November 20, 2018

অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার শাহজাহানের পিপিএম পদক লাভ

Sahjan-

স্টাফ রিপোর্ট: পুলিশ বাহিনীর সুনাম অক্ষুন্ন রাখা ও কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার মো. শাহজাহান ‘রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম) ২০১৬’ পেয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ২৬ জানুয়ারি পুলিশ সপ্তাহ-২০১৬ উপলক্ষে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মাঠে তাকে পিপিএম পদক প্রদান করেন।

তিনি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশে (ডিবি) কর্মরত। চুয়াডাঙ্গার কৃতীসন্তান এই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহজাহান।

ফেসবুকের সমালোচিত পেজ বাশেরকেল্লাসহ শতাধিক পেজের এডমিন জিয়াউদ্দিন ফাহাদ ও রাজধানী ঢাকার বাড্ডার আলোচিত পীর খিজির খান হত্যার মূল আসামি তরিকুল ইসলামসহ অনেক জঙ্গি সদস্যকে গ্রেফতার করে তিনি পুলিশ বাহিনীর সুনাম অক্ষুন্ন রাখেন।

মো. শাহজাহান বলেন, আমাকে পিপিএম পদক প্রদান করার জন্য আইজিপি, যুগ্মপুলিশ কমিশনার ডিবি, ডিএমপি কমিশনার এবং ডিসি ডিবি-উত্তরসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানাই। সকলের দোয়া কামনা করছি আরো ভাল কাজ করার জন্য।

জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের শাহাপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন মো. শাহজাহান। তার বাবা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। নাম আব্দুছ ছোবাহান। মা সাফিয়া খাতুন। মা-বাবা মারা গেছেন। তাদের তিন মেয়ে ও দু ছেলের মধ্যে শাহজাহান তৃতীয় সন্তান। ছেলের মধ্যে তিনি বড়। তিনি সরোজগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে কৃতীত্বের সাথে এসএসসি ও কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাস করেন।

এরপর বাংলাদেশের সর্বোচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লোক প্রশাসনে অনার্স-মাস্টার্স শেষ করেন। ২৫তম বিসিএস-এ পুলিশ ক্যাডারে ২০০৬ সালে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) হিসেবে যোগদান করেন। প্রথমে র্যা ব-৫ এ-রংপুর ও রাজশাহী বাগমারায় কর্মরত ছিলেন। এরপর টাঙ্গাইল জেলার গোপালপুর সার্কেল এএসপি পদে যোগদান করেন।
২০১৩ সালে ইউএন মিশনে (সুদানের দারফুরে) যান। সেখান থেকে ফিরে ২০১৪ সালের জুলাই মাসে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার হিসেবে যোগদান করেন। ২০১৫ সালে অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (এডিসি) হিসেবে পদন্নোতি পান। তিনি বর্তমানে ডিবিতে এডিসি হিসেবে কর্মরত আছেন।

সংসার জীবনে তিনি এক মেয়ের জনক। মেয়ে সামিয়া মেহজাবিন স্নেহা ঢাকার সিদ্ধেশ্বরীতে ভিকারুনূনিসা নূন স্কুলের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী। স্ত্রী নাসরিন সুলতানা ঢাকার খিলগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

Related posts