September 21, 2018

আমার অধিনায়ক কোন ভুল করেনিঃ আমলা

hashim-amla1

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজটি ইতোমধ্যে ২-০ ব্যবধানে জিতে নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। এই জয় নিঃসন্দেহে দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য সুসংবাদ, পাশাপাশি দুঃসংবাদও পেয়েছে তারা। আর প্রোটিয়া শিবিরে সেই দুঃসংবাদ ডেকে এনেছেন দলীয় অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস।
ওভাল টেস্টে শুরু থেকেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে অস্ট্রেলিয়া। অপরদিকে বল হাতে দক্ষিণ আফ্রিকার বোলাররা আগুন ঝরাচ্ছিলেন রীতিমতো। দলের বোলারদের এই কাজটা বোধ হয় আরো তরান্বিত করতে চেয়েছিলেন ডু প্লেসিস। মুখ থেকে চুইংগামের থুথু দিয়ে বল পালিশ করছিলেন প্রোটিয়া অধিনায়ক। ক্রিকেটের আইনে যা দণ্ডনীয় অপরাধ।

ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি শুক্রবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, প্রোটিয়া অধিনায়ক ডু প্লেসিসকে আইসিসি কোড ধারা ২.২.৯ ভঙ্গের জন্য অভিযুক্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বল টেম্পারিং এর অভিযোগ আনা হয়েছে। আর এই অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইসিসি কর্তৃক একটি টেস্ট ম্যাচে নিষিদ্ধ হতে পারেন প্লেসিস।

তবে আইসিসি কর্তৃক আনিত এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান হাসিম আমলা। এমনকি ডু প্লেসিসের বিরুদ্ধে আনিত এই অভিযোগকে হাস্যকর এবং কৌতুকপূর্ণ অভিব্যক্তি হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন আমলা।

আমলা বিশ্বাস করেন তার দলের বর্তমান অধিনায়ক এই ধরনের ভুল করতে পারেন না। মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে শুক্রবার বিকালে সংবাদ মাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে আমলা এসব কথা বলেন। যদিও দলের অনুশীলনে এসময় উপস্থিত ছিলেন অভিযুক্ত ডু প্লেসিস। তবে এ বিষয়ে কোন কথা বলতে তিনি রাজি হননি।

সংবাদ মাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাতকারে আমলা বলেন,”এখানে উপস্থিত সকলকে শুভ বিকাল। আপনারা (সাংবাদিকগণ) দেখতে পাচ্ছেন আমার পিছনে আমার দলের সকল সদস্যই উপস্থিত রয়েছে। তার মানে হচ্ছে, আমি যা বলছি সেটা আমার দলের সকল সদস্যেরই বক্তব্য। আমরা একতাবদ্ধ হয়েই বলতে চাই, আইসিসি আমাদের দলের অধিনায়ক ডু প্লেসিসের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এনেছে তা নিতান্তই হাস্যকর এবং কৌতুকপূর্ণ। আমরা এর বিরুদ্ধে দলের সকলে একতাবদ্ধ হয়েই দাড়াতে চাই”।

বোলারদের হাতে বল তুলে দেয়ার পূর্বমুহূর্তে অধিনায়কের মুখ থেকে চুইংগামের থুথু দিয়ে বল পালিশ করাটাকে কিভাবে দেখছেন আমলা! সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে আমলা বলেন, “আসলেই অধিনায়ক তাই করেছেন কিনা এটা নিয়ে আমি এখনো নিশ্চিত নই।  তবে যদি করেও থাকে, আমরা মনে করি আমাদের অধিনায়ক ভুল কিছু করেনি। আমরা কোন ভুল করিনি।  প্রতিপক্ষ দলের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার সময় প্রোটিয়ারা সবসময়ই এটা করে এসেছে। এটা আজই নতুন নয়। তাহলে আজ কেন এ অভিযোগ উঠেছে? আর ফিল্ডিং করার সময় সবাই চুইংগাম চিবায়। আমি নিজেও তাই করি। এখন আপনারা বলতে চাচ্ছেন প্রতিবার বিরতিতে গিয়ে আমাকে দাঁত ব্রাশ করতে হবে। আপনার বিরুদ্ধে যেকোনো অভিযোগ আনার পূর্বে অবশ্যই তার একটা যৌক্তিকতা থাকতে হবে। ম্যাচ চলাকালীন সময়ে উদ্যম ঠিক রাখতে আমরা এই চুইংগাম খাই। আর এটা দিয়ে বল পালিশ  করার মত কোন অসৎ উদ্দেশ্য আমার অধিনায়ক বা আমার দলের সদস্যের ছিল না”।

আমলা আরও বলেন, চুইংগামের থু দিয়ে যে বল পালিশ করা যায় এবং এর থেকে যে বল সুইং করা যায় এরকম কোন উদ্ভট তথ্য আমি সত্যিই জানতাম না। এটা কি কোন বোলিং কৌশল? এর আদৌ কোন প্রমাণ আছে? আইসিসির এই অভিযোগ শুনে সত্যিই আমরা বিস্মিত হয়েছিলাম। আজ আমরা সত্যিই নতুন কিছু শিখলাম। আমার মুখের মধ্যে মাঝে মাঝে বাদাম, বাবুলগাম, বিলটং জাতীয় কিছু থাকে। আচ্ছা, বোলিং এর ক্ষেত্রে কোনটি বেশী কার্যকর? আপনার একটু বলবেন? আমি সত্যিই আপনাদের মাধ্যমে ক্রিকেট বিশ্লেষকদের থেকে জানতে চাই”।

Related posts