December 10, 2018

আসামীদের হুমকিতে বাড়ি ছাড়া পরিবার

বিশ্বনাথে প্রবাসীর স্ত্রীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ৮লাখ টাকার মালামাল লুট : মামলা দায়ের

67584বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথের দৌলতপুর ইউনিয়নের মৌলভীরগাঁও গ্রামে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার সহ ঘরের প্রায় ৮লাখ টাকার মালামাল লুট করার অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। প্রতিপক্ষের ৯জনকে অভিযুক্ত করে গত ৪জুলাই বিশ্বনাথ থানায় এই মামলাটি দায়ের করেন মৌলভীরগাঁও গ্রামের সৌদিআরব প্রবাসী আজর আলীর স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৪৫)। মামলা নং ২।

অভিযুক্তরা হলেন- মৌলভীরগাঁও গ্রামের মৃত ইর্শ্বাদ আলীর পুত্র ফজর আলী উরফে বশর আলী (৫৫), ফজর আলীর পুত্র হোসেন আহমদ (৩৫), মৃত আব্দুল কুদ্দুছের পুত্র আতাউর রহমান (৩০), মৃত ফয়জুল্লাহর পুত্র সফিক আলী (৪০), দশপাইকা গ্রামের মৃত আপ্তাব আলীর পুত্র নয়াছ আলী (৩৫), মৌলভীরগাঁও গ্রামের ফজর আলীর স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৪৮), মৃত আরমান আলীর স্ত্রী সাজিদা বেগম (৪০), হোসেন আহমদের স্ত্রী জেসমিন বেগম (২২) ও দশপাইকা গ্রামের মৃত আপ্তাব আলীর স্ত্রী আঙ্গুরী বেগম (৪৪)। এছাড়া মামলায় আরো ৪/৫ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে বাদী আনোয়ারা বেগম উল্লেখ করা হয়, তার স্বামী আজর আলী সৌদি আরবে থাকেন এবং ১ ছেলে ও ২ মেয়ের মধ্যে ছেলে শিব্বির আহমদ যুক্তরাজ্যে ও বিবাহিতা ২মেয়ে তাদের স্বামীর বাড়িতে থাকেন। ফলে বাড়িতে তিনি (আনোয়ারা) একা বসবাস করেন। মামলার প্রধান অভিযুক্ত তার ভাসুর ফজর আলী উরফে বশর আলীর সঙ্গে তার স্বামী আজর আলীর দীর্ঘদিন ধরে বসতঘর ও জায়গা জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এরই জের ধরে গত ২৭ জুন সকাল সাড়ে ১০টায় অভিযুক্তরা জোরপূর্বক বাদীর বসতঘরে প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে বাদীকে জিম্মি করে ও ভয় দেখিয়ে তার ঘরে থাকা নগদ ৫০হাজার টাকা, ১০ভরি স্বর্ণালংকার’সহ প্রায় ৭ লাখ ৮২হাজার টাকার মালামাল লুট করে নেন। এসময় আনোয়ারা বেগম চিৎকার করলে অভিযুক্তরা তাকে মারধর করে ঘর থেকে বাহিরে বের করে দিয়ে দরজায় তালা লাগিয়ে দেয়। আনোয়ারা বেগমকে অভিযুক্তরা প্রাণে হত্যার হুমকি দেওয়ায় ভয়ে তিনি জগন্নাথপুর উপজেলার গড়গড়িয়া গ্রামে তার পিত্রালয়ে বসবাস করে আসছেন বলে এজাহারে উল্লেখ করেন।

মামলা দায়েররের সত্যতা নিশ্চিত করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বিশ্বনাথ থানার এস.আই রাকিবুল হাছান বলেন, প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গিয়েছে। মামলার উদ্ধার করে বাদিনীর জিম্মায় রাখা হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Related posts