November 15, 2018

আর কোনো সম্পর্ক রাখতে চাচ্ছে না ইসলামী ঐক্যজোট!

স্টাফ রিপোর্টারঃ    আসন্ন পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ এ বৈঠকে জোটের তৃতীয় বৃহত্তম দল ইসলামী ঐক্যজোটের অনুপস্থিতির কারণ জানতে চেয়েছেন জোটের অন্য শরিক দলগুলোর নেতারা। কিন্তু বিএনপির কাছ থেকে কোনো সন্তোষজনক জবাব পাননি তারা। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের মহাসচিব পর্যায়ের বৈঠকে অংশ নেয়নি ইসলামী ঐক্যজোট।

শনিবার (১৯ ডিসেম্বর) রাজধানীর গুলশানে খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় ঘণ্টাব্যাপী এ বৈঠক।

বৈঠকে অংশ নেওয়া ২০ দলীয় জোটের বেশ কয়েকটি শরিক দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জোট থেকে বের হয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিতে থাকা ইসলামী ঐক্যজোটের অনুপস্থিতি ও এ নিয়ে প্রশ্ন ওঠার তথ্য পাওয়া গেছে। তবে এ ব্যাপারে উদ্ধৃত হতে রাজি হননি কেউ।

জোটের সমন্বয়ক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে এ বৈঠকে অবশ্য জামায়াতেরও কোনো প্রতিনিধি ছিলেন না।

সূত্র জানায়, ইসলামী ঐক্যজোটের কোনো প্রতিনিধিকে বৈঠকে না দেখে বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমান মির্জা ফখরুলের কাছে জানতে চান ‘তারা আসেনি কেন’?

জবাবে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলগীর বলেন, ‘তাদের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। জেলা সম্মেলনে যোগ দিতে যাওয়ায় আজকের বৈঠকে ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব হাজির হতে পারেননি’।

জোট সমন্বয়কের এমন উত্তরে সন্তুষ্ট হতে না পেরে শরিক দলের আরেক মহাসচিব পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘ইসলামী ঐক্যজোটের সবাই কি জেলা সম্মেলনে যোগ দিতে ঢাকার বাইরে গেছেন? অন্তত একজন প্রতিনিধিকে তারা পাঠাতে পারতো’।

জবাবে ফখরুল বলেন, দুই একজন না এলে এমন কোনো সমস্যা নেই। আপনরা যারা এসেছেন, তাদের সঙ্গেই আলোচনা সেরে ফেলতে হবে।

এ সময় খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ড. আহমেদ আব্দুল কাদের বলেন, এখন আলোচনা করে কী লাভ! বড় দল হিসেবে নির্বাচনে আপনারা সব প্রার্থী দেবেন- এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু যখন বলা হচ্ছে, নির্বাচন জোটগতভাবে করবেন, তখন আমাদের সঙ্গে একটু বসা দরকার ছিল।

ক্ষুব্ধ আহমেদ আব্দুল কাদের এ সময় আরো বলেন, প্রার্থী বাছাইয়ের আগে আপনারা আমাদের কাছে তালিকা চেয়েছিলেন। তালিকা তৈরির পর আপনাদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে সব নম্বর বন্ধ পেয়েছি। যে মেইল অ্যাড্রেস দিয়েছিলেন, সেখানেও ঢোকা যাচ্ছিল না।

জোটের অন্য শরিকরাও প্রায় একই অভিযোগ উত্থাপন করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সামনে।

সূত্র জানায়, শরিকদের এমন তোপের মুখে জোটের প্রধান সমন্বয়ক মির্জা ফখরুল সব কিছু ভুলে বিএনপি মনোনীত প্রার্থীর জন্য কাজ করার অনুরোধ জানান।

পাশাপাশি জোট শরিক ইসলামী ঐক্যজোটের বিষয়টি নিয়ে আপাতত কোনো দীর্ঘ আলোচনায় না যাওয়ার অনুরোধ জানান তিনি।

এদিকে মহাসচিব পর্যায়ের বৈঠকে ইসলামী ঐক্যজোটের অনুপস্থিতির ঘটনায় জোট ভাঙার বিষয়টি আরো পরিষ্কার হয়ে উঠেছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

তারা বলছেন, কেবল জেলা সম্মেলনের অজুহাত দেখিয়ে জোটের বৈঠকে অংশ না নেওয়ার কোনো কারণ থাকতে পারে না। মূলত, জোটের সঙ্গে আর কোনো সম্পর্ক রাখতে চাচ্ছে না ইসলামী ঐক্যজোট। আপাতত দলটির নেতাকর্মীরা নিজেদের কেন্দ্রীয় সম্মেলন নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ৭ জানুয়ারির সম্মেলন থেকেই জোট ছাড়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবেন তারা।

তবে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ময়মনসিংহ জেলা সম্মেলন থেকে ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ  বলেন, আমি এখন ব্যস্ত আছি। ফিরে এসে সব বলবো।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts