September 21, 2018

আইপিএলে স্ত্রীকে বাজি রেখে হারলেন দ্রৌপদী!

স্পোর্টস ডেস্কঃ  মহাভারতে যুধিষ্ঠির তার স্ত্রী দ্রৌপদীকে বাজি রেখে হেরে যান। এবারের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) আরেক দ্রৌপদীর কথা জানা গেল।

আইপিএলের একটি ম্যাচের হারজিত নিয়ে স্ত্রীকে বাজি রেখে হেরে গেছেন ভারতের উত্তর প্রদেশের গোবিন্দ নগরের এক মাতাল ব্যক্তি। বাজিতে জিতে যাওয়া ব্যক্তি ওই নারীকে তার কাছে চলে আসার জন্য চাপ দিতে থাকলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

এ নিয়ে গোবিন্দ নগরের একটি থানায় মামলা হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কর্মীরা বিপদগ্রস্ত নারীকে পুলিশের কাছে নিয়ে যান। তবে স্ত্রীকে বাজি রাখা সেই ব্যক্তিকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের এক খবরে শনিবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত ব্যক্তি শেয়ার মার্কেটে তার সব অর্থকাড়ি খুইয়েছেন। পরে আইপিএলের একটি ম্যাচে তিনি স্ত্রীকে বাজি রেখেছেন। কিন্তু এতেও তিনি হেরেছেন।

ভুক্তভোগী স্ত্রী জানিয়েছেন, তার স্বামী প্রায়ই তাকে মারধর করেন। এক সময় তার বাপের বাড়ি থেকে ৭ লাখ টাকা যৌতুক আনার জন্য চাপ প্রয়োগ করে।

পুলিশ আরো জানিয়েছে, আইপিএল ম্যাচে স্ত্রীকে হারানোর পর বাজিতে জিতে যাওয়া লোকটি তার বাড়ির পাশে ঘোরাঘুরি শুরু করেন। তিনি এই নারীকে নিয়ে যেতে চান। ফোনের পর ফোন করে তাকে হয়রানি করতে থাকেন। শেষ পর্যন্ত শুক্রবার এই নারী পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করতে বাধ্য হন।

পুলিশ বিষয়টিকে ‘দুঃখজনক’ বলে উল্লেখ করেছে। অভিযুক্ত স্বামীকে ধরতে অভিযান চালাচ্ছে তারা। স্ত্রীকে বাজি রাখার মতো ঘৃণ্য অপরাধ সংগঠনের পেছনে প্রকৃতপক্ষে কী ধরনের অবস্থা কাজ করেছে, পুলিশ তা উদঘাটন করতে চাইছে।

পাঁচ বছর আগে এই দম্পতি সংসার শুরু করেন। প্রথম দিন থেকেই স্ত্রী তার স্বামীর অত্যাচারের শিকার হতে শুরু করেন। শেয়ার মার্কেটে ব্যবসা করতেন এই স্বামী। বিয়ের প্রথম দিনে তিনি তার স্ত্রীর গহনা ও অন্যান্য সম্পদ চাওয়া শুরু করেন। এক পর্যায়ে তা নিয়েও নেন। পরে স্ত্রী জানতে পারেন, তার স্বামী মদ ও জুয়ার আসরে সব উড়িয়ে দিয়েছেন।

এবারের আইপিএল শুরু হওয়ার পর বাজি ধরতে থাকেন তার স্বামী। এক বাজিতে বাড়ির সব অসবাবপত্র খুইয়েছেন তিনি। পরে বাড়ি বাজি রাখার চিন্তা করেন। তবে তা না পারলেও মোটা অঙ্কের অর্থের বদলে স্ত্রীকে বাজি রাখেন তিনি। এতে হেরেছেন। এখন জীবন ঝুঁকিতে পড়ে গেছেন তিনি।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ২৮ মে ২০১৬

Related posts