November 19, 2018

অঁবাজি তোয়ারা এনগড়ি রাস্তা দহল গরিলে, আঁরা হডে যাঁইয়ুম!

অজিত কুমার দাশ
কক্সবাজার থেকেঃ
শহরের পূর্ব বাজারঘাটা প্রধান সড়ক সংলগ্ন ফুটপাত বেদখল হয়ে যাওয়ার কারণে একদিকে যেমন যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। অন্যদিকে পথচারীরা চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে।

সরজমিনে পরিদর্শন কালে দেখা যায়, শহরের পূর্ব বাজার ঘাটা একটি বানিজ্যিক ব্যস্ততম এলাকা হিসাবে পরিচিত। ওই এলাকায় প্রধান সড়কের দু’পাশে বার্মিজ মার্কেট, রড সিমেন্ট ও নির্মাণ সামগ্রী বিক্রয় কেন্দ্র সহ বেশ কিছু ব্যাংক, বীমা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। প্রতিদিন জেলার দুর-দুরান্ত থেকে নির্মাণ সামগ্রী ও অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে ওই এলাকায় প্রচুর লোক সমাগম হয়।

এ অবস্থায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মালিকগণ সড়কের ফুটপাত যার যার মত দখল করে নিজেদের প্রয়োজন মাফিক ব্যবহার করার কারণে একদিকে যেমন যানজট সৃষ্টি হচ্ছে অন্যদিকে পথ চলতে গিয়ে পথচারীরা চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে। ওই এলাকা দিয়ে এই প্রতিবেদক হেটে আসার সময় এক পথচারী দখলবাজদের বলতে শোনা গেছে “অবাজি তোয়ারা এনগড়ি রাস্তা দহল গরিলে, আরা হডে যাইয়ুম”।

প্রত্যেক্ষদর্শীদের মতে, সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ওই এলাকায় অবস্থিত নির্মান সামগ্রীর দোকান গুলোর সামনে ফুটপাত দখল করে সড়কের উপর একাধিক পিকআপ, টেলাগাড়ী দাড় করিয়ে মালামাল লোড আনলোড করে থাকে। ফরে পথচারীরা নির্দিষ্ট ফুটপাত দিয়ে পথ চলতে না পেরে প্রধান সড়কদিয়ে পথচলতে গিয়ে প্রায় সময় দূর্ঘটনার শিকার হতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। এছাড়া মালামাল লোড আনলোড করার কারণে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে নিয়মিত। বিশেষ করে কোন কিছুর তোয়াক্কা না করে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত মেসার্স কক্সবাজার বিল্ডার্স সহ অন্যান্য দোকানের কর্মচারীরা দোকানের সামনে সড়কের উপর বিভিন্ন পরিবহন দাড় করিয়ে নির্মাণ সামগ্রী লোড আনলোড করে থাকে।

জেলা ট্রাফিক পুলিশ ইনচার্জ আবু সালাম চৌধুরী জানান, এ ব্যাপারে অভিযোগ পাওয়া গেলে আমরা আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহন করবো।

ভারপ্রাপ্ত পৌর মেয়র মোঃ মাহবুবুর রহমান চৌধুরী জানান, এ ফুটপাত দখলের বিষয়ে আমি মৌখিকভাবে অভিযোগ পেয়েছি। পৌর পরিষদ মিটিং এ ফুটপাত উদ্ধারের বিষয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নেব।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts