November 17, 2018

অভ্যাস দীর্ঘস্থায়ী করতে ৭ করণীয়

১. ব্যক্তিগত পরিকল্পনা

পুরোদস্তুর পরিকল্পনার নকশা তৈরিতে মন দিন। এটা আসলে আপনার প্রথম পদক্ষেপ। ব্রিটেনের ইউনিভার্সিটি অব হার্টফোর্ডশায়ারের অধ্যাপক রিচার্ড ওয়াইজম্যান পাঁচ হাজার মানুষের ওপর গবেষণা চালান। তাদের সবাই নতুন বছরে একটি নতুন ভালো অভ্যাস গড়ে তোলার চেষ্টা করছিল। কিন্তু যথাযথ পরিকল্পনার অভাবে তারা অনেক সংগ্রাম করেও খুব একটা লাভবান হয়নি।

২. একই সঙ্গে লক্ষ্য নির্ধারণ করুন

কী অভ্যাস গড়ে তুলতে চান, সেটি ঠিক করুন। জাংক ফুড আর খাব না, যোগ ব্যায়াম শুরু করব—এমন অনেক অভ্যাসই হতে পারে। ‘দ্য পাওয়ার অব হ্যাবিট’ বইয়ে চার্লস ডাহিগ বলেন, একযোগে অনেক কিছু বদলাতে চাইলে জগাখিচুড়ি পেকে যাবে।

৩. নির্দিষ্ট অভ্যাসের পেছনে যুক্তি কী

যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির গবেষক বিজে ফগ বলেন, আপনাকে মাথায় রাখতে হবে, কেন আপনি অভ্যাসটি গড়ে তুলতে চান? এই বোঝাপড়া পরিষ্কার না হলে অভ্যাস গড়ে তোলা কিংবা স্থায়ী করা খুব কঠিন।

৪. ইচ্ছাশক্তিই যথেষ্ট নয়

‘দ্য উইলপাওয়ার ইনস্টিংকট’ বইয়ের লেখক ও মনোবিজ্ঞানী কেলি ম্যাকগোনিয়াল জানান, যারা নিজেদের মধ্যে চরম ইচ্ছাশক্তি রয়েছে বলে মনে করে, তাদের মধ্যে বিগড়ে যাওয়ার প্রবণতা দেখা যায়। তাই কেবল ইচ্ছাশক্তির ওপর নির্ভর না করে বাস্তবিক বাধাগুলো নিয়ে চিন্তা করুন।

৫. অবসরে নতুন অভ্যাসের চর্চা

নতুন একটি অভ্যাস চর্চার মাধ্যমে গড়ে ওঠে। এ জন্য তা শুরু করতে অবসর সময়টি বেছে নিন। ছুটি কাটাতে কোথাও ঘুরতে গেছেন বা বাড়িতেই বসে আছেন—এমন মুহূর্ত নতুন অভ্যাসকে স্বাগত বা পুরনো অভ্যাসকে বিদায় জানানোর মোক্ষম সময়।

৬. সমমনা কাউকে সঙ্গী করুন

আপনি যে পরিকল্পনা করেছেন, তার সঙ্গে অনেকেই সহমত পোষণ করবে। এদের ভেতর থেকে কাউকে সঙ্গী বানাতে পারেন। এটা ইতিবাচক অভ্যাস গড়ে তোলা বা সুখ সন্ধানের একটি শক্তিশালী পন্থা।

৭. সুখকর হতে হবে

যাই করেন না কেন, কিছু সমস্যা থাকবেই। কিন্তু গোটা প্রক্রিয়াটি সুখকর হতে হবে। কাজের পেছনকার ব্যস্ততা যদি সুখ দেয় তবে মানুষ ৩১ শতাংশ বেশি উত্পাদনশীল হয়। ইতিবাচক মনোভাবে ডোপামাইন হরমোনের ক্ষরণ বেড়ে যায়। এতে সুখের অনুভূতি হয়।

হাফিংটন পোস্ট অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার

Related posts