November 13, 2018

আমার দ্বিমত আছে—–আইনমন্ত্রী

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক দ্বিমত পোষণ করেছেন জাতীয় সংসদ নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করার অভিযোগে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নিবন্ধন বাতিলের সুপারিশ বিষয়ে।

বুধবার আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি টিআইবি’র নিবন্ধন বাতিলের সুপারিশ করার পর এ নিয়ে তার দ্বিমত থাকার কথা বলেন আইনমন্ত্রী।

কমিটির বৈঠক শেষে সভাপতি সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত সাংবাদিকদের বলেন, ‘টিআইবি’র বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া ছাড়া কোনো উপায় নেই। সংসদকে হেয়প্রতিপন্ন করায় এটির নিবন্ধন বাতিলের সুপারিশ করেছি আমরা।’

এ সময় সুরঞ্জিত আরো বলেন, এনজিও বিষয়ক ব্যুরো বিদ্যমান বৈদেশিক অনুদান (স্বেচ্ছাসেবামূলক কার্যক্রম) রেগুলেশন আইন অনুযায়ী টিআইবির নিবন্ধন বাতিল করতে পারবে।

বুধবার বিকেলে সংসদ অধিবেশন শুরুর আগে আনিসুল হক বলেন, ‘লাইসেন্স বাতিল কেরার সিন্ধান্ত নেওয়া ঠিক হবে না। এক্ষেত্রে আমার দ্বিমত আছে।’

সংগঠনটির বিষয়ে কি কোনো পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছেন- এমন প্রশ্নের উত্তরে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘অবশ্যই ব্যবস্থা নিতে হবে। আমার মতে, টিআইবির হেডকোয়ার্টারে যথাযথভাবে নালিশ দিলেই হবে।’

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান সম্পর্কে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে তারা যে রিপোর্ট পেশ করেছেন তা অযোক্তিক কিছু না। তবে জাতীয় সংসদ নিয়ে তিনি (ইফতেখারুজ্জামান) যা বলেছেন, তা কারোই কাম্য না। আমার মনে হচ্ছে, এটি তার নিজস্ব কমেন্টস (মন্তব্য)।’

প্রসঙ্গত, বুধবার সংসদ ভবনে সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে আইনমন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন না।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts