November 14, 2018

আসিফ নজরুল ও সাংবাদিক মর্তুজার ছবি ভাইরাল! নেপথ্যে কি ?

Image

রাজনীতির মারপ্যাচে একদল আর এক দলকে আক্রমনের ঘটনা নতুন কিছু নয়। তবে সে আক্রমন যখন শালীনতার মাত্রা ছাড়ায় তখন প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়ে সবার কাছে। প্রতিপক্ষ হলে তাকে কুপোকাত করতে হবে শালীন যুক্তি দিয়ে। মিথ্যে অপপ্রচার করে কাউকে হেয় করবার মানসিকতা যাদের থাকে তারা হয়তো আপাতদৃষ্টে ভেবে বসে একহাত নিলাম বটে , কিন্তু উলটো তাদের অপপ্রচার যে বুমেরাং হয়ে তাদেরই লজ্জা দেয় একথা ভাববার মতো বোধ কিছু মানুষের জন্মায়না কখনোই !

একদল আর একদলকে নোংরা আক্রমনের অপচেষ্টায় বিব্রত হচ্ছেন সবচেয়ে সিনিয়র নেতারাও।
গতকাল রোববার থেকে এমনি নোংরামীর চেষ্টায় সামাজিক যোগাযযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে বিএনপিপন্থী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক আসিফ নজরুল এবং সাংবাদিক গোলাম মর্তুজার একটি বানোয়াট ছবি। পারিবারিক আড্ডার একটি ছবিকে রঙ চং মাখিয়ে সেটিকে ‘মদের আড্ডা’ হিসেবে আখ্যা দিয়ে ভাসছে ফেসবুকের হোমপেজ!

সদ্য চালু হওয়া একটি অনলাইন পত্রিকা ইতমধ্যে সেই ছবি সহ ‘সংবাদও প্রকাশ’ করে ফেলেছেন। স্যাটায়ার ধর্মী শিরোনাম

‘চলিতেছে টকশো: আসিফ নজরুল ও গোলাম মর্তুজার মদ খাওয়ার ছবি’
পত্রিকাটি তাদের অনুসন্ধানী খবরে লিখেছে,

যারা নিয়মিত টকশো মাতিয়ে রাখেন। সেই টকাররা এখন নিজেরাই জড়িয়েছেন কেলেঙ্কারিতে। সম্প্রতি অনলাইনে প্রকাশ পেয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক আসিফ নজরুল এবং সাংবাদিক গোলাম মর্তুজা মেয়ে নিয়ে এক সাথে মদ খাওয়ার একটি ছবি।

রবিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল আকারে ছড়িয়ে পড়েছে ছবিটি।

ছবিতে দেখা যায়, আসিফ নজরুলের ২য় স্ত্রী শিলা এবং সাগুফতা নামের আরেকজন মেয়েকে নিয়ে সাংবাদিক গোলাম মর্তুজা মদ খাওয়া নিয়ে ব্যাস্ত।

এ নিয়ে সোশাল মিডিয়াতে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। তাদের নীতি নৈতিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন অনেকেই।

এ বিষয়ে আসিফ নজরুলের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তিনি কিছু না বলে লাইন কেটে দেন। আর মর্তুজার ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে। গতকাল রাতে তাদের এই ছবিটি ফেসবুকে ভাইরাল আকার ধারন করে এবং তীব্র নিন্দার ঝড় বয়ে যায়। এই ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে এবসোলিউট ব্র‍্যান্ডের ভদকা এবং কোকের বোতল সামনে নিয়ে গোলাম মর্তুজা এবং আসিফ নজরুল বসে আছেন।

এনিয়ে ফেসবুকে একজন তরুণ তার নিজওয়ালে পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেছেন, “চলিতেছে টকশো”।

ফেসবুক ব্যাবহারকারী গোলাম ইজতেজা চৌধুরী তার ওয়ালে লিখেছেন, আসিফ নজরুল ও গোলাম মতুর্জার সুশীলতার চর্চা চলছে।

এমন বিভ্রান্তিকর সংবাদ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে। খোদ সরকার পন্থী অনলাইন একটিভিস্টদের কেও কেও বলছেন, কিছু অতি উতসাহী চেতনা সর্বস্ব তথাকথিত সৈনিকদের কারনেই আওয়ামী লীগ প্রশ্নবিদ্ধ হয়। এদের এমন ‘ নোংরামীর’ জন্যই জামায়াত-বিএনপিপন্থীরা সমালোচনার উর্ধে থাকা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে নিয়েও অপ্রত্যাশ্যিত ও বিতর্কিত মন্তব্য করে।

অন্যদিকে,সময়ের কণ্ঠস্বরের পক্ষ থেকে টেলিফোনে এই প্রসঙ্গে জানতে চাইলে, আসিফ নজরুল বলেন, আমাকে কোন পত্রিকা থেকে এই প্রসঙ্গে জানতে ফোন করেনি কেও। পুরোটাই মিথ্যাচার। আর এমন নোংরা মানসিকতা নিয়ে আমাদের হেয় করবার এই প্রবনতাকেও ধিক্কার জানাই। আর সাংবাদিক গোলাম মতুর্জা জানালেন, ‘এমন নোংরা আক্রমনের শিকার আগেও হয়েছি। কিছু মন্তব্য করে কারো উতসাহ বাড়াতে চাইনা । তবে এমন অশ্লীল ভাবনা যাদের তাদের বোধদয় হোক এটাই প্রত্যাশা করি’। সময়ের কণ্ঠস্বর

Related posts