November 13, 2018

অস্কার জয়ী নায়কের গায়ে দুর্গন্ধ<<অভিনয়ে নায়িকারা নারাজ

ডেস্ক রিপোর্টঃ  হলিউডের জনপ্রিয়তম অভিনেতাদের তালিকায় একেবারে উপরের দিকে ম্যাথিউ ম্যাক্কন। কিন্তু তার একটি বড় সমস্যা রয়েছে, উনি গায়ে সুগন্ধী মাখতে চান না। কারণ তার নাকি পারফিউম মাখতে ভালো লাগে না।

আর এ বিষয়টা নিয়েই ‘ডালার্স বায়ার্স ক্লাব’ ছবির জন্য অস্কার জয়ী এ অভিনেতা বেশ মুশকিলেই পড়েন। তার বিপরীতে বেশ কয়েকজন নায়িকাই নাকি অভিনয় করতে অনিচ্ছা প্রকাশ করেন। তাদের অভিযোগ, ম্যাথিউয়ের গায়ের গন্ধ এতোটাই খারাপ যে তার কাছেই যাওয়া যায় না।

ম্যাথিউ নিজেই জানিয়েছেন, গত ২০ বছর ধরে কোনোদিনও তিনি সেন্ট, পারফিউম বা ওই জাতীয় সুগন্ধী ব্যবহার করেননি।

ম্যাথিউ বলেন, ‘মায়ের উপদেশ ছিল সুগন্ধী ব্যবহার না করতে। মা বলেছিলেন- গায়ে সুগন্ধী ব্যবহার করলে পুরুষের আসল গন্ধটাই চলে যায়। আমার পুরুষত্ব নিয়ে আমি গর্বিত, তাই এ গন্ধটা তাড়াতে চাই না।’

এদিকে ২০০৮ সালে ফুলস অ্যান্ড গোল্ড নামের এক জনপ্রিয় হলিউড সিনেমায় ম্যাথিউ তার গায়ে গন্ধ নিয়ে সমস্যায় পড়েন। শুটিংয়ে বেশ কয়েকটি দৃশ্যে কসরত করার পর ম্যাথিউকে রোমান্স করতে হয় নায়িকা কেট হাডসনের সঙ্গে। কিন্তু কসরতের পর ঘেমে একাকার হওয়া ম্যাথিউ তখন কোনোরকমে গা মুছে কেটকে যখন আলিঙ্গন করতে যান তখনই সরে যান তিনি।

কেট তখন বলেন, ম্যাথিউর গায়ের দুর্গন্ধ সহ্য করা যাচ্ছে না। নায়িকার আপত্তি সত্ত্বেও সেদিন ম্যাথিউ কোনোরকম সুগন্ধী ব্যবহার করেননি। এই দুর্গন্ধের মধ্যেই ম্যাথিউর সঙ্গে রোমান্স করতে হয় বেচারি কেটকে। এরপর কেট আর কোনোদিনই ম্যাথিউয়ের সঙ্গে ছবি করতে চাননি।

যদিও এ ব্যাপারটা নিয়ে সন্দেহ আছে। কারণ দু’বছর আগে এক মার্কিন ট্যাবলয়েডে খবর প্রকাশিত হয়, ম্যাথিউ-কেট ডেটিং করছেন। তবে তার শরীরের দুর্গন্ধের কারণে ম্যাথিউর সঙ্গে কাজ করার অফার ফিরিয়ে দিয়েছেন বেশ কয়েকজন প্রতিষ্ঠিত অভিনেত্রী।

Related posts