September 20, 2018

‘আমি দুটি ছবি নিয়েই আশাবাদী’

জনপ্রিয় অভিনেত্রী তিশা

ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী তিশা মডেলিং ও নাটকের বাইরে তিনি মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’ ও ‘টেলিভিশন’ ছবিতে অভিনয় করেছেন। বর্তমানে শামীম আহমেদ রনির ‘মেন্টাল’ ছবিতে শাকিব খান ও অনন্য মামুনের ‘অস্তিত্ব’ ছবিতে আরেফিন শুভর বিপরীতে অভিনয় করছেন। মিডিয়ায় এ সময়ের ব্যস্ততা, সংসারজীবন সহ নানা বিষয়ে আজকের ‘আলাপন’-এ কথা বলেছেন তিনি।
কেমন আছেন? আজ কী কাজ নিয়ে ব্যস্ততা?

জ্বি ভালো। আজ পরিবারের কাজ নিয়ে ব্যস্ত আছি।

‘অস্তিত্ব’ ছবির কাজ সম্প্রতি শেষ করলেন, এ ছবিটি নিয়ে কিছু বলুন?

ছবিটির কাজ প্রায় শেষ। অল্প কিছু বাকি রয়েছে। এর জন্য হয়তো এক থেকে দুই দিন সময় লাগবে। এ ছবিতে আমার চরিত্রের নাম পরী। সিলেটের শ্রীমঙ্গলে একটানা ১২ দিনের শুটিং হয়েছে। এরপর আরও কিছু চমৎকার জায়গায় এ ছবির কাজ হয়েছে। এর বেশি কিছু বলা পরিচালকের নিষেধ রয়েছে। আর টিভি নাটকে আরেফিন শুভ ও আমি একসঙ্গে কাজ করেছি। এবার চলচ্চিত্রে কাজ করছি। বাংলাদেশী সিনেমার দর্শকরা অবশ্যই নতুন কিছু পাবেন।

আর ‘মেন্টাল’ ছবির খবর কী ? ছবিটি নিয়ে কতটুকু আশাবাদী আপনি?

‘মেন্টাল’ ছবিরও কয়েকদিনের কাজ বাকি রয়েছে। এ ছবিতে আমার চরিত্রের নাম সিমি। এখানে একজন সাংবাদিকের চরিত্রে অভিনয় করেছি; যিনি কাজ করেন অপরাধ নিয়ে। ছবিতে আমার জুটি হিসেবে থাকছেন শাকিব খান। দুটি ছবি দুই ধরনের গল্প। আমার কাছে ভালো লেগেছে বলেই তো অভিনয় করছি। আমি দুটি ছবি নিয়েই আশাবাদী।

নাটকে কেমন সময় দিচ্ছেন?

নাটকে আপাতত তেমন সময় দেয়া হচ্ছে না। তবে বিশেষ দিবসের নাটকের কথা চলছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে কাজ শুরু করব।

সংসার কেমন চলছে?

সংসার বেশ ভালোই চলছে।

আবারও দক্ষিণ কোরিয়ার ‘সাংস্কৃতিক শুভেচ্ছাদূত’ নির্বাচিত হলেন, এ বিষয়ে বলুন?

বছর দুয়েক আগে দক্ষিণ কোরিয়ার ‘সাংস্কৃতিক শুভেচ্ছাদূত’ নির্বাচিত হয়েছিলাম। এরই মধ্যে সেই মেয়াদ শেষ হয়েছে। আবারও এ সম্মানটি আমাকে দেয়া হয়েছে। এবারও এর মেয়াদ দুই বছর। গত ১৩ই নভেম্বর বিকালে রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরে ‘কোরিয়ান চলচ্চিত্র উৎসব’ উদ্বোধনের আগে আমার হাতে এ সংক্রান্ত নিয়োগপত্র তুলে দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার নতুন রাষ্ট্রদূত আন সিউং ডু। আর একজন অভিনেত্রী হিসেবে কোন দেশের ‘সাংস্কৃতিক শুভেচ্ছাদূত’ হওয়ার বিষয়টি অনেক বেশি সম্মানের। আগামী দুই বছর বাংলাদেশ ও কোরিয়ার সাংস্কৃতিক সহযোগিতা বৃদ্ধিতে আমি কাজ করবো।

এরই মধ্যে নতুন কোন ছবিতে প্রস্তাব পেয়েছেন কী?

ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব তো অনেকেই দেয়। কিন্তু সব ছবিতে তো আমি অভিনয় করি না বা করাও সম্ভব না। ‘মেন্টাল’ ও ‘অস্তিত্ব’ ছবির গল্প খুবই ভালো লেগেছে, তাই রাজি না হয়ে পারিনি। আমি ছবি করার ক্ষেত্রে গল্প ও চরিত্রটাকে প্রাধান্য দিয়েই কাজ করি। এই ছবি দুটির কাহিনী অন্যরকম। দুটি দুই ধরনের চরিত্র। তাই এ ছবিগুলো দর্শকরা পছন্দ করবে বলে আশা করছি।

সামনের পরিকল্পনা কী? চলচ্চিত্রেই কি স্থায়ী হচ্ছেন?

পরিকল্পনা করে আমি কাজ কখনই করিনি। তাই চলচ্চিত্রের স্থায়িত্ব নিয়ে বলতে পারবো না। তবে এটুকু বলতে চাই, আমার মন চাইলে নাটক, মন চাইলে চলচ্চিত্র করব। তবে কোন পরিকল্পনা করে চলা কখনই হয়নি, কখনও মনে হয় হবেও না।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts