত্বদের টার্গেট করে যে খুনাখুনির ঘটনা ঘটছে, তার যেমন কঠোর নিন্দা ও প্রতিবাদ করি। তেমনি দাড়ি-টুপি-হিজাব বিরোধী অপতৎপরতা, উলামা-মাশায়েখের বিরুদ্ধে অপপ্রচার, ওয়াজ ও তাফসির মাহফিলে প্রতিবন্ধকতা, ধর্মহীন শিক্ষানীতি, স্কুল পাঠ্যবইয়ে নাস্তিক্যবাদ ও হিন্দুত্ববাদের শিক্ষাদান এবং জুমার খুতবায় হস্তক্ষেপসহ সব ইসলামবিরোধী নীতিরও তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

তিনি বলেন, এখন দ্বিমুখী নীতিতে দেশ পরিচালিত হচ্ছে। একদিকে নাগরিক অধিকার হরণ, ঘুষ-দুর্নীতি ও ত্রাসের রাজত্ব কায়েম, ধর্মের বিরুদ্ধে একের পর এক অব্যাহত আঘাত হেনে মামলাবাজি ও বন্দুকের ভয় দেখিয়ে নাগরিকদের কণ্ঠকে স্তব্ধ করে গভীর ক্ষোভ ও হতাশা তৈরি করা হচ্ছে। অন্যদিকে সন্ত্রাস, বোমাবাজি ও হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে নাগরিক প্রতিরোধের কথাও বলা হচ্ছে।

তিনি বলেন, সন্ত্রাসী ও জঙ্গীবাদিরা যেমন দেশের ভয়াবহ ক্ষতি করছে, তেমনি নাগরিকদের মৌলিক অধিকার হরণ ও বন্দুকের ভয় দেখিয়ে দেশে লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করে ক্ষমতাসীন মহলও দেশে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করছে।

তিনি বলেন, আমরা মানুষকে সব ধরনের অন্যায়, অপরাধ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানাই।

Related posts