September 21, 2018

এবার ‘আম’ নিয়ে টানাটানি!

ঢাকা:   জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) প্রতীক ‘মশাল’ পেতে মরিয়া দলটির দুই পক্ষ। এ নিয়ে নির্বাচন কমিশনে চলছে শুনানি। এরই মধ্যে বিপত্তি বেধেছে ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টির (এনপিপি) প্রতীক আম নিয়ে। এই আমের দাবিদারও দুটি পক্ষ। এটির নিষ্পত্তি করতে চাচ্ছে নির্বাচন কমিশন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নবম ও দশম সংসদ নির্বাচনে আম প্রতীক নিয়ে এনপিপির প্রার্থীরা অংশ নেয়। পরবর্তী সময়ে উপনির্বাচন নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ বাধে।

শেখ শওকত হোসেন নীলু ও ফরিদুজ্জামান ফরহাদের পাল্টাপাল্টি বহিষ্কার ও নতুন কমিটি ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে দুটি পক্ষই নির্বাচন কমিশনের কাছে ‘আম’ প্রতীকের দাবি নিয়ে চিঠি দিয়েছেন।

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, বছরখানেক ধরে এনপিপির কমিটি নিয়ে বিরোধ চলছে। তাদের চিঠিপত্রগুলো পর্যালোচনাও চলছে।

ইসি সচিব বলেন, ‘কমিশন দুটি কমিটির শুনানি করে প্রকৃত এনপিপির বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবে। দুই পক্ষকে শিগগির ডাকা হবে।’

২০০৮ সালের ১৩ নভেম্বর এনপিপি ‘আম’ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত হয়। নিবন্ধনকালে দলটির চেয়ারম্যান ছিলেন শেখ শওকত হোসেন নীলু। আর মহাসচিব ছিলেন অ্যাডভোকেট ফরিদুজ্জামান ফরহাদ।

২০১৪ সালের ১৬ অগাস্ট চেয়ারম্যান নীলু বহিষ্কার করেন মহাসচিব ফরহাদকে। ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয় মুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল হাই মণ্ডলকে।

পরে ১৮ জুলাই চেয়ারম্যান নীলুর সভাপতিত্বে এনপিপির প্রেসিডিয়াম সভা হয়। নীলু-হাই নতুন কমিটির নিয়ে ওই বছরের ২২ অক্টোবর জাতীয় কাউন্সিল অধিবেশনে অনুমোদন করে ইসিতে তালিকা পাঠায়।

গত বছরের ১৪ অক্টোবর তৎকালীন মহাসচিব ফরহাদ নিজেকে চেয়ারম্যান ও মো. মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফাকে মহাসচিব করে নতুন কমিটি ঘোষণা করেন।

এ সময় শওকত হোসেন নীলুকে বহিষ্কারসংক্রান্ত কাগজপত্রসহ নতুন কমিটির ইসিতে তালিকা পাঠায়। সেই সঙ্গে ২০১৪ সালের ১৯ জুলাই এনপিপির এ অংশের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কার্যকরী কমিটির সভার কার্যবিবরণী যুক্ত করে দলীয় প্রতীক ‘আম’ দাবি করে ফরহাদ।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, নাম ও প্রতীক নিয়ে বিভক্তি দেখা দিলে কিংবা একই দাবিদার থাকলে সে বিষয়ে শুনানির পর ইসি সিদ্ধান্ত দেবে কোনটি মূল দল।

জাসদের মশাল প্রতীক নিয়েও চলছে জটিলতা। কমিশন দুই পক্ষের শুনানি করছে।

এনটিভি
দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/০৮ এপ্রিল ২০১৬/রিপন ডেরি

Related posts