September 21, 2018

ইসরাইলি কারাগার থেকে মুক্ত ফিলিস্তিনি বালিকা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্কঃ  ইসরাইলি কারাগার থেকে মুক্তি পেল ১২ বছরের ফিলিস্তিনি বালিকা দিমা আল ওয়াবি। ছুরি মারার চেষ্টার অভিযোগে তাকে দুমাস ইসরাইলি কারাগারে আটকে রাখা হয়। মুক্ত হয়ে পশ্চিম তীরে পৌঁছলে দিমাকে ব্যাপক সম্বর্ধনা দেয়া হয়।

ইসরাইল পশ্চিম তীরের তুলকারেম সীমান্তে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের কাছে দিমাকে হস্তান্তর করে। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে হেবরনের কাছে তার নিজের এলাকায় পৌঁছলে সবাই তাকে ঘিরে ধরে। স্থানীয় সিটি গভর্নর তাকে অভিনন্দন জানান। স্থানীয় ফিলিস্তিনিরা দিমাকে জড়িয়ে ধরে, কেঁদে, গান গেয়ে, পতাকা উড়িয়ে স্বাগত জানায়।

তাকে আটক করা হয়েছিল ৯ ফেব্রুয়ারি। দিমা গিয়েছিল পশ্চিম তীরের ইসরাইলের দখল করা ইহুদিবসতির দিকে। ওই সময় তার পরনে ছিল স্কুলের পোশাক। হাতে ছিল একটি ছুরি।

সাম্প্রতিক সময়ে ইসরাইলের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাভিগডোর লিবারম্যান ফিলিস্তিনি সংগ্রামীদের দ্রুত মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার দাবি জানিয়ে বলেছেন, যাদের হাতেই ছুরি থাকবে তাদেরকে উপস্থিত ক্ষেত্রে বা ময়দানেই হত্যা করতে হবে। তিনি আরো বলেছেন, কোনো ইসরাইলিকে কেবল আহত করা বা হত্যার দায়ে ঘটনাটি ঘটার পরই কোনো ফিলিস্তিনিকে হত্যা করতে হবে–২০১৬ সনে এমনটি আর দরকার নেই, বরং কোনো ফিলিস্তিনি শিশু কন্যার হাতে যদি একটি কাঁচিও দেখা যায় তাহলেই তাকে হত্যা করতে হবে!

ফিলিস্তিনিদের ছুরি হাতে রাখা ইসরাইলের কাছে বিরাট অপরাধ। গত অক্টোবর থেকে ফিলিস্তিনিদের হামলায় ২৮ ইসরাইলি নিহত হয়েছে। একই সময়ে ইসরাইলিরা হত্যা করেছে ২০১ ফিলিস্তিনিকে।

দিমার বিচারের সময় ইসরাইলি সামরিক আইনজীবী অভিযোগ করেন দিমা ছুরি দিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে। তাকে চার মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

দিমার আইনজীবী তারিক বারঘৌত তার ফেসবুকে লিখেছেন, সে সবচেয়ে কমবয়সী ফিলিস্তিনি বালিকা, যাকে জেলে থাকতে হলো।

ইসরাইলের সামরিক আইন অনুযায়ী ১২ বছর বয়স হলে যে কেউ অভিযুক্ত হতে পারে। যদিও এটি ইউনিসেফের নীতির সম্পূর্ণ বিপরীত।

সাম্প্রতিক সময়ে ইসরাইল ৪৫০ জন কম বয়সি ফিলিস্তিনিকে আটক করেছে, যাদের মধ্যে ১০০ জনেরই বয়স ১৬ এর নিচে।

এএফপি
দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/২৫ এপ্রিল ২০১৬

Related posts