September 25, 2018

”আটক হয়নি কেউ”

শামসুজ্জোহা পলাশ,
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ
চুয়াডাঙ্গা দামুরহুদা গবিন্দপুর গ্রামে অবস্থিত আশ্রমের ২ টি ঘর পুরিয়ে দেয়া ও দুই বাউল সাধকের চুল কর্তন, শারিরিক নির্যাতন, ধর্মিও বইপত্র ,বাদ্যযন্ত্র ও আসবাবপত্র সহ প্রয়োজনিয় কাগজ পত্রে অগ্নিসংযোগ ঘটনায় মামলা দায়ের হলেও পুলিশ গত ৪৮ ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও ঘটনার সাথে জড়িত কোন আসামি আটক করতে পরেনি।

জেলা ব্যপি নিন্দা প্রতিবাদের ঝড় বয়ে চলেছে। আশ্রমের খাদেম জুলমত শাহ সাংবাদিকদের জানান ভয়ে আতংকে আশ্রম ছেড়ে পাশের গ্রমে রাত্রি জাপন করেছিলাম বেলা উঠার পর আশ্রমে ফিরেছি।

এদিকে রবিবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক জনাবা সায়মা ইউনুস সহ জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা দামুড়হুদা গবিন্দপুর গ্রমের জালিয়ে দেয়া আশ্রম পরিদর্শন করেছে ও ক্ষতিগ্রস্তদের সাথে কথা বলেছেন ও খোজ খবর নিয়েছেন।

এসময় আশ্রমের খাদেম জুলমত শাহ ,সাধু শ্রী হরেন্দ্রনাথ ও মমেনা বেগম শহ আশ্রমের ভক্ত বৃন্দরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন । জেলা প্রশাসক ক্ষতি পুরন বাবদ আর্থিক সহায়তা ও পুর্নাঙ্গ নিরাপত্তার জন্য যা প্রয়োজন তাই করা হবে বলে আশ্বাস প্রদান করেন ।

দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জিহাদ জানান আসামিদের ধরতে জোর প্রচেস্টা চালানো হচ্ছে।

উল্লেখ্য শুক্রবার গভীর রাতে চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদার গবিন্দপুর গ্রামে মুখোস ধারী দুর্বৃত্তরা এক সাধুর আশ্রমে হামলা চালিয়ে মার পিট ও গাছে বেধে নির্যাতন করে চুল কেটে দিয়েছিল ।

যাওয়ার সমায় আশ্রমের দুইটি ঘর পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে ১০ দিনের মধ্যে এলাকা ছেড়ে দেয়ার হুমকিও দিয়ে চলে যায়।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts