November 20, 2018

ইলিশের সাথে চাঁদপুরবাসীর আত্মার সম্পর্ক : জেলা প্রশাসক

chandpur Elish

এ কে আজাদ,চাঁদপুর : চাঁদপুর জেলা প্রশাসক মো. আব্দুস সবুর মন্ডল বলেছেন,‘জাতীয় মাছ ইলিশ চাঁদপুরবাসীর জন্যে গর্বের। ইলিশের সাথে এ জেলার মানুষের আত্মার সম্পর্ক রয়েছে। এরইমধ্যেই ইলিশ মাছকে ব্রান্ড হিসেবে চাঁদপুরকে ব্রান্ডিং জেলা করা হয়েছে।

চাঁদপুরে ইলিশ সম্পদ রক্ষার শনিবার এনহ্যান্সড কোস্টাল ফিশারিজ ইন বাংলাদেশ (ইকোফিশ) প্রকল্পের আয়োজনে ‘আয়বর্ধনমূলক জীবিকায়ন কর্মসূচি’র অংশ হিসেবে বিকল্প কর্মসংস্থানের জন্য অনুষ্ঠানে ২৯ জন জেলের মাঝে সেলাইমেশিন ও ৬৩ জনের মাঝে ছাগল বিতরণ করা হয়। জেলেদের মাঝে সেলাইমেশিন ও ছাগল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রাধন অতিথির বক্তব্য এসব কথা বলেন তিনি।

জেলা প্রশাসক আরো বলেন,গেলো বছরগুলেতো সরকারের ইলিশ রক্ষা কার্যক্রম সফল করতে এখানকার জেলে,জনপ্রতিনিধি,সাংবাদিকসহ সর্বস্থরের জনগণ এক হয়ে কাজ করেছে। যার সুফল হিসেবে গেলো বছরে প্রচুর পরিমাণে ইলিশ উৎপাদন হয়েছে এবং গোটা বাংলাদেশের মানুষ কম মূল্যে ইলিশ খেতে পেরেছে।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার ইলিশ রক্ষায় শুধুমাত্র আইন করেই নয়, জেলেদের অর্থিক সহয়াতাসহ নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। বিগত বছরগুলোতে চাঁদপুরে ইলিশ রক্ষায় আমাদের যে অর্জন তার ধারাবাহিতকা রক্ষা করতে পারলে চাঁদপুরের সম্মান আরো বেড়ে যাবে।

তিনি আরো বলেন,গত বছর কিছু অসাধু জেলে সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নদীতে মাছ নিধন করেছে। এ বছর যাতে সেটি না হয় সেদিকে প্রশাসনের পাশাপাশি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সজাগ থাকতে হবে। আজকে ইকোফিশ প্রকল্পের আওতায় জেলেদের সেলাইমেশিন ও ছাগল দেয়া হচ্ছে। এটি একটি ভালো উদ্যোগ।

এ প্রকল্পের দায়িত্বদের অনুরোধ করবো প্রকৃত জেলে ছাড়া অন্য কেউ যাতে এ সহায়তা না পায় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। আর আজকে যারা এ সহায়তা পেয়েছেন তারা কোনো মতেই সরকারের নিষেধ অমান্য করে নদীতে নামবেন না।

লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সেলিম খানের সভাপতিত্বে ও ইকোফিশ প্রকল্প চাঁদপুর অঞ্চলের মাঠ সমন্বয়ক শংকর বিশ্বাসের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা শফিকুর রহমান ও সদর উপজেলার সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা শওকত কবির চৌধুরী।

এ সময় ইকোফিশ প্রকল্পের কিংকর সাহা,শহর যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক শফিকুর রহমান সহ প্রকল্পের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Related posts