October 20, 2018

আকাশে দেখা যাবে মানুষের তৈরি চাঁদ!

খালি চোখে রাতের আকাশের দিকে তাকিয়ে চাঁদ, তারা, নক্ষত্র কতকিছুই না দেখা যায়। এর সবকিছুই সৃষ্টিকর্তার বানানো। তবে এবার মানুষ এমন কিছু আকাশে পাঠাচ্ছে, যা রাতের আকাশে চাঁদ বা তারার মতই উজ্জ্বল দেখা যাবে আর পৃথিবীর কক্ষপথে ঘুরে বেড়াবে।

রাশিয়া এবার এমন এক উপগ্রহ পাঠাতে যাচ্ছে যা সূর্যের আলোকে পৃথিবীর দিকে প্রতিফলিত করবে। এই উপগ্রহের রাশিয়ান নাম ‘মেয়াক’ বা ইংরেজিতে ‘বিকন’।

আলো প্রতিফলনের জন্য এই উপগ্রহের থাকবে পিরামিড আকৃতির বিশাল কাঠামো। সূর্যের বিপরীতে পৃথিবীর কক্ষপথের সঙ্গে এমন ডিজাইনে এই উপগ্রহটিকে তৈরি করা হয়েছে যেন, সব সময়ই সূর্যের আলো এর ওপর এসে পৃথিবীর দিকে প্রতিফলিত হয়। যার ফলে চাঁদের থেকে অনেক উজ্জ্বল দেখা যাবে।

এই উপগ্রহটি কোনো ধরনের পর্যবেক্ষণ বা বৈজ্ঞানিক কাজের জন্য কক্ষপথে পাঠানো হবে না। মূলত মানুষের বানানো কৃত্রিম উজ্জ্বল তারা দেখানোর জন্যই কক্ষপথে পাঠানো হবে।

এই প্রকল্পের প্রধান আলেকজান্ডার সাইনকো এক বিবৃতি তে জানান, ‘আমরা এমন মহাকাশ যান আমাদের কক্ষপথে পাঠাবো যা আকাশে চাঁদের মত উজ্জ্বল থাকবে এবং পৃথিবীর যেকোনো স্থান থেকে দেখা যাবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা সবাইকে দেখাতে চাই মহাকাশ অনুসন্ধান কতটা উত্তেজনা পূর্ণ, তার থেকে গুরুত্বপূর্ণ হল যে কেউ এই আবিষ্কার দেখতে পারবে।’

মেয়াক দেখতে অর্ধ রুটির মত, ১৬ বর্গ মিটারের এই উপগ্রহটি ৬০০ কি.মি. দূরে পৃথিবীর কক্ষপথে একটি বিশাল আকারের প্রতিফলিত পিরামিড এর মত দেখা যাবে।

এই বিশাল কাঠামোটি পলিমার ধাতু দিয়ে বানানো। ইঞ্জিনিয়াররা এমন একটি উপগ্রহ বানানোর চেষ্টা করছে যা কক্ষপথের নিম্নস্তর দিয়ে ইঞ্জিনবিহীন চলতে সক্ষম।

রাশিয়ান ফেডারেল স্পেস এজেন্সি রস্কস্মস এই বছরের জুলাই মাসে মেয়াককে কক্ষপথে পাঠানোর কথা জানিয়েছে। কৃত্রিম এই উপগ্রহের টেষ্ট ইতিমধ্যে হয়ে গেছে তবে এখনো অনেক কাজ বাকি থাকার কথা রাশিয়ান ফেডারেল স্পেস এজেন্সি জানিয়েছে।

Related posts