September 21, 2018

অচিরেই জনগণকে সাথে নিয়ে হেফাজতে ইসলাম মাঠে নামবে – বাবুনগরী

রিয়াজুল করিম
ঢাকা থেকেঃ
লালবাগ সমন্বয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের দ’আ ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হেফাজত মহাসচিব মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, বাংলাদেশের বুকে মহান আল্লাহতায়ালার পবিত্র বিধানের বিরুদ্ধ বিষোদগার করছে নাস্তিক মুরতাদ নামের একটি কুচক্রী মহল। তাঁরাই আজ ইসলাম বিনাশী শিক্ষা আইন করে দেশকে ইসলাম শুন্য করার ষড়যন্ত্র করছে। তিনি বলেন, আমাদেরকে ঈমানী বলে বলীয়ান হয়ে ন্যায়, ইনসাফ কায়েমে সত্যের হুঙ্কার দিতে হবে নির্ভীক কণ্ঠে। সব ভয়, হুমকি, ধমকি মাড়িয়ে বীর দর্পে এগিয়ে যেতে হবে। আমি বিশ্বাস করি বে ঈমান নাস্তিক মুরতাদ অপশক্তি মোমের মত গলে পড়ে যাবে। আমাদেরকে অস্ত্রের জোরে নয় ঈমানী শক্তি নিয়ে লড়াই করতে হবে। তিনি বলেন, শিক্ষানীতি ও শিক্ষা আইনের ইসলাম বিরোধী ধারা উপধারা এবং ইসলাম ও নৈতিকতা বিধ্বংসী শিক্ষা সিলেবাস আমূল সংস্কার না করা হলে অচিরেই জনগণকে সাথে নিয়ে হেফাজতে ইসলাম মাঠে নামবে। ইসলাম বিনাশী শিক্ষা আইন প্রতিরোধে ঐক্যবদ্ধ জাতি প্রতিরোধ গড়ে তুলবে।

মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ বলেন, হেফাজতের কেল্লা হচ্ছে লালবাগ।  এই কেল্লা থেকে হেফাজতকে আবার নবজাগরন সৃষ্টি করতে হবে। আমাদের সকলকে এক ও নেক হয়ে কাজ করতে হবে।

হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা জাফরুল্লাহ খান বলেন, হেফাজতে ইসলাম রাজপথে ছিল আছে থাকতে হবে। এবং বাতিল প্রতিরোধে হেফাজতকে কঠিন ভূমিকা পালন করতে হবে।

হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহ বলেছেন, রাজনৈতিক দলসমূহের পরস্পরবিরোধী অবস্থান, অবিশ্বাস, কেও কাওকে ন্যূনতম ছাড় না দেয়ার মানসিকতা এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রে ইসলামী চেতনায় উজ্জীবিত না হওয়ার ফলে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে বিরাজ করছে চরম অস্থিরতা।একটা ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে দেশের আলেম সমাজ। এই অবস্থা চলতে দেয়া যায় না।

নেতৃবৃন্দ বলেন, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ইসলামী চিন্তাবিদ, বর্ষীয়ান আলেমেদ্বীন,খ্যতিমান লেখক,অনুবাদক, মাসিক মদীনা সম্পাদক,তাফসিরে মা’আরিফুল কোরআনের বাংলা অনুবাদক, বাংলা ভাষায় ইসলাম চর্চার পথিকৃত , ইসলামী ঐক্যজোটের সাবেক সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যাব, ইসলাম ও রাষ্ট্রদ্রোহী তৎপরতা প্রতিরোধ মোর্চা( ইসলামী মোর্চা) প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক, রাবেতা আলমে ইসলামীর স্থায়ী সদস্য,ইতিহাসবিদ, মাওলানা মুহিউদ্দীন খান ছিলেন, এদেশের তওহিদী জনতার অভিভাবক ও মুরব্বী এবং খাঁটি দেশেপ্রেমিক, অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী, মজলুম ও নির্যাতিত অত্যাচারিতদের পক্ষে জালেমের বিরুদ্ধে আপসহীন। তিনি নাস্তিক মুরতাদ এবং ইসলাম ও মুসলিমবিদ্বেষী আগ্রাসী শক্তির বিরুদ্ধে সাহসী নেতা। জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোতে তার সুদৃঢ় নেতৃত্ব ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

তিনি জান্নাতুল ফেরদাওসবাসী হোন মহান রবের করুণাছায়ায়। যতদিন কুরআন আছে, কুরআনের তাফসির মাআরিফুল কুরআনের বাংলা অনুবাদ আছে, তাঁর অসংখ্য বই আছে, অনুবাদ গ্রন্থ আছে, মাসিক মদীনা আছে ততদিন তিনি স্মরণীয় হয়ে থাকবেন তার এই মহান কর্মের মধ্যে।

আজ মাওলানা মুহিউদ্দীন খানের মাগফিরাত কামনায় দু’আ ও ইফতার মাহফিল হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সমন্বয় কার্যালয় লালবাগে  মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন,হেফাজত মহাসচিব মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরী, হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহ, মাওলানা জাফরুল্লাহ খান, মাওলানা মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী , মুফতী তৈয়্যে হোসাইন, মাওলানা জসিম উদ্দীন, মাওলানা আবুল কাশেম, মাওলানা আহলুল্লাহ ওয়াসেল, মাওলানা শেখ মুজিবুর রহমান, মাওলানা সাইফুল ইসলাম, মুফতী রেজাউল করীম, মাওলানা ফজলুর রহমান, মাওলানা আলতাফ হোসাইন, মাওলানা জুনায়েদ গুলজার, মাওলানা আরিফ বিল্লাহ, মাওলানা আবদুল লতিফ,মাওলানা রিয়াজতুল্লাহ, মাওলানা ইসহাক, কাজী আজিজুল হক, মাওলানা মাহমুদুল হক, মাওলানা মাহমুদুল হাসান,মাওলাণা খলিলুর রহমান, হাফেজ মোস্তাফা, মাওলানা নেজাম উদ্দীন প্রমুখ।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ২৬ জুন ২০১৬

Related posts