September 19, 2018

অস্বাভাবিক হারে গলছে গ্রিনল্যান্ডের বরফ!

পৃথিবীর তাপমাত্রা বাড়ার সাথে সাথে গ্রিনল্যান্ডের বরফ অস্বাভাবিক হারে গলছে। বরফ গলা পানি সমুদ্রে যোগ হয়ে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়িয়ে দিচ্ছে। তবে আশঙ্কার কথা হচ্ছে, এর আগে বিজ্ঞানীরা যে হারে বরফ গলার প্রাক্কলন করেছিলেন এখন তার থেকে অনেক দ্রুত গলছে।

বিজ্ঞানীদের এক গবেষণায় দেখা গেছে, গ্রিনল্যান্ডের তুষার এবং বরফ সেখানকার পানি ধরে রাখতে ব্যর্থ হচ্ছে। সেসব পানি চলে আসছে সমুদ্রে। এর ফলে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়ার সাথে সাথে পৃথিবীর অনেক নিম্নাঞ্চল তলিয়ে যাচ্ছে।

ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে দেখা যায়, গত শতাব্দীতে গ্রিনল্যান্ড থেকে নয় ট্রিলিয়নেরও বেশি বরফ গলেছে। নাসার গবেষণায় দেখা গেছে, এখন গ্রিনল্যান্ড থেকে প্রতিবছর ২৮৭ বিলিয়ন টন বরফ গলছে। ‘ন্যাচার ক্লাইমেট চেঞ্জ’ শীর্ষক জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণা প্রতিবেদনের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়। গবেষণায় দেখা গেছে, গ্রিনল্যান্ডের পানি বরফের স্তর উপচে সমুদ্রের দিকে গড়াচ্ছে। এর আগে বিভিন্ন বরফ স্তর গলে যাওয়া পানি আটকে রেখেছিল। এখন আর সেসব পানি আটকা থাকছে না। ডেনমার্ক ন্যাশনাল হিস্ট্রি মিউজিয়ামের গবেষক কার্ট কেজিয়ার বলেন, গ্রিনল্যান্ডের বিভিন্ন জায়গায় এর আগে পানির নানা আধার দেখা গেলেও এখন তা দেখা যাচ্ছে না।

২০০৯ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত গ্রিনল্যান্ডের ওপর গবেষণা করে দেখা গেছে, ওপরের বরফের স্তরের নিচে এর আগে পানি জমা থাকতে দেখা গেলেও এখন আর সেটা নেই। এসব পানি সমুদ্রে মিশে গেছে। পৃথিবীর তাপমাত্রা বাড়ার সাথে সাথে গ্রিনল্যান্ডের বরফের উচ্চতা কমছে বলেও সিদ্ধান্তে এসেছে গবেষক দল।

এদিকে নাসার এক রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। ১৯৯২ সাল থেকে এ পর্যন্ত সমুদ্রের উচ্চতা তিন ইঞ্চি বেড়েছে। এভাবে চলতে থাকলে পৃথিবীর কয়েক কোটি লোক উদ্বাস্তু হয়ে যাবে। অনেকের জীবন পড়বে ঝুঁকিতে। নাসার মতে, পৃথিবীর এক-তৃতীয়াংশ মানুষ সমুদ্র উপকূলের ৬০ মাইলের মধ্যে বসবাস করে। নাসার রিপোর্টে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা এবং যুক্তরাষ্ট্রের নিউ অরলিন্সের উদাহরণ দিয়ে বলা হয়, এ ধরনের অনেক শহর এখনো ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts