September 24, 2018

অসমে ৭জন জেএমবি জঙ্গি আটক

গুয়াহাটি: বাংলাদেশভিত্তিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী জামাত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) সাত সদস্যকে আটক করা হয়েছে অসমের চিরাং জেলা থেকে। জেলার দাউকানগর ও আমগুড়ি এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। ধৃতদের কাছ থেকে ৪টি মোবাইল ফোন ও কিছু নথি উদ্ধার হয়েছে।

বুধবার রাতে স্থানীয় পুলিশ আটক করেন তাদের।

এই নিয়ে গত এক বছরে অসম থেকে ২৯ জন জেএমবি জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করা হল।এরা সবাই বাংলাদেশের জেএমবির অধীনে আসামে কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছিল।

স্থানীয় পুলিশের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা আইএএনএস জানিয়েছে, বুধবার রাতে আটক হওয়াদের মধ্যে দুজন মসজিদের ইমাম। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, তারা দলের সদস্যদের শারীরিক ও অস্ত্র প্রশিক্ষণের জন্য ক্যাম্প গড়ে তুলেছেন।

পুলিশ সূত্রে খবর, দাউকানগর এলাকার একটি শারীরশিক্ষা কেন্দ্র থেকে জয়নাল আবেদিন, সোলেমন আলি, দিলদার আলি, নুরুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম ও উখিলুদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়। অন্যদিকে, রাজাপাড়া রেজ্জাক আলিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই শারীরশিক্ষা কেন্দ্রেই চলত জেহাদি প্রশিক্ষণ। পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের সঙ্গে এই জঙ্গিদের কোনও যোগ রয়েছে কি না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, এই সাত জনের মধ্যে জয়নাল আবেদিন ও রেজ্জাক আলী আমগুরি মসজিদের ইমাম।

এর আগে ১৬ই এপ্রিল চিরাং ও কোকরাজহরের পুলিশ ‘জিহাদি’ অভিযোগে চার জনকে আটক করে। তাদের বিরুদ্ধেও চিরাংয়ে প্রশিক্ষণ ক্যাম্প স্থাপনের অভিযোগ রয়েছে। বোডোল্যান্ড টেরিটোরিয়াল এরিয়া ডিস্ট্রিক্টসের পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল এলআর বিশনই বলেন, ‘আগের আটক চার জিহাদিকে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে আমরা এই সাত জনের কথা জানতে পেরেছি। ’

বিশনই বলেন, তারা শারীরিক প্রশিক্ষণের জন্য ক্যাম্প গড়ে তুলেছিল এবং পরে অস্ত্র প্রশিক্ষণও চালুর পরিকল্পনা ছিল তাদের। বিশনই বলেন, ‘প্রশিক্ষণ দেয়ার জন্য দুই জন পশ্চিমবঙ্গ থেকে এসেছিলেন এখানে। আমরা তাদের নাম ও ঠিকানা পেয়েছি এবং পশ্চিমবঙ্গের পুলিশের সঙ্গেও আমাদের যোগাযোগ হয়েছে তাদের আটকের বিষয়ে।’

Related posts