November 18, 2018

আলোচিত গৃহবধু হত্যার অভিযোগ ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা

আল-মামুন, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: দীঘিনালার আলোচিত গৃহবধু আফসানা মিমি (মুক্তা) হত্যা মামলা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টার অভিযোগ করেছে নিহত মুক্তার মামা জাহেদুল ইসলাম। দীর্ঘ সময় গড়িমসির পর পুলিশ মামলা নিলেও প্রভাবশালীদের মদদে বর্তমানে অভিযোগ ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে।

দীঘিনালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: মিজানুর রহমান ময়না তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার আগেই এ ঘটনাকে বার বার আত্মহত্যা বলে অভিহিত করায় পুলিশের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানায়, আলোচিত মুক্তার রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় স্থানীয়রা প্রভাবশালীদের ভয়ে মূখ খুলতে পারছে না। মুক্তার রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনাকে আত্মহত্যা নয় দাবী করে এটি ঠান্ডা মাথার পরিকল্পিত হত্যাকান্ড অভিহীত করে সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেন এলাকাবাসী।

নিহতের পরিবারের অভিযোগ, স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের কারণে মামলার অভিযোগকে প্রভাবিত করা হচ্ছে। এ ঘটনার অভিযুক্ত ৩ জন্যকে আটক করা হলেও বাকীদের আটকে পুলিশ আন্তরিক ভাবে কাজ করছে না বলে জানান নিহতের স্বজনরা।

সোমবার রাতে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর দীঘিনালা থানা পুলিশ মুক্তার স্বামী নিজাম মজুমদার (২৬),দেবর আরমান (২৩) ও ভাসুর জসিম উদ্দিনকে আটক করে। মামলা গ্রহণের তিন দিন পর পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত মুক্তার শ্বাশুড়ি মাফিয়া বেগম (৫০) ও জালাল (৪৫) কে আটক করতে পারেনী।

আল-মামুন, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

Related posts